Home | শিক্ষা | শিক্ষকদের স্বতন্ত্র বেতন কাঠামোর দাবী ঢাবি শিক্ষক সমিতির

শিক্ষকদের স্বতন্ত্র বেতন কাঠামোর দাবী ঢাবি শিক্ষক সমিতির

ঢাবি প্রতিনিধি : শিক্ষকদের নায্য অধিকার ক্ষুন্ন করে সচিব কমিটি নিজেদের সুবিধাদি নিশ্চিত করে বৈষম্যের ব্যাবস্থা করেছেন এমন দাবী করে প্রস্তাবিত জাতীয় বেতন কাঠামো প্রত্যাখান করে এর পুন:নির্ধারনের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাব ভবনে সংবাদ সম্মেলনটির আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দীন আহমদ, সাধারন সম্পাদক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল, কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক আখতারুজ্জামান, টেলিভিশন, ফিল্ম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান এ জে এম শফিউল আলম ভূঁইয়া এবং সাদা দলের শিক্ষক নেতা ড.আখতার হোসাইন খান প্রমুখ।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মাকসুদ কামাল বলেন, সপ্তম জাতীয় বেতন কাঠামোতে শিক্ষকদের যে অবস্থান ছিল বর্তমান কাঠামোতে তা দুইধাপ নামিয়ে আনা হয়েছে। এটি শুধু ন্যায়সঙ্গত অধিকারই ক্ষুন্ন করেনি, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জন্যে তা অত্যন্ত অবমাননাকর ও।
তিনি বলেন, সরকারের বিভিন্ন সংস্থা ও আমলারা নানান কৌশলে নিজেদের পদকে স্বাভাবিক অবস্থা থেকে উচ্চতর অবস্থানে উন্নীত করেছেন, বিভিন্ন ধাপ সৃষ্টি করে নতুন সুবিধার দিগন্ত উন্মোচন করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সিলেকশন গ্রেডের অধ্যাপকগণ সচিবদের সমতুল্য বেতন পান। কিন্তু প্রস্তাবিত বেতন কাঠামোতে সিলেকশন গ্রেড বাদ দেয়ার মতো সুপারিশ করা হয়েছে। আমরা মনে করি, সিলেকশন গ্রেড অধ্যাপকদের পদমর্যাদা হবে সিনিয়র সচিবদের সমতুল্য। শিক্ষকদের স্বতন্ত্র বেতন স্কেলের দাবী জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরেই স্বতন্ত্র বেতন স্কেলের দাবী জানিয়ে আসছি। বর্তমান সরকারের একটি নির্বাচনী অঙ্গীকারও ছিল তা এবং শিক্ষামন্ত্রী ও তার বক্তব্যে বারবার এ বিষয়টি তুলে এনেছেন। কিন্তু এ দাবীর আজও বাস্তবায়ন হয়নি। সচিবদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে তিনি বলেন, সচিব কমিটি নতুন পদ সৃষ্টি করে নিজেদের জন্যে অযৌক্তিক সুযোগ-সুবিধার প্রস্তাব করে এই বেতন কাঠামোর সর্বজন গ্রহণযোগ্যতা বিনষ্ট করেছেন। শিক্ষকদের স্বার্থ ক্ষুন্নকারী সচিব কমিটির সুপারিশকৃত বেতন কাঠামো আমাদের কাছে গ্রহণযোগ্য নয়।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি কিছু প্রস্তাবনা তুলে ধরেন। এর মধ্যে রয়েছে, প্রস্তাবিত বেতন কাঠামোর বৈষম্য দূরীকরণপূর্বক সিলেকশন গ্রেড অধ্যাপকদের বেতন-ভাতা সিনিয়র সচিবদের সমতুল্য করা হোক, অধ্যাপকদের বেতন ভাতা পদায়িত সচিবদের সমতুল্য করা হোক, সহযোগী অধ্যাপক, সহকারী অধ্যাপক ও প্রভাষকদের বেতন কাঠামো ক্রমানুসারে নির্ধারন করা হোক, ভারতও পাকিস্তানের আলোকে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের গবেষণা ভাতা, বই ভাতাসহ অন্যান্য সুবিধা নিশ্চিত করা হোক, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে সরকারি কর্মকর্তাদের অনুরূপ গাড়ি ও অন্যান্য সুবিধা শিক্ষকদের ক্ষেত্রে ও নিশ্চিত করা হোক, রাষ্ট্রীয় ওয়ারেন্ট অব প্রেসিডেন্স-এ আমাদের প্রত্যাশিত বেতন কাঠামো অনুযায়ী পদমর্যাদাগত অবস্থান নিশ্চিত করা হোক, ঢাবি উপাচার্যের পদমর্যাদা মুখ্য সচিব-মন্ত্রীপরিষধ সচিবের সমতুল্য করা হোক, অবিলম্বে সরকারের অঙ্গীকার অনুযায়ী শিক্ষকদের জন্যে স্বতন্ত্র বেতন স্কেল প্রবর্তন করা হোক, এবং বাঙালির অহংকারের প্রতীক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে বিশেষ মর্যাদা প্রদান করা হোক।
সংবাদ সম্মেলনে উপরোক্ত দাবীসমূহ আদায়ের লক্ষ্যে কর্মসূচীর ঘোষণা দেয়া হয়। কর্মসূচীর আলোকে আগামী ২৪ মে রোববার বেলা এগারোটায় অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে বিক্ষুব্দ শিক্ষকসমাজের প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হবে। এছাড়াও দাবীসমূহের বাস্তবায়ন না হলে আগামীতে কঠোর কর্মসূচীর হুঁশিয়ারী দেন শিক্ষক নেতারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

শিক্ষক নিবন্ধনে সার্টিফিকেটধারীদের প্যানেলভিত্তিক নিয়োগ দাবি

স্টাফ রিপোর্টার :  নিয়োগ বঞ্চিত  ১ থেকে ১২ তম শিক্ষক নিবন্ধিত সার্টিফিকেটধারীদের  ...

নীতিমালার মধ্যে আসছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়োগ প্রক্রিয়া

স্টাফ রিপোর্টার :  বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগে বিধিমালা প্রণয়নের উদ্যোগ নেয়া ...