ব্রেকিং নিউজ
Home | আন্তর্জাতিক | লাব্বাইক আল্লাহুমা লাব্বাইক ধ্বনিতে মুখরিত আরাফাতের ময়দান

লাব্বাইক আল্লাহুমা লাব্বাইক ধ্বনিতে মুখরিত আরাফাতের ময়দান

hajjস্টাফ রিপোর্টার : সৌদি আরবের আরাফাতের ময়দান আজ  সোমবার ‘লাব্বাইক আল্লাহুমা লাব্বাইক- হে আল্লাহ, তোমার ডাকে আমি হাজির’ ধ্বনিতে মুখরিত।

 

সৌদি আরবের সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়, রবিবার হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরুর পর মক্কা নগরীর কাবা শরিফ থেকে রওনা হয়ে পাঁচ কিলোমিটার দূরে মিনায় জড়ো হন বিশ্বের ১৫০টি দেশের প্রায় ২০ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসলমান, যার মধ্যে প্রায় ৮৮ হাজার গেছেন বাংলাদেশ থেকে।

 

ইবাদত-বন্দেগিতে মিনায় রাত কাটানোর পর আল্লাহর নৈকট্য লাভের আশায় জিকির করেন তারা। নামাজ পড়েন জামায়াতের সঙ্গে। এরপর হজের মূল আনুষ্ঠানিকতার জন্য সোমবার ভোর হতেই যাত্রা শুরু করেন ১০ কিলোমিটার দূরে আরাফাতের ময়দানের উদ্দেশে।

 

শুভ্র সেলাইবিহীন এক কাপড়ে মুসল্লিরা আরাফাতের ময়দানে হজের খুতবা শুনবেন এবং জোহর ও আসরের নামাজ আদায় করবেন। সূর্যাস্ত পর্যন্ত তারা আরাফাতের ময়দানেই থাকবেন। যার যার মতো সুবিধাজনক জায়গা বেছে নিয়ে ইবাদত করবেন।

 

হজের খুতবা দেবেন সৌদি আরবের গ্র্যান্ড মুফতি আবদুল আজিজ আল শেখ। মসজিদে নামিরাহ থেকে এ খুতবা রেডিও ও টেলিভিশনে সম্প্রচার করা হবে।

 

আরাফাত থেকে মিনায় ফেরার পথে সন্ধ্যায় মুজদালিফায় মাগরিব ও এশার নামাজ পড়বেন মুসল্লিরা। মুজদালিফায় রাতে থাকার সময় পাথর সংগ্রহ করবেন তারা, যা মিনার জামারায় শয়তানকে উদ্দেশ্য করে ছোড়া হবে।

 

মঙ্গলবার সকালে ফজরের নামাজ শেষে মুসল্লিরা মিনায় ফিরে নামাজ আদায় করবেন। এরপর শয়তানকে (প্রতীকী) পাথর ছুড়বেন। কোরবানি দিয়ে ইহরাম ত্যাগ করার পর সবশেষে কাবা শরিফকে বিদায়ী তাওয়াফের মধ্যে দিয়ে শেষ হবে হজের আনুষ্ঠানিকতা।

 

মিনায় আনুষ্ঠানিকতা শুরু হলেও আরাফাতের ময়দানের কার্যক্রমকেই হজের মূল অনুষ্ঠান হিসেবে ধরা হয়।

 

সৌদি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মেদ বিন নাফিস বলেছেন, এ বছর সৌদি আরবের বাইরে থেকে ১৩ লাখ ৭০ হাজার মুসল্লি হজ পালন করছেন, যা গত বছরের চেয়ে প্রায় ২১ শতাংশ কম।

 

হজ সুষ্ঠুভাবে শেষ করতে সৌদি সরকার ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে। নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। মক্কা ও আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনীর প্রায় ৫০ হাজার কর্মকর্তাকে নিয়োজিত করা হয়েছে।

 

ভিড়ের চাপে পদপিষ্ট হওয়াসহ যে কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি মোকাবেলায় নিয়োজিত রাখা হয়েছে কয়েক হাজার কর্মী। মক্কা, মিনা ও আরাফাতের ময়দানে সৌদি সরকারের পক্ষ থেকে সব হাজিকে খাবার ও বিশুদ্ধ পানি দেয়া হচ্ছে। হাজিদের বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা দিতে মিনায় কিছু দূর পর পর রয়েছে হাসপাতাল। স্কাউট ও স্বেচ্ছাসেবকরাও হাজিদের সব ধরনের সহযোগিতা দিচ্ছেন।

 

এবছর হজ করতে সৌদি আরবে গিয়ে অসুস্থতাসহ বিভিন্ন কারণে ৩৫ জন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

পর্তুগালে মুক্তি পাচ্ছে বাংলাদেশী সিনেমা “হাওয়া”

পর্তুগাল প্রতিনিধিঃ ১৫ই অক্টোবর হাওয়া পর্তুগালে বানিজ্যিক ভাবে মুক্তি পাচ্ছে বাংলাদেশী সিনেমা ...

মদনে বউ শাশুড়ির দ্বন্ধে নিহত-১, নারীসহ অহত-৭

সুদর্শন আচার্য্য মদন (নেত্রকোণা) ঃ নেত্রকোণার মদনে বউ শাশুড়ীর দ্বন্ধে শফিকুল ইসলাম ...