Home | শিক্ষা | শিক্ষকদের কর্মবিরতিতে জাবি অচল ভিসিপন্থী শিক্ষকের প্রতিবাদী ক্লাস

শিক্ষকদের কর্মবিরতিতে জাবি অচল ভিসিপন্থী শিক্ষকের প্রতিবাদী ক্লাস

P1200117মাহতাব উদ্দীন রবিন, জাবি প্রতিনিধি  : জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক আনোয়ার হোসেনের পদত্যাগ দাবিতে সাধারন শিক্ষক ফোরাম’র ডাকা কর্মবিরতিতে অচল হয়ে পড়েছে ক্যাম্পাস। তবে কর্মবিরতির বিরোধীতা করে প্রতিবাদী ক্লাস নিয়েছেন উপাচার্যপন্থী ও প্রগতিশীল শিক্ষকরা। শনিবার কর্মবিরতি পালন করতে সকাল থেকে কোন বিভাগে ক্লাস নেয়নি আন্দোলনকারী শিক্ষকরা।
সরেজমিনে দেখা গেছে, নাটক ও নাট্যতত্ত¡, ফামের্সী, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, দর্শন, লোক প্রশাসন, প্রাণ রসায়ন ও অনুপ্রানসহ অধিকাংশ বিভাগগুলোতে ক্লাস-পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বামপন্থী শিক্ষ, কদের সংগঠন শিক্ষক মঞ্চ’র মুখপাত্র রাইহান রাইন বলেন, কিছু শিক্ষকের যুক্তিহীন অনৈতিক কর্মসুচির বিপরীতে এবং শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে শহীদ মিনারে প্রতিবাদী ক্লাস নিয়েছি। তবে ক্লাস রুম খোলা থাকলেও শহীদ মিনারে কেন ক্লাস নেয়ার প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটা অন্যায়ের প্রতিবাদে প্রতিকী ক্লাস। ‘সাধারণ শিক্ষক ফোরাম’র ডাকা এই কর্মবিরতি চলবে ৩০সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক হানিফ আলী বলেন, এই সময়ের মধ্যে ভিসি পদত্যাগ না করলে কঠোর কর্মসুচির মাধ্যমে তাকে পদত্যাগে বাধ্য করা হবে। তিনি আরো বলেন, শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের প্রেক্ষিতে তদন্তের জন্য আন্দোলন কর্মসুচি স্থগিত করেছিলাম, তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কে আমরা অন্ধকারে।
এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার সুষ্ঠ পরিবেশ দাবিতে আন্দোলনের প্রতিবাদ জানিয়েছেন সচেতন শিক্ষার্থীরা। এছাড়াও সচেতন শিক্ষার্থী নামে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে ব্যানার ব্যানার লাগিয়েছে ছাত্রলীগ। ব্যানারে বিভিন্ন প্রতিবাদী লেখার মাধ্যমে ক্লাস পরীক্ষা স্বাভাবিক করার দাবি জানানো হয়েছে।
ভিসি অধ্যাপক আনোয়ার হোসেনের পদত্যাগ দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছিল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। কিন্তু হাইকোর্টের নির্দেশনার কারনে তারা আন্দোলন প্রত্যাহার করলেও কৌশল বদলে ওই শিক্ষকরাই নতুন করে ‘সাধারণ শিক্ষক ফোরাম’ নামের ব্যানারে ভিসির পদত্যাগের দাবিতে কর্মসুচি দেয়। পদত্যাগ দাবিতে কর্মবিরতি, ক্লাস বর্জন, প্রশাসনিক ভবন অবরোধসহ বিভিন্ন ধরনের কর্মসূচী দেয়। কর্মবিরতির মধ্যে গত ২১ আগস্ট অফিস করতে এসে নিজ কার্যালয়ে ৪দিন ধরে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন ভিসি অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন। এরই প্রেক্ষিতে আন্দোলনকারী শিক্ষকদের সঙ্গে ২৪ আগস্ট বৈঠকে বসেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। দীর্ঘ আলোচনার পর ক্যাম্পাসে স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সদস্য মুহিবুর রহমানকে প্রধান করে দুই সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দেবার শর্তে আন্দোলন স্থগিত করে আন্দোলনকারীরা। কিন্তু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তদন্ত কমিটি কোন প্রতিবেদন না দিতে পারায় ফের গতকাল শনিবার থেকে কর্মবিরতি পালন করছেন আন্দোলনরত শিক্ষকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

নোবিপ্রবিতে মাসব্যাপী শোক দিবসের কর্মসূচীর উদ্বোধন

মুজাহিদুল ইসলাম সোহেল, নোয়াখালী: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদাত ...

পাঠ্যপুস্তক বোর্ডে শিক্ষামন্ত্রীর আকস্মিক পরিদর্শন

স্টাফ রিপোর্টার :  জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) কার্যালয়ে আজ সোমবার ...