Home | ব্রেকিং নিউজ | জমা দেওয়া কমিটিগুলোতে স্বজনপ্রীতি হয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখা হবে : কাদের
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। (ফা্ইল ফটো)

জমা দেওয়া কমিটিগুলোতে স্বজনপ্রীতি হয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখা হবে : কাদের

ডেস্ক রিপোর্ট : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছে, দলের সহযোগী সংগঠনের যে কমিটিগুলো জমা দেওয়া হয়েছে সেগুলো এখনই ঘোষণা করা হবে না। জমা দেওয়া কমিটিগুলোতে স্বজনপ্রীতি হয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, যেসব কমিটি ইতোমধ্যেই জমা দেওয়া হয়েছে সেগুলো এখনই ঘোষণা করা হবে না। যাচাই-বাছাই করে পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের নাম তালিকায় আছে কি না তা দেখা হবে।

শনিবার (১৯ সেপ্টেস্বর) ওয়েস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্ট ডব্লিউবিবিআইপি প্রকল্পের অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় এসব কথা বলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী। সংসদ ভবন এলাকায় সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ওই সভায় সংযুক্ত হন তিনি।

স্বজনপ্রীতি ও নিজেদের লোক দিয়ে কমিটি দেওয়া হয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখা হবে উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, দীর্ঘদিনের পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের অবশ্যই মূল্যায়ন করতে হবে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, অবিতর্কিত ও ত্যাগীদের কমিটিতে অগ্রাধিকার অবশ্যই দিতে হবে এবং বিতর্কিতদের বাদ দিতে হবে। অনেকেই মনে করছেন দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযান থেমে গেছে, এ কথা মোটেও সত্য নয়। সরকারের দুর্নীতি অনিয়মের বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, দলের ভিতরেও অপকর্ম করলে কেউই রেহাই পাবে না।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, করোনাকালে পিছিয়ে পড়া কাজগুলো অধিকতর সক্রিয়তার মধ্য দিয়ে এগিয়ে নিতে হবে। আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করতে হবে। কর্মসম্পাদনে স্বচ্ছতা বজায় রাখতে হবে এবং অপচয় রোধ করতে হব।

মন্ত্রী বলেন, খালি জায়গা পেলেই যত্রতত্র ভবন নির্মাণ বন্ধ করতে হবে। ভবন নয়, মানসম্মত সড়ক এবং সেতু নির্মাণই হতে হবে প্রধান কাজ।

ডব্লিউবিবিআইপি প্রকল্পের অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় শেষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ১ কোটি গাছের চারা রোপণ কর্মসূচির অংশ হিসেবে সংসদ ভবন এলাকায় ২টি গাছের চারা রোপণ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

স্কুল ড্রেস ও জুতা ছোট হওয়ায় বিপাকে রাণীশংকৈলের শিক্ষার্থীরা

দেড় বছর আগের বানানো স্কুল ড্রেস আর জুতা ছোট হয়ে যাওয়ায় বিপাকে ...

খুলবে বিদ্যালয়,পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষার্থীদের আর বেতন নিয়ে পরিবারের বাড়তি দুশ্চিন্তা

অ্যাসাইনমেন্ট জমা দেওয়া ছাড়া প্রায় দেড় বছরে বিদ্যালয়ে যাওয়ার সুযোগ হয়নি নবম ...