Home | আন্তর্জাতিক | সন্ত্রাসী সেভেন স্টার গ্রুপের ব্যাংক ইবিএল!

সন্ত্রাসী সেভেন স্টার গ্রুপের ব্যাংক ইবিএল!

স্টাফ রিপোর্টার, ২৮ মার্চ, বিডিটুডে ২৪ডটকম : যেখানেই থাকুক না কেন দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসীদের কাছে চাঁদাবাজির ভাগ (কমিশন) পৌঁছে দেওয়ার কাজ ও তাদের সব ধরনের লেনদেনে সহায়তা করেছে ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড (ইবিএল)।

সর্বশেষ, ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী গোষ্ঠী সেভেন স্টার গ্রুপের সব ধরনের লেনদেন হয়েছে ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের (ইবিএল) মাধ্যমে। গ্রুপটি তাদের চাঁদাবাজির কর্মকাণ্ড পরিচালনায় ইবিএলকে ব্যবহার করেছে।

সূত্র জানায়, সেভেন স্টার গ্রুপের অন্যতম সন্ত্রাসী সুব্রত বাইন গত বছর নভেম্বরের শেষের দিকে কলকাতায় আটক হন। তার আগে নেপাল থেকে জেল ভেঙে পালিয়ে যান তিনি। বিদেশে অবস্থানের সময় সুব্রত বাইনের চাঁদাবাজির ভাগ (কমিশন) তার কাছে পৌঁছে যেতো। আর এই কাজ করে দিতো ইবিএল। বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে এই কাজ করে ব্যাংকটি। পরে এক পর্যায়ে বিষয়টি প্রকাশ পেলেও সুকৌশলে ধামাচাপা দেওয়া হয়।

সূত্র জানায়, ১৯৯৭ সালের দিকে র্শীষ সন্ত্রাসী সুব্রত বাইন, তানভিরুল ইসলাম জয়, টোকাই সাগর, টিক্কা, সালেমি, চঞ্চল ও মোল্লা মাসুদ—এই সাতজনে গড়ে ওঠে সেভেনে স্টার গ্রুপ। তাদের অ্যাকাউন্ট খোলা হয় ইবিএলে। চাঁদাবাজির সব অর্থ তারা ব্যাংকটির নির্ধারিত অ্যাকাউন্টে রাখতো। এমনকি সুব্রত বাইন দেশ থেকে পালিয়ে যাবার পর তার সব লেনদেন হয়েছে ইবিএল’র মাধ্যমে, তিনি বিদেশে বসেই দেশ থেকে চাঁদাবাজির ভাগ পেয়েছেন।

জানা যায়, আলোচিত এই সন্ত্রাসী গ্রুপটি ঢাকা সিটি করপোরেশনের সব ঠিকাদারি কাজ নিয়ন্ত্রণ করত। তৈরি পোশাকখাত থেকে শুরু করে নির্মাণ ঠিকাদারি, পরিবহন সবক্ষেত্রে প্রকাশ্যে চাঁদাবাজির কর্মকাণ্ড পরিচালনা করত তারা। আর তাদের চাঁদার টাকা নিরাপদে রাখতে অত্যন্ত নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে ইবিএল। এক সময় সেভেন স্টার গ্রুপের ব্যাংক হিসেবেও পরিচিতি পায় ইবিএল।

বাংলাদেশ ব্যাংকের একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার পুরো সময়টা তারা ইস্টার্ন ব্যাংকের মাধ্যমে যাবতীয় লেনদেন করতো। সাতজনের নামে সাতটি আলাদা ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছিল এই ব্যাংকে।

সূত্র জানায়, সুব্রত বাইন যখন বাংলাদেশ থেকে পালিয়ে ভারতে চলে যান, তখন বাংলাদেশ থেকে তার কমিশনের অর্থ যাওয়ার চ্যানেল ছিল ইবিএল। ইবিএল দীর্ঘ প্রায় ১০ বছর শীর্ষ এ সন্ত্রাসী গ্রুপের ব্যাংক হিসেবে কাজ করে। ১৯৯৭ সাল থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত এই এসব অ্যাকাউন্টে সেভেন স্টারের সন্ত্রাসীরা লেনদেন পরিচালনা করে। পরে অত্যন্ত গোপনে সেগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়।

x

Check Also

বাংলাদেশের পতাকার রঙে আলোকিত হলো অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেন

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ডের রাজধানী ব্রিসবেনের দুটি মূল স্থাপনা স্টোরি ব্রিজ এবং ...

অবশেষে বৈঠকে বসছে ভারত ও পাকিস্তান

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : দুই বছর পর সিন্ধুর জল বণ্টন নিয়ে মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) ভারতের সঙ্গে ...