ব্রেকিং নিউজ
Home | আন্তর্জাতিক | সিপিএমের মত তৃণমূলেও হোল টাইমার

সিপিএমের মত তৃণমূলেও হোল টাইমার

কলকাতা প্রতিনিধি : তৃণমূল কংগ্রেস, সিপিএম- বিজেপির ধাঁচে এবার হোলটাইমার নিয়োগের পথে হাঁটতে চলেছে। আগামী সোমবার নজরুল মঞ্চে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাকা দলের সাংসদ-বিধায়ক-জনপ্রতিনিধিদের জরুরি বৈঠকে এমনই খবর তৃণমূলে। লোকসভা নির্বাচনের পর তৃণমূলের কাছে বদলেছে পশ্চিমবঙ্গের ভোট মানচিত্র। কয়েক বছর আগেও প্রায় কিছুই সংগঠন না থাকা বিজেপি ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস ফেলছে, আর তাতেই প্রমাদ গুনেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২০২১-র বিধানসভা নির্বাচনের ভোট বৈতরণী পার করতে তাই ইলেকশন স্ট্রাটিজিস্ট প্রশান্ত কিশোরকে নিয়োগ করেছেন। এরপরই বদলে গেছে তৃণমূলের হাবভাব। এমনকী আচরণ বদলের ছাপ পড়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ওপরেও। তাই বিজেপি মোকাবিলায় পাল্টা সংগঠন তৈরি করতে বুথে বুথে হোল টাইমার নিয়োগ করতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস।

পশ্চিমবঙ্গের অনেকের অভিজ্ঞতা সিপিএম জামানায় পার্টি কেন্দ্রিক এলাকার নেতারা এবং প্রায় সর্বত্র হোল টাইমাররাই হয়ে উঠেছিলেন দণ্ডমুণ্ডের কর্তা। পারিবারিক বিবাদ থেকে প্রশাসনের কাছে পৌঁছানোর আর্জি, সবই জানাতে হতো লাল ব্রিগেডের তৃণমূল স্তরের নেতা-হোল টাইমারদের কাছে। সিপিএম তথা বামফ্রন্ট সংগঠিত এই পদ্ধতিতে ৩৪ বছর ক্ষমতার রাশ ধরে রেখেছিল। রাজ্যে ভোটের খাতা খুলতে বিজেপিও সেই পথে হেঁটেছে। বুথে বুথে সর্বক্ষণের কর্মী নিয়োগ করেছে বিজেপিও। হিন্দুত্ববাদী সংগঠন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ বা আর এস এসের সংগঠনকে ভিত্তি করে ফলও মিলেছে হাতে নাতে। বিজেপির লাগাতার জনসংযোগ কর্মসূচির জেরে পিছিয়ে পড়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।

এই অবস্থায় সোমবার নজরুল মঞ্চে সভা ডেকেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাতে সমস্ত জেলা সভাপতি, বিধায়ক ও ব্লক সভাপতিদের হাজির থাকতে নির্দেশ দিয়েছেন। এর আগে ২১ জুলাইয়ের মঞ্চে বৈঠকের কথা ঘোষণা করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে। খবর, ওই অনুষ্ঠানেই ঘোষণা হতে পারে হোল টাইমার নিয়োগের সিদ্ধান্ত। পশ্চিমবঙ্গে রয়েছে প্রায় ৭৭হাজার নির্বাচনী বুথ। খবর, প্রতি বুথে ৪ জন করে সর্বক্ষণের কর্মী নিয়োগ করতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। তার মানে রাজ্যজুড়ে ৩ লক্ষের বেশি দলের সর্বক্ষণের কর্মী নিয়োগ করা হবে।

তৃণমূল কংগ্রেসের খবর, মাসের পয়লা তারিখে বেতনভুক এই কর্মীরা জনসংযোগ রক্ষার পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়ায় দলীয় কাজকর্ম প্রচারের দায়িত্ব থাকবেন। প্রতি বুথে যে ৪ জন সর্বক্ষণের কর্মী থাকবেন তাদের প্রত্যেকের থাকবে আলাদা আলাদা দায়িত্ব। নিজেদের দায়িত্ব পালন করে তার ছবি ও ভিডিও হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে পাঠাতে হবে নির্দিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে। নির্দিষ্ট সময় অন্তর এইসব হোল টাইমারদের কাজের সমীক্ষা করবে দল, তৃণমূল কংগ্রেস। এই পরিকল্পনা প্রশান্ত কিশোরের মস্তিষ্ক প্রসূত। তৃণমূল কংগ্রেসের খবর, সৃষ্টিলগ্ন থেকেই স্রেফ বামফ্রন্ট বিরোধিতার জায়গা থেকে গণউন্মাদনায় ভরসা করে বেড়েছে দল। সাংগঠনিক কাঠামো তৈরিতে কখনো নজর দেননি সর্বময় নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার এবং দলের প্রতি উন্মাদনা কিছুটা থিতু হতেই এখন তার ফল টের পাচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস। এই পরিস্থিতিতে সংগঠন মজবুত করতে সি পি এমের এতদিনের বা পশ্চিমবঙ্গে এখনকার বি জে পি -র পথে এগোতে চাইছে তৃণমূল কংগ্রেস। সেজন্যেই প্রতি বুথে ৪ জন করে সর্বক্ষণের কর্মী নিয়োগ করতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। তার মানে রাজ্যজুড়ে ৩ লক্ষের বেশি দলের সর্বক্ষণের কর্মী নিয়োগ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মদনে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য তৈরি ও লাইসেন্স না থাকায় ভ্রাম্যমান আদালতে ৬ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

সুদর্শন আচার্য্য, মদন (নেত্রকোনা) ঃ নেত্রকোনার মদন পৌর সদরের ৬টি দোকানে অভিযান ...

সিলেটের বন্যায় কবলিতদের পাশে “পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাব”

আনোয়ার এইচ খান ফাহিম ইউরোপীয় ব্যুরো প্রধান, পর্তুগালঃ বাংলাদেশের সিলেটে স্মরণকালের সবচেয়ে ...