ব্রেকিং নিউজ
Home | আন্তর্জাতিক | সিসিটিভি কেলেংকারির পর মানবসম্পদ মন্ত্রনালয় হাতছাড়া হতে যাচ্ছে স্মৃতি ইরানির!

সিসিটিভি কেলেংকারির পর মানবসম্পদ মন্ত্রনালয় হাতছাড়া হতে যাচ্ছে স্মৃতি ইরানির!

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : আরও দুঃসময় কি অপেক্ষা করছে স্মৃতি ইরানির জন্য? দলের জাতীয় কর্মসমিতি থেকে বাদ পড়া এবং সিসিটিভি বিতর্কের পর এবার বিশেষ সূত্রে খবর, ভারতের মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রণালয়টাও হাতছাড়া হতে পারে তার৷ তিনি অভিনেত্রী, এই যুক্তি দেখিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার পরবর্তী রদবদলে স্মৃতিকে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় দেওয়ার সম্ভাবনা যথেষ্ট, যে মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসাবে অরুণ জেটলির হাতে রয়েছে৷

২০ এপ্রিল সংসদের অধিবেশনের আগেই মন্ত্রিসভায় রদবদলের সম্ভাবনা আছে৷ মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক পাওয়ার পর থেকেই অবশ্য স্মৃতিকে নিয়ে বিতর্ক চলছে৷ কংগ্রেস প্রশ্ন তুলেছিল, হায়ার সেকেন্ডারি পাশ স্মৃতিকে কী করে মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়? এর পর হলফনামা বিতর্ক শুরু হয়৷ দু’টি নির্বাচনে শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে দু’রকমের হলফনামা দিয়েছিলেন তিনি৷ মন্ত্রী হিসেবেও দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, ইউজিসি, আইআইটি-র ডিরেক্টরদের সঙ্গে টানা সংঘাতে জড়িয়েছেন স্মৃতি৷ দলের মধ্যেও মীনাক্ষী লেখির মতো কিছু সাংসদ তার বিরোধিতা করেছেন৷

কিন্তু এত বিতর্কের মধ্যেও স্মৃতির মন্ত্রণালয় বদল হয়নি৷ তবে প্রথম ধাক্কাটা তিনি খেয়েছেন জাতীয় কর্মসমিতি থেকে বাদ পড়ায়৷ মন্ত্রণালয় বদলানো হলে ফের ধাক্কা খাবেন স্মৃতি৷ শেষ পর্যন্ত যদি প্রধানমন্ত্রী স্মৃতিকে অন্য মন্ত্রণালয়ে সরিয়ে দেন, তবে মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রণালয়  কে পেতে পারেন? বিজেপির অন্দরে তিনটি নাম শোনা যাচ্ছে-রবিশঙ্কর প্রসাদ, হর্ষবর্ধন এবং মনোজ সিনহা৷ হর্ষবর্ধন এখন বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের সুনজরে নেই৷ কিন্তু সঙ্ঘ চাইছে, তাকে গুরুত্ব দেওয়া হোক৷ দলের মধ্যে রবিশঙ্কর প্রসাদ মন্ত্রী ও প্রশাসক হিসেবে যথেষ্ট দক্ষ বলে পরিচিত৷ বর্তমান রেল প্রতিমন্ত্রী মনোজ সিনহাও সঙ্ঘ নেতাদের পছন্দের মন্ত্রী৷ তবে শুধু স্মৃতিই নন, মন্ত্রণালয় পরিবর্তন হতে পারে গ্রামোন্নয়নমন্ত্রী বীরেন্দ্র সিংয়েরও৷ ভি কে সিং-কে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী থেকে সরিয়ে অন্য মন্ত্রণালয় দেওয়া হতে পারে৷ আর মন্ত্রিসভায় সামিল হতে পারেন পিডিপি নেত্রী মেহবুবা মুফতি ও শিবসেনার অনিল দেশাই৷

কেন এই মন্ত্রণালয়ের বদলের সম্ভাবনা? গ্রামোন্নয়নমন্ত্রী বীরেন্দ্র সিং জমি অধিগ্রহণ বিল নিয়ে বিতর্কে জড়ান৷ রটনা হয়েছিল, হরিয়ানার এই কৃষকনেতা নতুন আইনের পক্ষপাতী নন৷ সে জন্য তিনি এই আইন পাশ করার পক্ষে প্রচারের ক্ষেত্রে খুব একটা উদ্যোগী হননি৷ বিজেপি সূত্রে এখন বলা হচ্ছে, এই গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের তিনি ঠিকমতো সামলাতে পারছেন না৷ সে জন্যই তাকে কম গুরুত্বের মন্ত্রণালয় দেওয়া হতে পারে৷

প্রাক্তন সেনাপ্রধান ভি কে সিং-ও মন্ত্রী হওয়ার পর একাধিক বিতর্কে জড়িয়েছেন৷ বর্তমান সেনাপ্রধানের বিরুদ্ধে টুইটারে অভিযোগ করে সরকারকে অস্বস্তিতে ফেলেন৷ পাকিস্তান দিবসের অনুষ্ঠানে গিয়ে এবং পরের দিন টুইট করে ফের বিতর্কে জড়ান৷ সর্বশেষ সংযোজন সংবাদমাধ্যমকে কটাক্ষ করে টুইট৷ সেটাও তার দলকে অস্বস্তিতে ফেলেছে৷ কাজেই তাকে অন্য মন্ত্রণালয়ে সরানো হতে পারে৷ জম্মু ও কাশ্মীরে পিডিপি-র সঙ্গে বিজেপির জোট সরকার হওয়ার সময়ই ঠিক ছিল যে, কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় মেহবুবা মুফতি আসবেন৷ শিবসেনার অনিল দেশাইয়েরও গতবারই মন্ত্রী হওয়ার কথা ছিল৷ শপথ নেওয়ার জন্য তিনি দিল্লি পৌঁছেও যান৷ কিন্ত্ত সে সময় শিবসেনা -বিজেপির দ্বন্দ্ব চলছিল৷ তাই উদ্ধব তাকে শপথ নিতে দেননি৷ এবার অনিল সুযোগ পেতে পারেন৷

পরিস্থিতি যা, ভারতের মানুষের নজর কিন্তু থাকবে স্মৃতির উপরেই৷- ওয়েবসাইট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ইমরান খান তরুণদের নেতা হতে পারেন না : জারদারি

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক :  ক্রিকেটার থেকে রাজনীতিক বনে যাওয়া পাকিস্তান তেহরিক-ই- ইনসাফের চেয়ারম্যান ...

তিস্তার বদলে আবারও তোর্সার কথাই বললেন মমতা

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক :  তিস্তার বদলে বাংলাদেশকে তোর্সা ও মানসাই নদীর পানি দেয়ার ...