ব্রেকিং নিউজ
Home | আন্তর্জাতিক | সহিংসতা ছাড়াই চট্টগ্রামে হরতাল চলছে

সহিংসতা ছাড়াই চট্টগ্রামে হরতাল চলছে

মিজান উল্লা সমরকান্দী,চট্টগ্রাম প্রতিনিধি, ১৭ মার্চ, বিডিটুডে ২৪ডটকম : হরতালের আগের রাতে বেশ কয়েক স্থানে ককটেল বিষ্ফোরণ ঘটলেও কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই বন্দরনগরী চট্টগ্রামে চলছে টানা ৪৮ ঘণ্টার হরতাল। গণপরিবহন চলাচল না করলেও হালকা যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। যে কোন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি ঠেকাতে অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

হরতালের সমর্থনে সকালে ৮টার দিকে নাসিমন ভবনস্থ বিএনপির কার্যালয়ে আসেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মীর নাছির উদ্দিন। এরপর সেখানে মিছিল সহকারে যোগ দেন মহানগর বিএনপির সভাপতি ও বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। সেখানে তাদের হরতালের সমর্থনে সমাবেশ এবং মিছিল করার কথা রয়েছে।

হরতালে নগরীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, যানবাহন তেমন একটা বের হয়নি। বাস ট্রাকের পাশাপাশি প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাসের মতো ব্যক্তিগত গাড়ি তেমন একটা চোখে পড়েনি। অন্য হরতালে স্বল্প সংখ্যক অটোরিকসা চলাচল করলেও এ হরতালে তেমন চোখে পড়ছে না। তবে রিকসা চলাচল করছে। ট্রেন ও বিমান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। বন্দরের বিভিন্ন জেটি এবং বহির্নোঙ্গরে জাহাজ থেকে পণ্য উঠানামাও স্বাভাবিক রয়েছে।

যানবাহন না থাকায় বিপাকে পড়েছেন অফিসমুখী মানুষ। বিশেষত পোশাক শ্রমিকেরা গাড়ি না পেয়ে পায়ে হেটে নতুবা দুই তিন গুণ টাকা দিয়ে রিকসা করে গন্তব্যস্থলে যেতে বাধ্য হচ্ছেন।

হরতালের শুরুতে দোকানপাট বন্ধ থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে খুলতে শুরু করেছে। ব্যাংক ও প্রাইভেট অফিস খোলা থাকলেও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চলছে অঘোষিত ছুটি। দেশের অন্যতম পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জে ক্রেতা-বিক্রেতা উপস্থিতি একেবারে কম। অল্প কিছু দোকানপাট খুললেও লেনদেন নেই বললেই চলে।

জমজম ট্রেডিংয়ের ম্যানেজার হানিফ উদ্দীন বলেন, হরতালের কারণে ক্রেতা-বিক্রেতার উপস্থিতি কম। বিভিন্ন জেলা থেকে মালামাল আসতে পারছে না। তাই অলস সময় কাটাতে হচ্ছে।

হরতালকে কেন্দ্র করে নগরে ব্যাপক নিরাপত্তা নেয়া হয়েছে। পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার মোস্তাক আহমেদ  জানান, আতঙ্ক সৃষ্টির জন্য গতকাল ককটেলের বিষ্ফোরণ ঘটানো হয়েছিল। তবে আজ এখনো পর্যন্ত অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। সার্বিক পরিস্থিতি আমাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। নগরীর অর্ধশতাধিক পয়েন্টে দেড় হাজার অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

হরতালে নাশকতা মোকাবেলায় মাঠে থাকার ঘোষণা দিয়েছে মহানগর আওয়ামী লীগ। শনিবার মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দীন চৌধুরীর চশমা হিলস্থ বাসভবনে এক জরুরী সভায় নগরীর মোট ২০টি পয়েন্টে নেতাকর্মীদের অবস্থান করার কথা জানানো হয়। যে ২০টি স্পটে নেতা-কর্মীরা অবস্থান গ্রহণ করবেন সেগুলো হল দারুল ফজল মার্কেট, ওয়াসার মোড়, চকবাজার, মুরাদপুর, আমিন জুট মিল গেইট, অক্সিজেন মোড়, বহদ্দারহাট, কাপ্তাই রাস্তার মাথা, চেরাগীর মোড়, কালামিয়া বাজার, দেওয়ানহাট মোড়, বাদামতলী মোড়, বারেক বিল্ডিং মোড়, কাঠগড়, ইপিজেড, বড়পোল, অলঙ্কার মোড়, বন্দরটিলা, রেলক্রসিং, কর্নেলহাট এবং ফকিরহাট।

নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে ১৮দলীয় জোট সারা দেশে টানা ৪৮ ঘণ্টার হরতালের ডাক দেয়

x

Check Also

যুক্তরাষ্ট্রে সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রির্পোটার : জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৪তম অধিবেশনে যোগদানের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে আটদিনের ...

হংকংয়ে চীনের বিরুদ্ধে ব্যাপক বিক্ষোভ

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : কমিউনিস্ট শাসনের ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষে গণপ্রজাতন্ত্রী চীন বেইজিংয়ে ...