Home | বিবিধ | পরিবেশ | রাজারহাটে তিস্তার পানি বৃদ্ধি, চরাঞ্চলে ৩ হাজার মানুষ পানি বন্দি

রাজারহাটে তিস্তার পানি বৃদ্ধি, চরাঞ্চলে ৩ হাজার মানুষ পানি বন্দি

আলতাফ হোসোড়ন সরকার, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) : উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে তিস্তার পানি বেড়েই চলেছে। এতে কুড়িগ্রামে রাজারহাটে তিস্তার চরাঞ্চলের ৩ হাজার মানুষ পানি বন্দি হয়ে পড়েছে। পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে নদী ভাঙ্গল ও শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে চরাঞ্চলে ৩০টি বাড়ী ও কয়েক বিঘা ফসলি জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে গত সোমবার তিস্তা ব্যারেজ এলাকায় পানি বিপদ সীমার ১৫ সে:মি: উপর দিয়ে প্রবাহিত হতে থাকে। মঙ্গলবার গভীর রাতে পানি কমতে শুরু করে। পরে গতকাল শনিবার পর্যন্ত তিস্তার পানি বাড়ার কারনে উপজেলার বিদ্যানন্দ, নাজিমখান, ঘরিয়ালডাঙ্গা ইউনিয়নের দুর্গম চরাঞ্চলে ৩ হাজার বাড়ী প্লাবিত হয়ে পড়েছে। এছাড়া বিদ্যানন্দ ইউনিয়নের চরাঞ্চলে তীব্র ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। ৭২ ঘন্টায় ৩০টি বাড়ী ও ফসলি জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাওয়ায় গৃহহারা পরিবারগুলো অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে। এছাড়া ভাঙ্গন আতঙ্কে অনেকেই বাড়ী ভেঙ্গে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যাচ্ছে।

বিদানন্দ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তাইজুল ইসলাম জানান ভাঙ্গন প্রতিরোধে পাইবো এ পর্যন্ত তেমন কোন কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহন করেননি।

এ ব্যাপারে রাজারহাট উপজলা নির্বাহী অফিসার মুহ.রাশেদুল হক প্রধান জানান এখন পর্যন্ত কেউ আমাকে কোন সংবাদ জানায়নি। জানাইলে চরাঞ্চল পরির্দশন করে ত্রান দেওয়া হবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকশৌলী মোঃ সফিকুল জানান তিস্তা নদীর পানি শনিবার পর্যন্ত বিপদ সীমার ২৮.২৬ পয়েন্ট নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বিদ্যানন্দ ইউনিয়নে নদী ভাঙ্গন রোধে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সমুদ্রবন্দরে সংকেত নামিয়ে ফেলতে বলা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার : চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরের তিন নম্বর স্থানীয় ...

শেষ দিনের টিকিট পেতে উপচেপড়া ভিড়

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশনে শেষ দিনের মতো চলছে পবিত্র ঈদুল ...