Home | জাতীয় | ষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে সূচনা ঘটছে শারদীয় দূর্গোৎসবের

ষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে সূচনা ঘটছে শারদীয় দূর্গোৎসবের

Durgaস্টাফ রিপোর্টার :  শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু হচ্ছে বৃহস্পতিবার থেকে। ষষ্ঠীপূজার মধ্য দিয়ে সূচনা ঘটছে বাঙালির শারদোত্সরবের। এর আগে মহালয়ার পূন্যপ্রভাতে দেবীপক্ষে দুর্গাকে আবাহন করা হয়েছে দেবীলোক থেকে মর্ত্যলোকে। মহাষষ্ঠীর দিনে হবে দেবীর বোধন।

এদিকে মণ্ডপে মণ্ডপে এখন চলছে শিল্পীর তুলির শেষ আঁচড়। দেবী দুর্গার প্রতিমায় চোখ আঁকা (বোধন) হবে এ ষষ্ঠীপূজার মধ্য দিয়ে। কারণ ষষ্ঠীর পূর্ব পর্যন্ত দেবী দুর্গার চোখ না আঁকার একটা বিধান প্রচলিত আছে বহুকাল ধরে।

পুরাণ মতে, রাজা সুরথ প্রথম দেবী দুর্গার আরাধনা শুরু করেন। বসন্তে তিনি পূজার আয়োজন করায় দেবীর এ পূজাকে বাসন্তী পূজা বলা হয়। কিন্তু রাবণের হাত থেকে সীতাকে উদ্ধার করতে লঙ্কা যাত্রার আগে শ্রী রামচন্দ্র দেবীর পূজার আয়োজন করেছিলেন শরত্কারলের অমাবস্যা তিথিতে, যা শারদীয় দুর্গোত্সঙব নামে পরিচিত। দেবীর শরত্কা লের পূজাকে এজন্যই হিন্দুমতে অকাল বোধনও বলা হয়। বাসন্তী দেবীকে শরতে অকালে বোধন করায় এ পূজার এ নামকরণ হয়।  মহারাজ রামচন্দ্রের অনুকরণে তাই উপমহাদেশের জমিদারগণ শরৎকালে ধূমধামের সাথে দুর্গাপূজা শুরু করলে শারদীয় দুর্গোৎসবই হয়ে ওঠে সনাতন হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের প্রধান উৎসব।

সনাতন বিশ্বাস ও পঞ্জিকামতে, জগতের মঙ্গল কামনায় দেবী দুর্গা এবার এবার দেবী দোলায় (পালকি) চড়ে মর্ত্যলোকে (পৃথিবী) আসবেন। যার ফল হচ্ছে মড়ক। আর বিদায় নেবেন গজে (হাতি) চড়ে। যার ফল হিসেবে বসুন্ধরা হবে সুজলা, সুফলা ও শস্যপূর্ণা।

শারদীয় দুর্গাপূজার প্রথম দিনে ষষ্ঠীতে দশভুজা দেবী দুর্গার বোধন, আমন্ত্রণ ও অধিবাস। শ্রীশ্রী লোকনাথ পঞ্জিকা অনুসারে দেবীর ষষ্ঠ্যাদি কল্পারম্ভ শুরু হবে বৃহস্পতিবার সকাল নয়টা ৫৭ মিনিট ১৮ সেকেন্ডর মধ্যে। সায়ংকালে হবে দেবীর বোধন। সায়ংকালে বোধনের মাধ্যমে দক্ষিণায়নের নিদ্রিত দেবী দুর্গার নিদ্রা ভাঙার জন্য বন্দনা পূজা করা হবে। সেই সাথে দেবীর আমন্ত্রণ ও অধিবাসের মধ্য দিয়ে শুরু হবে মূল দুর্গোত্সদব। শুক্রবার মহাসপ্তমী, শনিবার মহাঅষ্টমী ও কুমারী পূজা, রোববার মহানবমী এবং সোমবার বিজয়া দশমী। শেষ দিনে বিজয়া দশমীতে শোভাযাত্রার মাধ্যমে দেওয়া হবে প্রতিমা বিসর্জন।

