ব্রেকিং নিউজ
Home | সারা দেশ | সুনামগঞ্জ ১আসনঃ হাওর পাড়ে ব্যস্থ সম্ভাব্য প্রার্থীরা

সুনামগঞ্জ ১আসনঃ হাওর পাড়ে ব্যস্থ সম্ভাব্য প্রার্থীরা

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জে বৃহত্তর দু-দলের বর্তমান,সাবেক ও সম্ভাব্য নতুন জনপ্রিয় প্রার্থীরা হাওরপাড়ে প্রতিদিন মতবিনিময়,গনসংযোগ,মিটিং,প্রচার-প্রচারনায় অংশ নেওয়ায় দলীয় নেতাকর্মী ও ভোটারদের মাঝে যেন প্রানের সঞ্চার হচ্ছে। সেই সাথে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনাও বিরাজ করছে দ্বীপ সাদৃশ্য জনপদ গুলোতে ভোটারদের মাঝে। বিএনপি ও আ,লীগের ঐসব প্রার্থীরা সুযোগ বুজে দলের নিজ নিজ সমর্থিত নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রতিদিনেই (সুনামগঞ্জ-১আসনের)তাহিরপুর,জামালগঞ্জ,ধর্শপাশা উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের হাওরপাড়ের প্রতন্ত্য গ্রাম গুলো চষে বেড়াচ্ছেন। এছাড়াও নিজেদের এমপি প্রার্থী হিসাবে চালিয়ে যাচ্ছেন বিভিন্ন ভাবে প্রচার প্রচারনা। তারা নেতাকর্মীদের নেতৃত্ব দিয়ে নিজ নিজ এলাকায় দলীয় কার্যক্রম সঠিক ভাবে পরিচালিত করতে জোরালো পদক্ষেপ নিতেও বলেছেন সকল বেদাবেদ ভুলে। নির্বাচন খুব শীর্ঘই না হলেও হাওর পাড়ে তাদের আগমনে এক মিলন মেলায় পরিনত হয়েছে এবং জাতীয় নির্বাচনের আবাশেই লক্ষ্য করছে হাওরবাসী। সুনামগঞ্জ-১আসন (তাহিরপুর,জামালগঞ্জ,ধর্মপাশা ও মধ্যনগর) উপজেলার ভোটার,দু-দলের নেতাকর্মীরা জানায়,সবার আগমনে যেন হাওর পাড়ে প্রান ফিরে পেয়েছে আর একটু খুশি দু-দলের নেতাকর্মীদের পাশা-পাশি ভোটারগন। দু-দলের প্রার্থী বেশী হওয়ার সুযোগ কে কাজে লাগিয়ে হাওর পাড়ের বিভিন্ন উপজেলার নেতাকর্মীরা কেউ কেউ পুরুনো নেতাকে ভুলে উদিয়মান তরুন নতুন নেতা নির্বাচন করতেও চাইছেন। আর প্রাধান্য দিছে জনপ্রিয় তরুন সাম্ভাব্য প্রার্থীদের বেশি। আবার অনেকেই বলছে পুরান চাল কিন্তু ভাতে ভাড়ে। তাই অনেকেই অতিথ মনে রেখে আছে পুরান নেতার সাথেই। আবার দলের মধ্যে দূদির্নে অর্থ,শ্রম ও সময় দিয়ে দলকে শক্ত হাতে ধরে রেখেছেন সেই পরীক্ষিত নেতাকেও জাতীয় নির্বাচনে গুরুত্বের সাথে সমর্থন দাবী করছে অনেকেই। এতে করে বিএনপি ও আ,লীগের মাঝে সৃষ্টি হয়েছে দলীয় গ্রুপিং। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে নতুন উদিয়মান ও জনপ্রিয় সাম্ভাব্য প্রার্থীরা এগিয়ে চলছে জোরে শুরে। তাই বলে পিছিয়ে নেই বর্তমান ও সাবেক জনপ্রিয় এমপিরা। হাল ছাড়ে নি তারাও তাদের সকল সফলতা,সহযোগীতা ও দলের সমর্থন স্মরন করিয়ে দিয়ে তুলে ধরছেন দল ও দলের ভবিষত্ব্য পরিকল্পনা নেতাকর্মী ও ভোটারদের সামনে। হাল ছাড়েন নি দূদির্নে অর্থ,শ্রম ও সময় দিয়ে দলকে শক্ত হাতে ধরে রেখেছেন সেই পরীক্ষিত নেতারা। দু-দলের ঐসব প্রার্থীদের আগমন গত রোজার পূর্বে শুরু হলেও ঈদুল ফিতর সম্প্রতি ঈদুল আযহা ও ঈদ পূর্নমিলনী পরবর্তি সময়টুকু তারা হাত ছাড়া করেন নি। তাই দল বেধেঁ সবাই সবার মত করে প্রতিদিন ভোটারদের কাছে হাজির হয়ে দলে তাদের অবস্থান কতটুকু বুজিয়ে নেতাকর্মীদের মাঝে নিজের অবস্থান শক্ত করার চেষ্টা করছে। অনেকেই দলের ভিতরে কোন্দল ও বিভেদ ভুলে দলের স্বার্থে কাজ করার আহবান জানাচ্ছেন। বিএনপি ও আ,লীগ দু-দলের একাধিক প্রার্থী রয়েছে। আ,লীগের প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন-আ,লীগের সুনামগঞ্জ ১আসনের বর্তমান এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন,সাবেক এমপি সৈয়দ রফিকুল হক সুহেল,কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের কৃষক লীগের মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শামীমা শাহরিয়ার,সিলেট আ,লীগের যুব ও ক্রিয়া সম্পাদক