Home | ফটো সংবাদ | লন্ডনে কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশ না নিয়ে স্বজনদেরকে সময় দিচ্ছেন খালেদা জিয়া

লন্ডনে কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশ না নিয়ে স্বজনদেরকে সময় দিচ্ছেন খালেদা জিয়া

স্টাফ রিপোর্টার : চিকিৎসার জন্য লন্ডনে গেলেও পরিবারের মায়ার বন্ধনে আটকে গেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। আপাতত কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশ না নিয়ে স্বজনদেরকেই পূর্ণ সময় দিচ্ছেন তিনি। লন্ডন বিএনপি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।টানা আট বছর পর বড় ছেলে দলটির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, পুত্রবধূ ও নাতনিদের কাছে পেয়ে আবেগঘন মুহূর্ত পার করছেন তিনি। তাই চিকিৎসা শেষ হলেও মায়ার এই বন্ধন ত্যাগ করে দেশে ফিরতে গড়িমসি করছেন খালেদা।লন্ডন বিএনপির ওই সূত্রে জানা গেছে, লন্ডনে যাওয়ার পর থেকে খালেদা জিয়ার যেকোনো বিষয় দেখভাল করছেন বেঁচে থাকা একমাত্র সন্তান তারেক রহমান। কাউকে প্রয়োজন হলে তারেক রহমান নিজেই ডেকে নেন। আর চিকিৎসার কাজগুলোর সমন্বয় করছেন পুত্রবধূ ড. জুবাইদা রহমান।
এছাড়া চিকিৎসকের কাছে অথবা কোথাও যেতে হলে তারেক রহমান নিজেই মাকে পাশের সিটে বসিয়ে গাড়ি চালিয়ে গন্তব্যস্থলে নিয়ে যান। বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত ছবিতে এরকম চিত্রই দেখা গেছে।সূত্রটি আরো জানায়, চলতি মাসের (অক্টােবর) প্রথমদিকে খালেদা জিয়ার এক চোখে অস্ত্রোপচার হয়। অপর চোখের অস্ত্রোপচার এখন না করালেও চলবে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। তাই চিকিৎসকদের পরামর্শেই দেশে ফেরার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।জানা গেছে, তারেক রহমানের বাসায় অবস্থানরত খালেদা জিয়া দুই ছেলের সন্তানদের সঙ্গে দিনের বেশিরভাগ সময় পার করছেন। টেলিভিশনে কোনো অনুষ্ঠান দেখলেও নাতনিদের পাশে বসিয়েই দেখছেন। প্রয়াত ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর পরিবারকেও সময় দিচ্ছেন তিনি।প্রতিদিন ফজরের নামাজ শেষে কােরআন তিলাওয়াতের মধ্যেই দিন শুরু করেন তিনি। পরবর্তীতে পরিবারের সবাইকে নিয়ে সকালের নাস্তা শেষে একটু বিশ্রাম নেন খালেদা। এরপর বিভিন্ন পত্রিকা ও টেলিভিশন দেখেই দুপুর পর্যন্ত সময় অতিবাহিত করছেন তিনি।
এছাড়া পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে থেকে আগত নেতাকর্মীদের সঙ্গেও মাঝে মাঝে দেখা করছেন তিনি। দলকে শক্তিশালী করতে সবার কাছ থেকেই নানা পরামর্শ নিচ্ছেন খালেদা। অবশ্য তখন তারেক রহমানও অংশ নিচ্ছেন সেই আলোচনায়।বিএনপির একটি সূত্র জানিয়েছে, লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপি চেয়ারপারসন ঢাকায় ফিরেই দলে পরবর্তন আনতে পারেন। এ লক্ষ্যে তারেক রহমানের বাসায় থেকেই সব সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করছেন। তাই দেশে ফিরতে আরো কিছুদিন সময় লাগছে তার।এদিকে লন্ডন বিএনপির একটি সূত্র এ বিষয়ে জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) যুক্তরাজ্য ত্যাগের কথা থাকলেও খালেদা জিয়া আগামী সোমবার (১৯ অক্টোবর) রওনা হয়ে ২০ অক্টোবর দেশে পৌঁছাবেন। বিএনপি চেয়ারপারসনের নির্দেশে সোমবারের টিকিট বুকিংও দেয়া হয়েছে।
যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এমএ মালেক বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন চিকিৎসার পাশাপাশি পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সময় কাটাতেই দীর্ঘদিন পর লন্ডনে এসেছেন। বাংলাদেশ সরকার ম্যাডামের দেশে ফেরা নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। এটা আমাদের কাছে কাম্য নয়। সরকারের এসব অপপ্রচারের নিন্দা করছি। তিনি বলেন, দেশের উদ্দেশে রওনা দেয়ার আগে খালেদা জিয়া যেকোনো দিন একটি সংবাদ সম্মেলন করবেন। তবে দিনক্ষণ এখনো চূড়ান্ত হয়নি। দেশে ফেরার আগে যুক্তরাজ্য বিএনপির উদ্যোগে একটি সভা করার কথাও রয়েছে। ওই সভার তারিখও চূড়ান্ত হয়নি বলে জানান মালেক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

তরুণী ধর্ষণ : গুলশানের ডিসি, বনানীর ওসিকে তলব

স্টাফ রিপোর্টার :   বনানীর ‘দ্য রেইন ট্রি’ হোটেলে দুই তরুণী ধর্ষণের ঘটনায় ...

আমিরাতের কাছে অন অ্যারাইভাল ভিসা চাইলেন পর্যটনমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার :  বাংলাদেশি পর্যটকদের সুবিধার্থে সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) কাছে প্যাকেজ ...