Home | বিবিধ | পরিবেশ | কুড়িগ্রামে দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে নদী ও খাল খনন

কুড়িগ্রামে দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে নদী ও খাল খনন

অনিরুদ্ধ রেজা, কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রামে ৪২ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি খাল সহ চারটি ছোট নদী খননের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। ৬৪ জেলার অভ্যান্তরস্থ ছোট নদী, খাল এবং জলাশয় পুন: খনন প্রকল্পের (প্রথম পর্যায়) আওতায় এ কাজ অব্যহত রয়েছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে নদীর নাব্যতা বৃদ্ধি, পানি নিস্কাশন, সেচ সুবিধা, পানি ধারণ ক্ষমতা বৃদ্ধি, মৎস্য চাষ বৃদ্ধি ও জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি হ্রাস সহ পরিবেশ ও জীববৈচিত্রের ভারসাম্য রক্ষা হবে সংশ্লিষ্ট সুত্র জানিয়েছে।

প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়নকারী কর্তৃপক্ষ কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্ভযোগ্য সুত্র জানিয়েছে- প্রকল্পের আওতায় কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার বুড়ি তিস্তা নদী সাড়ে ৩১ কিঃ মিঃ, নাগেশ্বরী ও ভুরুঙ্গামারী উপজেলার ফুলকুমার নদী ৩৬ কিঃ মিঃ ফুলবাড়ী উপজেলার নীল কমল নদী সাড়ে ১৫ কিঃ মিঃ রাজিবপুর ও রৌমারী উপজেলার সোনাভরি নদী সাড়ে ৯ কিঃ মিঃ এবং নাগেশ্বরী উপজেলার নেওয়াশী সুখাতি খাল সোয়া ৫ কিঃ মিঃ খননের কাজ চলমান রয়েছে। মোট ১০টি প্যাকেজের আওতায় এ কাজগুলি বিভিন্ন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাসে কুড়িগ্রামে নদী ও খাল খননের কাজ উদ্বোধন করা হয়। রাজস্ব খাতের অর্থায়নে প্রকল্পের এ কাজগুলি সমাপ্ত হবে আগামী ২০২০ সালের নভেম্বর মাসে।

দু’ বছর মেয়াদী নদী ও খাল খনন কাজের অগ্রগতি সম্পর্কে সুত্র জানায়- এ নাগাদ প্রকল্পের কাজ ৪০ ভাগ সম্পন্ন হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই প্রকল্পের কাজ সমাপ্ত হবে সুত্রটি আশা প্রকাশ করেছে।

সুত্র আরো জানায়- ১শ’ বছর মেয়াদী ব দ্বীপ পরিকল্পনার অংশ হিসেবে এ প্রকল্পের কাজ শুরু করা হয়। প্রকল্পের দ্বিতীয় পর্যায়ে কুড়িগ্রামের বড় নদী ব্রহ্মপুত্র, তিস্তা, ও ধরলা সহ অন্যান্য নদী খননের কাজ করার পরিকল্পনা রয়েছে।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আরিফুল ইসলাম প্রকল্পের কাজ সম্পর্কে জানান- প্রকল্পের কাজের গুনগতমান অত্যান্ত ভাল। তবে দু’ এক জায়গায় জমির মালিকানা নিয়ে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। এব্যাপারে আমরা স্থানীয় সিভিল প্রশাসন এবং পুলিশ প্রশাসনের কাছ থেকে পর্যাপ্ত সহযোগিতা পাচ্ছি। মুলত আমরা সি, এস রেকর্ড অনুসরণ করে নদী কিংবা খাল খননের কাজ অব্যাহত রেখেছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার ভিত্তিক এ প্রকল্পের কাজ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে তিনি সকলের কাছ থেকে সহযোগিতা আশা করেছেন।

নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আরিফুল ইসলাম আরো জানান- একই প্রকল্পের সেকেন্ড ফেজে কুড়িগ্রামের ৯ উপজেলার অবশিষ্ট ছোট নদী, খাল এবং জলাশয় পুন: খননের কাজ করার পরিকল্পনা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ব্রিজের রেলিং ভেঙে বাস খাদে, ৬ জন নিহত

ফরিদপুর প্রতিনিধি : ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের ফরিদপুর সদর উপজেলার ধুলদী রেল গেট এলাকায় ...

মোজাফফর আহমদের প্রতি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

স্টাফ রির্পোটার : মুক্তিযুদ্ধকালীন বাংলাদেশ সরকারের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) সভাপতি ...