Home | খেলাধূলা | বার্সা ছাড়া হলো না মেসির

বার্সা ছাড়া হলো না মেসির

ক্রীড়া ডেস্ক : ২০২০-২১ মৌসুম অবধি তার যে চুক্তি রয়েছে সেটা শেষ করেই পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবেন আর্জেন্টাইন ফুটবল মায়েস্ত্রো। অর্থাৎ, আসন্ন মেসৈুমের আগে ক্লাব ছাড়তে চাইলেও শেষমেষ সেটা করছেন না তিনি। গোল ডট কমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে শুক্রবার তার সিদ্ধান্তের কথা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন মেসি।

গোলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মেসি জানিয়ে দিলেন, অন্ততপক্ষে আরও একবছরের জন্য বার্সেলোনার জার্সি গায়েই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের মতো সর্বোচ্চ পর্যায়ের প্রতিযোগীতায় খেতাব জয়ের জন্য মাঠে নামবেন তিনি। তবে রিলিজ ক্লজের ব্যাপারে বার্সেলোনার ব্যবহারে যে তিনি কমবেশি অসন্তুষ্ট হয়েছেন সেটা মেসির কথাতেই স্পষ্ট। মেসি সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ‘ভেবেছিলাম মৌসুম শেষে আমি অন্য ক্লাবে যাওয়ার জন্য ফ্রি। প্রেসিডেন্ট আমাকে সবসময় বলে এসেছিলেন মরশুম শেষে আমি যে কোনও সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারি। কিন্তু মৌসুম শেষে তারাই জানায় ১০ জুনের আগে আমার এই সিদ্ধান্তের কথা ক্লাবকে জানিয়ে দেওয়া উচিৎ ছিল।’

অতিমারী পরিস্থিতিতে বিঘ্নিত মৌসুমে ১০ জুন আমরা লা লিগার জন্য লড়াই করছিলাম। তাই এমন পরিস্থিতিতে ক্লাব ছাড়ার কথা জানানো তার পক্ষে একপ্রকার অসম্ভব ছিল বলে দাবি করেছেন আর্জেন্টাইন।

উল্লেখ্য, চ্যাম্পিয়ন্স লিগে বায়ার্নের কাছে বিধ্বস্ত হওয়ার পর সপ্তাহ দেড়েক আগে মেসি ব্যুরোফ্যাক্সের মাধ্যমে বার্সেলোনাকে ম্যানেজমেন্টকে ক্লাব ছাড়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু এরপর তারকা ফুটবলারের উপর রিলিজ ক্লজ হিসেবে ৭০০ মিলিয়ন ইউরো চাপিয়ে দেয় বার্সেলোনা কর্তৃপক্ষ। নিয়ম মোতাবেক ১০ জুনের আগে মেসি যেহেতু তার চুক্তি বাতিল করেননি তাই এই মুহূর্তে অন্য ক্লাব যদি তাকে পেতে চায় তবে তাদের রিলিজ ক্লজের মূল্য চোকাতেই হবে। এমনটাই জানিয়েছিল বার্সা। পরে তাতে সিলমোহর দেয় লা লিগা।

এব্যাপারে মেসি তার লিগ্যাল টিমের সঙ্গে পরামর্শ করে ব্যাপারটাকে আদালত অবধি নিয়ে যেতেই পারতেন। কিন্তু সেটা তিনি করতে চাননি বলেই সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন ব্লগ্রানা ক্লাবের হয়ে রেকর্ড ৬৩৪ গোলের মালিক। মেসির কথায়, ‘আমি বার্সেলোনার বিরুদ্ধে কখনোই আদালতে যেতে চাইনি কারণ ক্লাবকে আমি ভালোবাসি। এখানে আসার পর এই ক্লাব আমায় সবকিছু দিয়েছে। আমি এখানে আমার জীবন তৈরি করেছি। বার্সা যেমন আমায় সব দিয়েছে তেমনই আমিও বার্সাকে সব উজাড় করে দিয়েছি।’

পরিস্থিতি সামাল দিতে গত বুধবার মেসির বাবা তথা এজেন্ট জর্জ মেসি বার্সেলোনায় পৌঁছেছিলেন বার্সেলোনা বোর্ড অফ ডিরেক্টরসদের সঙ্গে কথা বলতে। তার উদ্দেশ্য ছিল একটা সমাধানসূত্র বের করে আনা। প্রেসিডেন্ট বার্তোমেউ সহ বোর্ড অফ ডিরেক্টরসের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে কথা বলার পর বাইরে বেরিয়ে সিনিয়র মেসি ইতিবাচিক ইঙ্গিতই দিয়েছিলেন। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি জানিয়েছিলেন চুক্তির মেয়াদ অবধি তার ছেলে বার্সেলোনায় থেকে যাওয়ার কথা ভেবে দেখছে। আর শুক্রবার লিওনেল মেসি স্বয়ং সব জল্পনায় অবসান ঢেলে জানিয়ে দিলেন আরও একবছর অন্তত বার্সেলোনাতেই থাকছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

চীনে কমেছে শিশু জন্মহার

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক: চীনের জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার গত কয়েক দশকের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে ...

করোনায় ১০ জনের মৃত্যু

স্বাস্থ্য ডেস্ক: বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ১০ জনের মৃত‌্যু হয়েছে। এ ...