Home | ব্রেকিং নিউজ | সুনামগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার লাঞ্চিত

সুনামগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার লাঞ্চিত

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলা স্বেছাসেবকলীগ সভাপতির হাতে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শারীরিক ভাবে লাঞ্চিত হয়েছেন। এঘটনায় এলাকায় তুলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

লাঞ্চিত হওয়া মুক্তিযোদ্ধার নাম কুমোদ চন্দ্র দাস(৭০)।

তিনি দিরাই উপজেলার সরমঙ্গল ইউনিয়নের চিতলিয়া গ্রামের বাসিন্দা ও ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার। লাঞ্চিতকারী উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শাহজাহান সরদার সাকিতপুর গ্রামের মৃত তুফলি মিয়া সরদারের ছেলে। এই ঘটনায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড উপজেলা ও পৌর কমিটির নেতৃবৃন্ধ এঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

বুধবার (০৫ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টায় দিরাই থানা রোডের জনতা হোটেলে এই ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনার খবর পেয়ে দিরাই উপজেলা মুক্তিযোদ্ধাগণ ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড নেতা কর্মীরা বিক্ষোব্ধ হয়ে উঠে। বিক্ষাব্ধ জনতা হোটেলের সামনে অবস্থান নিয়ে বিভিন্ন শ্লোগান দিতে থাকলে এক পর্যায়ে হোটেলের পাশে একটি দোকানে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন স্বেচ্ছাসেবকলীগের উপজেলা সভাপতি শাহজাহান সরদার।

এসময় শাহজাহান সরদারের মামাতো ভাই দিরাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা হাফিজুর রহমান তালুকদার ও দিরাই উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র মোশাররফ মিয়া ঘটনাস্থলে এসে সঠিক বিচারের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, প্রায় মাস খানেক পূর্বে দিরাই বাজার সংলগ্ন শয়তান খালী জলমহাল নিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে স্বেচ্ছাসেবকলীগের উপজেলা সভাপতি শাহজাহান সরদার বিরোধ দেখা দেয়। চানপুর মৎসজীবিদের পক্ষে একটি মানববন্ধনে মুক্তিযোদ্ধাদের কটাক্ষ করে বক্তব্য রাখেন শাহজাহান সরদার। এর প্রতিবাদে দিরাই উপজেলা মুক্তিযোদ্ধাগণ ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড নেতা কর্মীরা বিক্ষোব্ধ হয়ে পাল্টা মানববন্ধন করে শাহজাহান সরদারের বিচার দাবী করে বক্তব্য রাখেন।

লাঞ্চনার শিকার মুক্তিযোদ্ধা কুমোদ চন্দ্র দাস বিডিটুডেকে বলেন,পূর্বের একটি মানববন্ধনে শাহজাহান সরদারের বিচার দাবী করে আমি বক্তব্য দিয়ে ছিলাম। এর জের ধরে সে আমার উপর প্রতিশোধ নিতে সকালে জনতা হোটেলে দিরাই থানার এসআই ইসমাঈল আলীসহ নাস্তা করা অবস্থায় আমাকে দেখা মাত্রই ভূয়া মুক্তিযোদ্ধা আখ্যায়িত করে দেখে নেয়ার হুমকি দিয়ে বলে,কিভাবে তুই মুক্তিযোদ্ধা হলে নির্বাচনের পর আমি দেখবো। আমি এর প্রতিবাদ করলে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে একপর্যায়ে সে আমাকে কিল ঘুষি মারতে থাকে। এ সময় দিরাই থানার এস আই ইসমাঈল আলীসহ কয়েকজন তাকে বারণ করার চেষ্টা করেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড নেতারাগন বিডিটুডেকে বলেন,দেশের জন্য জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করেছে,শেষ বয়সে এসে দুষ্কৃতিকারীদের হাতে লাঞ্চিত হওয়ার মতো ঘটনায় আমরা মর্মাহত। কিছুদিন আগে এই শাহজাহান সরদার আমাদের সকল মুক্তিযোদ্ধাকে কুচক্রি বলে প্রকাশ্যে বক্তব্য দিয়েছিল। এর প্রতিবাদে সকল মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড নেতা কর্মীরা বিচার দাবী করে ছিলাম।

উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড সভাপতি শাহজাহান মিয়া বিডিটুডেকে বলেন,ইতোপূর্বে স্বেচ্ছাসেবকলীগের উপজেলা সভাপতি শাহজাহান সরদার জাতির শ্রেষ্ট সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেছে। প্রতিবাদে আমরা বিচার দাবীতে মানববন্ধন করেছি,সে সময় যদি সঠিক বিচার হতো তাহলে আজ আমাদের পিতার বয়সের বীর মুক্তিযোদ্ধাকে শাহজাহান সরদারের হাতে মার খেতে হতনা। তার শাস্তি দাবিতে আমরা বিভিন্ন জায়গায় বিচার প্রার্থী হয়ে বিচার পাইনি। ফলে আজকে বিএনপি থেকে আওয়ামীলীগে এসে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি হয়ে শাহজাহান সরদারের বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।

এ ব্যাপারে দিরাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তফা বিডিটুডেকে বলেন, একজন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শারীরিক ভাবে লাঞ্চিত হওয়ার ঘটনা শুনেছি,লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সারাদেশে বিজিবি মোতায়েন

স্টাফ রির্পোটার : আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে উপলক্ষ করে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার্থে ঢাকাসহ সারাদেশে ১ ...

২১টি ‘বিশেষ’অঙ্গীকার নিয়ে ইশতেহার ঘোষণা আওয়ামী লীগের

স্টাফ রির্পোটার :  একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ২১টি ‘বিশেষ’অঙ্গীকার নিয়ে ...