Home | ব্রেকিং নিউজ | রাজনগর প্রাইমারী স্কুলে জালিয়াতি : দীর্ঘ দুই মাস স্কুলে না এসেও হাজিরা খাতায় সাক্ষর

রাজনগর প্রাইমারী স্কুলে জালিয়াতি : দীর্ঘ দুই মাস স্কুলে না এসেও হাজিরা খাতায় সাক্ষর

আবু সাঈদ, সাতক্ষীরা : অন্য শিক্ষক দিয়ে হাজিরা খাতায় সই করিয়ে অবিশ্বাস্য দৃষ্টান্ত স্থাপণ করলেন রাজনগর সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শফিকুল আলম।
ঘটনা সুত্রে সরেজমিনে জানা যায়, সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় রাজনগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা অলোকা ব্যানার্জী গত ২২ নভেম্বর  থেকে অত্র বিদ্যালয়ে না এসে  বহু দুর্নীতির হোতা প্রধান শিক্ষক শফিকুল আলমকে ম্যানেজ করে আধ্যবদি পর্যন্ত একই স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা মিতা পারভীন,অলোকার জাল সই করে । বিষয়টি এককান দুইকান করে প্রচার হয়ে গেলে দুর্নীতিবাজ প্রধান শিক্ষক শফিকুল আলম বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেও শেষ রক্ষা পেলেন না। সুত্রে আরো জানা যায়, অলোকা ব্যানার্জী  দীর্ঘ দুই মাস যাবত স্কুলে না এসেও হাজিরা খাতায় সই হওয়ায় ঐ স্কুলের অন্য শিক্ষকরা সমালোচনার ঝড় তোলেন । একটি সুত্রে জানা যায় প্রতি শিক্ষকের মাসিক হাজিরা সাতক্ষরা উপজেলা ও জেলা শিক্ষা অফিসে রিটার্ণ করার নিয়ম থাকলে প্রধান শিক্ষক সেখানে নিয়মিত হাজিরা দেখায় । এক পর্যায় ঘটনাটি অত্র স্কুলের ম্যানিজিং কমিটির নজরে এলে সুচতর একাধিক আপরাধির অপরাধি প্রধান শিক্ষক, শিক্ষকদের দৈনিক হাজিরা খাতায় মিতা পারভিনের  জাল সই করা অলোকার সাক্ষর এর ঘরে ফ্লুউড ব্যবহার করে দুই একদিন হাজিরা দেখিয়ে অসখ্যবার সি এল প্রদান করেন। বিষয়টি বৃহস্পতিবার অত্র স্কুলে যেয়ে খাতা দেখে বুঝতে পারেন । এসময় সাংবাদিকদের প্রধান শিক্ষক তথ্য না দিয়ে ভুল বুঝানোর চেষ্টা করে।বিষয়টি অত্র স্কুলের ম্যানিজিং কমিটির একাধিক সদস্য প্রধান শিক্ষককের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে এহেন অপকর্মের প্রতিবাদ জানায়।এ বিষয়ে ম্যানিজিং কমিটির সদস্য শওকাত হোসেন,মোকলেছুর রহমান ও রবিউল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন প্রধান শিক্ষক  যে অপরাধ করেছেন তা ক্ষমার অযোগ্য আমরা অলোচনা করে অতি শিঘ্রই দুর্নীতিবাজ শিক্ষক শফিকুল আলমের বিরূদ্ধে শোকজ করব। এ বিষয়ে অলোকা ব্যানার্জীর সাথে কথা হলে তিনি বলেন,আমি অসুস্থ ছিলাম তবে এসব তথ্য অপনাদের কে দিচ্ছে। কথা হয় অভিযুক্ত সাক্ষর জাল করা শিক্ষিকা মিতা পারভিনের  সঙ্গে তিনি সাংবাদিকদের  ফোনে বলেন, আপনারা সরেজমিনে গিয়েছিলেন আপনারা যা দেখেছেন ঐটায় সত্য আর আপনাদের যারা তথ্য দিচ্ছে তাদের কাছ থেকে তথ্য নেন। এ বিষয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে অফিসারের সাথে কথা হলে তিনি বলেন,প্রধান শিক্ষক যে অপরাধ করেছেন সেটা একটি বড় অপরাধ এর শাস্তি সে পাবে। সার্বিক বিষয়ে কথা হয় উপজেলা  প্রায়মারী সহকারী শিক্ষা অফিসার বাসুদেব শানা সাংবাদিকদের বলেন,প্রধান শিক্ষক আমার কাছে ৮ দিনের একটি ছুটির আবেদন দিয়েছে এবং প্রধান শিক্ষক তিন দিনের বেশি ছুটি দিতে পারেন না তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখঅ হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

আমাদেরকে গ্রামে গ্রামে ছড়িয়ে পড়তে হবে : ফখরুল

স্টাফ রির্পোটার : বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ নির্বাচন ...

মধ্যাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতি অবনতির আশঙ্কা

নিউজ ডেস্ক : পদ্মা নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় মধ্যাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতির ...