ব্রেকিং নিউজ
Home | শিক্ষা | রুয়েটের চতুর্থ সমাবর্তনঃ রাবি শিক্ষক হত্যার বিচারের দাবি রাষ্ট্রপতির

রুয়েটের চতুর্থ সমাবর্তনঃ রাবি শিক্ষক হত্যার বিচারের দাবি রাষ্ট্রপতির

এস কে সাইম,রাবি থেকে.
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক একেএম শফিউল ইসলামের হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টন্তমূলক শাস্তি আহবান জানিয়ে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, ”একজন জ্ঞানতাপস শিক্ষক এভাবে খুন হবেন তা কোনোভাবেই কাম্য নয়”।
মঙ্গলবার দুপুর তিনটায় রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) চতুর্থ সমাবর্তনে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
রাষ্ট্রপতি আরও বলেন, এই হত্যাকান্ডে গোটা জাতির সাথে আমিও গভীরভাবে ব্যথিত ও দুঃখিত। উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একজন জ্ঞানতাপস শিক্ষক এভাবে খুন হবে তা কারোরই কাম্য নয়। আমি এ ঘটনার সাথে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টন্তমূলক সাজা দেওয়ার আহ্বান জানাই।’
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সভাপতিত্বে সমাবর্তনে সমাবর্তন বক্তা ছিলেন এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও বাংলাদেশের বিশিষ্ট প্রকৌশলী ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী। সমাবতর্নে স্বাগত বক্তব্য দেন রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মোহা. রফিকুল আলম বেগ।
সভাপতির বক্তব্যে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, ‘উচ্চশিক্ষার উদ্দেশ্য হল জ্ঞান সঞ্চালন ও নতুন জ্ঞানের উদ্ধাবন এবং সেইসঙ্গে দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলা। এ জন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে শিক্ষার পাশাপাশি সৃজনশীল কর্মকা-, মুক্ত বুদ্ধিচর্চা ও চিন্তার স্বাধীনতা বিকাশে অবদান রাখতে হবে। তাহলে শিক্ষার্থীরা নেতৃত্বের গুনাবলী অর্জনসহ বিজ্ঞানমনস্ক, অসাম্প্রদায়িক ও দুরদৃষ্টি সম্পন্ন নাগরিক হয়ে উঠতে পারবে।’
রাষ্ট্রপতি আরও বলেন, ‘বর্তমান বিশ্ব তথ্য প্রযুক্তির। এ বিশ্বের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় দক্ষ প্রকৌশলী সৃষ্টির কোনো বিকল্প নাই। আমাদের রয়েছে বিপুল মানবসম্পদ। এদের তথ্য-প্রযুক্তি জ্ঞানে দক্ষ করে তুলতে পারলেই তারা জাতির উন্নয়নে অবদান রাখতে পারবে।’
তিনি বলেন, ‘সরকার দেশের বিভিন্ন জেলায় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের পাশাপাশি শিক্ষাক্ষেত্রে যুগোপযোগী তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের লক্ষ্যে আইসিটি ইন অ্যাডুকেশন মাস্টার প্ল্যান প্রণয়ন করেছে। ফলে মাধ্যমিক স্তর থেকে শিক্ষার্থীরা তথ্য-পযুক্তি জ্ঞানে সমৃদ্ধ হচ্ছে।
সমাবর্তনের গ্রাজুয়েটদের উদ্দেশ্যে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘তোমরা আজ গ্রাজুয়েট, দেশের উচ্চতর মানবসম্পদ। আজকের এই সমাবর্তন একদিকে যেমন তোমাদের অর্জনকে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দিচ্ছে, তেমনি দায়িত্বও অর্পণ করছে। সে দায়িত্ব নিজের পরিবারের প্রতি, সমাজের প্রতি, সর্বোপরি দেশ ও জাতির প্রতি। তোমরা তোমাদের অর্জিত জ্ঞান, মেধা ও মনন দিয়ে দেশ মাতৃকার কল্যাণ করতে পারলে সে ঋণ কিছুটা হলেও শোধ হবে।’
সমাবর্তন বক্তা ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী বলেন, ‘সনাতন শিক্ষক কেন্দ্রীক শিক্ষা পদ্ধতি থেকে শিক্ষার্থী কেন্দ্রীক শিক্ষা পদ্ধতির দিকে নামকরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলো আকৃষ্ট হচ্ছে। ছোট ছোট গ্রুপে বিভক্ত হয়ে শিক্ষার্থীরা নিজেরাই সমস্যা নিয়ে আলোচনা করে সম্ভাব্য সমাধানসহ মূল্যায়ন করে; শিক্ষক এখানে সঞ্চালকের ভূমিকা পালন করেন। আমি আশা করব, উপস্থিত শিক্ষকরাও এ ব্যাপারে আগ্রহী হয়ে শিক্ষার্থীদের পাঠ্য বইয়ের বাঁধা-ধরা সমাধান ছাড়াও নিজেদের উদ্ভাবনী ক্ষমতা ব্যবহার করে নতুন নতুন প্রযুক্তি কীভাবে সমস্যা সমাধানে ব্যবহার করা যায় তা নিয়ে চিন্তা-ভাবনা করতে উৎসাহ দিবেন।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমরা জানি যে গ্রীন হাউজ নিয়ে পরিবেশগত সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে উন্নত বিশ্বের দেশগুলোর অতিমাত্রায় জীবাশ্ম জ্বালানি ব্যবহার করে বিদ্যুৎ উৎপাদন ও যানবাহনের ব্যবহারের ফলে। আর এই সমস্যা সৃষ্টিতে বাংলাদেশের অংশ অত্যন্ত নগন্য হলেও বাংলাদেশ চিহ্নিত হয়েছে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ দেশ হিসাবে। আমাদের চ্যালেঞ্জ হল কীভাবে এই সমস্যার মোকাবিলা করে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমানো যায়। আমি আশা করব আজকের স্নাতকরা এই গ্রীন ও টেকসই উন্নয়নের নেতৃত্ব দিতে এগিয়ে আসবে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ স্মাতক ও স্মাতকোত্তর পর্যায়ের পাঠ্যক্রমে এ বিষয়গুলো অর্ন্তভুক্ত করবে এবং এ বিষয়ে গবেষণা কার্যক্রমে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।’
সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরকৌশল, তরিৎ ও ইলেকট্রনিক কৌশল এবং যন্ত্র কৌশল অনুষদের মোট ২ হাজার ৮৭ জনকে গ্রাজুয়েটকে ডিগ্রি প্রদান করা হয়। এরমধ্যে ২ হাজার ৫০ জন স্মাতক ও ৩৭ জনকে এমফিল ও পিএইচডি ডিগ্রি প্রদান করা হয়।
এর আগে দুপুর আড়াইটাই মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও রুয়েটের আচার্য সমাবর্তন শোভাযাত্রা নিয়ে অনুষ্ঠানে প্রবেশ করেন। রুয়েটের রেজিস্টার ড. মোশাররাফ হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে অনুষদের ডিনবৃন্দ গ্রাজুয়েটদের উপস্থাপন করেন। মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও আচার্য গ্রাজুয়েটদের ডিগ্রি প্রদান করেন।
সমাবর্তন অনুষ্ঠানে অন্যারে‌্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, রাজশাহী ২ আসনের সাংসদ ফজলে হোসেন বাদশা, রাজশাহী ৩ আসনের সাংসদ আয়েনউদ্দিন, রাজশাহী ৫ আসনের সাংসদ আবদুল ওয়াদুদ দারা, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের বর্তমান মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, সাবেক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন, সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আবদুল খালেক, বর্তমান উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ইউজিসির মতো প্রতিষ্ঠান চায় কওমি সনদ বাস্তবায়ন কমিটি

স্টাফ রিপোর্টার :  বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) মতো একটি সংস্থার দাবি করেছেন ...

এসএসসির ফল ২ অথবা ৪ মে

স্টাফ রিপোর্টার :  মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমান পরীক্ষার ফল আগামী ২ ...