এদিকে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় এই ধর্মীয় উত্সতবকে ঘিরে সারা দেশে এখন উত্স।বের আমেজ বইছে। তবে সাম্প্রতিক সময়ে দেশের বিভিন্ন মন্দির-পূজামণ্ডপে হামলা ও প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি। শারদীয় দুর্গোত্স-বের প্রাক্কালে বুধবার ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির মেলাঙ্গনে সাংবাদিক সম্মেলন করে এই উদ্বেগের কথা জানান কমিটি সভাপতি বাসুদেব ধর ও সাধারণ সম্পাদক নির্মল কুমার চ্যাটার্জি। তারা এসব ঘটনায় দ্রুত পদক্ষেপ নিতে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ পূজা উদ্‌যাপন পরিষদের সভাপতি কানুতোষ মজুমদার বলেন, “এবার সারা দেশে প্রায় সাড়ে ২৮ হাজার পূজামণ্ডপে দুর্গোত্স‌ব অনুষ্ঠিত হচ্ছে। গতবারের তুলনায় এবার ৮শত মণ্ডপ বেড়েছে। ঢাকা মহানগরীতে এবারের পূজামণ্ডপের সংখ্যা ২১৪টি। যা গত বছরের তুলনায় ১২টি বেশি। সার্বিক প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে।”

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বাইরে নিজস্ব স্বেচ্ছাসেবক থাকবে বলে জানান তিনি।

মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির সভাপতি বাসুদেব ধর বলেন, “দুর্গোত্সলব চলাকালে পূজার প্রতিদিনই অঞ্জলি, প্রসাদ বিতরণ ও ভোগ-আরতির আয়োজন করা হবে। এছাড়া দেশজুড়ে দুর্গোত্সাব চলাকালে মণ্ডপে মণ্ডপে আলোকসজ্জা, আরতি প্রতিযোগিতা, স্বেচ্ছায় রক্তদান, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, আলোচনা সভা, নাটক, নৃত্যনাট্যসহ বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করা হবে। ইতোমধ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। তবে কিছু কিছু এলাকায় মণ্ডপে হামলা ও প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটছে। দ্রুত এসব বন্ধ করতে হবে।”

পুলিশের মহাপরিদর্শক হাসান মাহমুদ খন্দকার জানান, রাজধানীসহ সারাদেশের প্রতিটি পূজামণ্ডপের নিরাপত্তা রক্ষায় পুলিশ, আনসার, র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (ব়্যাব) ও বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা দায়িত্ব পালন শুরু করেছেন। কোথাও কোনো অভিযোগ আসামাত্রই তাত্ক্ষয়ণিক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

তিনি আরো জানান, পুলিশ এবং ব়্যাবের পাশাপাশি প্রায় প্রতিটি মণ্ডপে স্বেচ্ছাসেবক বাহিনী দায়িত্ব পালন করবেন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও পূজা কমিটির সদস্যদের মধ্যে সার্বক্ষণিক সমন্বয় রেখে কাজ করা হচ্ছে। এছাড়া ঢাকেশ্বরী মন্দির মেলাঙ্গনে মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির উদ্যোগে কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদের সহায়তা করছে।

 

রাজধানীতে কেন্দ্রীয় পূজা উত্স ব বলে পরিচিত ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির পূজামণ্ডপে বৃহস্পতিবার পাঁচদিনের শারদীয় দুর্গোত্স বের উদ্বোধন করবেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। এছাড়া পুলিশের মহাপরিদর্শক হাসান মাহমুদ খন্দকার ও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার বেনজীর আহমেদসহ বিশিষ্টজনরা উপস্থিত থাকবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

বাব আল-মান্দেব প্রণালিতে ৬১তম নৌবহর পাঠিয়েছে ইরান

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক :  ইরানি বাণিজ্যিক জাহাজের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য বাব আল-মান্দেব ...

বৃহস্পতিবার কাদেরের বাইপাস সার্জারি করার বিষয়ে জানাবেন চিকিৎসকরা

স্টাফ রির্পোটার : শারীরিক অবস্থার আরও উন্নতি হওয়ায় এখন বেশ ভালো আছেন ...