এডঃ রঞ্জিত সরকার,কেন্দ্রীয় আ,লীগ নেতা বিণয় ভূষন তালুকদার,সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এডঃ আক্তারুজ্জামান আহমেদ সেলিম ও রফিকুল ইসলাম তালুকদার প্রমুখ। অন্য দিকে বিএনপির প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন,সাবেক এমপি নজির হোসেন,উদীয়মান জনপ্রিয় সাম্ভাব্য প্রার্থী,জেলা বিএনপির সহ সভাপতি ও তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আনিসুল হক,উদীয়মান জনপ্রিয় সাম্ভাব্য প্রাথী তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সাংগঠানিক সম্পাদক কামরুজ্জামান কামরুল,ডাক্তার রফিক চৌধুরী,যুক্তরাজ্য প্রবাশী ব্যারিষ্টার হামিদুল হক আফিন্দি লিটন ও মোতালেব খাঁন প্রমুখ। বিএনপির সাবেক এমপি নজির হোসেন বলেন,আমার কথা ও কাজের মূল্যায়ন পূর্বেও আমার নেতৃ বেগম খালেদা জিয়া ও জনগন করেছেন। নেতৃর নির্দেশেই দলের স্বার্থে এলাকায় গনসংযোগ করছি এবং সবার সাথে যোগাযোগ করছি দল কে চাঙ্গা করে দলকে সংগঠিত করতে। আমার কাজ ও যোগ্যতার কারনে এলাকায় আমার ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে আর তাকবে সব সময়। জেলা বিএনপির সহ সভাপতি ও তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আনিসুল হক বলেন,সুনামগঞ্জ ১আসনের দূ-র্দিনে কেউ ছিলনা সবাই নিজেদের রক্ষায় ব্যস্থ ছিল। আমি তখন দলকে সুসংঘটিত ও ঐক্য বদ্ধ করে রেখেছিলাম এখনও আছি আর ভবিষত্বেও থকব। দলের জন্য আমার কর্মের মূল্যায়ন কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্ধ পূর্বেও দিয়েছেন আর সামনেও দিবেন আমার বিশ্বাস। ১সুনামগঞ্জ আসনের জন্য কে পরিক্ষীর্থ নেতা সবাই অবগত আছে। এখনও দলকে সুসংঘটিত করতেই নেতৃ বেগম খালেদা জিয়ার নির্দেশেই মাঠে কাজ করছি। তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সাংগঠানিক সম্পাদক কামরুজ্জামান কামরুল বলেন,দলের স্বার্থে নেতা কর্মীদের নিয়ে প্রতিটি উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায় গিয়ে দল কে সুসংগঠিত করতে গনসংযোগ করছি। আমরা ব্যাক্তি নয় দলীয় মার্কা কেই প্রাধান্য দিব। আমি এই এলাকার সন্তান সব সময় সবার সুখে দুঃখে পাশে আছি আর সব সময় থাকব। আমিও দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী। বেগম খালেদা জিয়া ও তারুন্যের প্রতীক তারেক রহমানের আর্দশ নিয়েই দল যাকে মনোনীত করবে তাকে আমরা সমর্থন করব। সুনামগঞ্জ ১আসনের বর্তমান এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন বলেন,দলের স্বার্থে আমি আমার কাজ করে যাচ্ছি। অন্যান্য প্রার্থী যারা আছেন তারা গনসংযোগ করছে। জনপ্রিয়তা যার বেশি মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা থাকেই মনোনয়ন দিবেন আর তার পক্ষেই কাজ করব। আমি বেচেঁ থাকলে আমার কাজের মূল্যায়ন অবশ্যই পাব জনগনের কাছে আর মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর কাছেও। সিলেট আ,লীগের যুব ও ক্রিয়া সম্পাদক এডঃ রঞ্জিত সরকার বলেন,আমি এই এলাকার সন্তান এলাকায় আমার ব্যাপক জনপ্রিয়তা আছে। সবার সাথেই যোগাযোগ হচ্ছে সবাই আমাকে গ্রহন করেছে। তৃনমূলের মতামত নিলে আমি দলীয় মনোনয়ন অবশ্যই পাব। সবার দোয়া নিয়ে এবার নির্বাচন করবই আর আশা করি মাননীয় প্রধান মন্ত্রী আমাকে নিরাশ করবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মদনে ক্ষুদ্র নৃ—গোষ্ঠীর মধ্যে ভেড়া ও অন্যান্য উপকরণ বিতরণ

সুদর্শন আচার্য্য, মদন, নেত্রকোণা ঃ সমতল ভূমিতে বসবাসরত অনগ্রসর ক্ষুদ্র নৃ—গোষ্ঠীর মাঝে ...

What Is Cmmi? A Model For Optimizing Development Processes

Содержание Managed Processes Maturity Model Structure Do You Want To Implement The ...