ব্রেকিং নিউজ
Home | সারা দেশ | মৌলভীবাজার জেলার সকল খবর

মৌলভীবাজার জেলার সকল খবর

moulvibazar mapকমলগঞ্জে ফুটবল খেলা নিয়ে দু’বাগানবাসীর সংঘর্ষে আহত ১৫
মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি, ২৩ সেপ্টেম্বর :
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ফুটবল খেলায় তর্কবিতর্কের জের ধরে সোমবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। উপজেলার মাধবপুর ইউপি চেয়ারম্যান পুষ্প কুমার কানু জানান, গত শুক্রবার মাধবপুর ইউনিয়নের পার্থখলা চা বাগানের ফুটবল মাঠে পার্থখলা ও ধলই বাগানের মধ্যে ফুটবল খেলার শেষদিকে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে উভয়পক্ষের খেলোয়াড়দের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। তাৎক্ষণিক এ ঘটনার সমাধান হয়ে যায়।
পূর্ব ঘটনার জের ধরে সোমবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টা থেকে উভয় বাগান এলাকার বাসিন্দারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে পার্থখলার বাসিন্দারা ধলই বাগানে প্রবেশ করে হামলা চালায়। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সংঘর্ষ থামানোর চেষ্টা করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে থাকায় জেলা সহকারী পুলিশ সুপার সিরাজুল ইসলামের নেতৃত্বে দাঙ্গা পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সময় সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ১৫ জন আহত হন। আহতরা কমলগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত (বিকেল সাড়ে ৫টা) দাঙ্গা নিয়ন্ত্রণে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন রয়েছে।

শ্রীমঙ্গলে কলেজের নৈশপ্রহরী খুন
মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি, ২৩ সেপ্টেম্বর :
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল দ্বারিকাপাল মহিলা কলেজের নৈশ প্রহরী কনক লাল দাসকে (৪৬) পূর্ব শত্র“তার জের ধরে সোমবার (২৩ সেপ্টেম্বর) ভোরে খুন করেছে দুর্বৃত্তরা। তিনি উপজেলার উত্তরসুর এলাকার বাণীলাল দাসের ছেলে। এলাকাবাসী ও থানা পুলিশ সূত্র জানায়, সোমবার ভোররাতে দুর্বৃত্তরা তাকে দা দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক আহত করে ফেলে যায়। সকালে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। শ্রীমঙ্গল থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: আব্দুল্লাহ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, লাশ ময়না তদন্তের জন্য মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

দীর্ঘ ৫ বছর থেকে বন্ধ টিলাগাঁও রেল স্টেশন : রাজস্ববঞ্চিত সরকার
জালাল আহমদ, মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি, ২৩ সেপ্টেম্বর :
কর্তৃপক্ষের চরম অবহেলা আর উদাসীনতায় দীর্ঘ ৫ বছর থেকে টিলাগাঁও রেল স্টেশন বন্ধ রয়েছে। বিপুল পরিমাণ রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার। ফলে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন যাত্রীরা।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সিলেট-আখাউড়া রেলওয়ে সেকশনের অন্তর্গত মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার টিলাগাঁও রেল  স্টেশনটি ২০০৯ সালের ৩ ফেব্র“য়ারি থেকে থেকে বন্ধ রয়েছে। এর আগেও একাধিকবার স্টেশনটি বন্ধ ছিল। বৃটিশ শাসনামলে ডানকান ব্রাদার্স’র চা বাগান ও এলাকার জনসাধারণের সুবিধার্থে এ স্টেশনটি স্থাপন করা হয়েছিল। বি গ্রেডের স্টেশন টিলাগাঁওয়ে শুধু চা বাগানের মালামাল বুকিং করে সরকারের হাজার হাজার টাকা রাজস্ব আয় হতো। অথচ বর্তমানে স্টেশনটি অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে আছে।
এখন আর ওয়াগনভর্তি মাল আসে না, যা এখন শুধুই স্মৃতি। যেখানে ৩ জন মাস্টার থাকার কথা সেখানে মাস্টারবিহীন অবস্থায় রয়েছে স্টেশনটি। ৩ জন পয়েন্টসম্যান থাকার কথা থাকলেও বর্তমানে পয়েন্টসম্যান্টবিহীন অবস্থায় রয়েছে। ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকার কথা থাকলেও জনবল সংকটের কারণে স্টেশনটি পুরোপুরি বন্ধ রয়েছে। প্রয়োজনীয়সংখ্যক লোকজনের অভাবে দীর্ঘ প্রায় ৫ বছর থেকে স্টেশনে ক্রসিং বন্ধ রয়েছে। প্রয়োজনীয়সংখ্যক লোকজন না থাকায় স্টেশনটি এখন অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে আছে। আর এ সুযোগে স্টেশনের মূল্যবান উপকরণগুলো চুরি হয়ে যাচ্ছে। এক সময় টিলাগাঁও স্টেশনটি প্রায় ৫০ হাজার মানুষের একমাত্র যোগাযোগের মাধ্যম ছিল। বর্তমানে স্টেটশনটি বন্ধ থাকায় যাত্রীরা ট্রেনের খবর জানতে, মালামাল বুকিং ও টিকেট সংগ্রহ করতে পারছেন না। ফলে অসংখ্য যাত্রী সিলেট, আখাউড়া, ঢাকা ও চট্টগ্রামে যাতায়াতে চরম দুর্ভোগের শিকার হন। অন্যদিকে হাজার হাজার টাকার রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার। এ ব্যাপারে এলাকাবাসী কর্তৃপক্ষের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেন। কুলাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশন মাস্টার মহিদুর রহমান জানান, স্টেশনটি বন্ধ থাকায় সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে।

অবশেষে আখাউড়া-সিলেট সেকশনে ‘কমিউটার’ ডেমু ট্রেন উদ্বোধন বুধবার
জালাল আহমদ, মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি, ২৩ সেপ্টেম্বর :
মন্ত্রী ও সাংসদদের দ্বন্দ্ব কাটিয়ে অবশেষে আখাউড়া-সিলেট সেকশনে রেললাইনে চালু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ রেলওয়ের আধুনিক সংস্করণ ‘কমিউটার’ নামক ডেমু ট্রেন। ট্রেনটি আগামী বুধবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সিলেট রেলওয়ে জংশন স্টেশন থেকে যাত্রা শুরু করবে। এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন রেলপথ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মজিবুল হক। ট্রেনটি পরীক্ষামূলকভাবে আগামীকাল মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) আখাউড়া থেকে ছেড়ে সিলেট যাবে। ট্রেনটি এ সেকশনে চালুতে যাত্রীরা কম খরচে যাতায়াত করতে পারবেন। সপ্তাহে শুক্রবার ১ দিন ট্রেনটি বন্ধ থাকবে বলে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন।
সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানায়, ট্রেনটির উভয়দিকেই ইঞ্জিন থাকবে। চীন থেকে আমদানিকৃত এ ট্রেনে  বসে এবং দাঁড়িয়ে ৩০০ যাত্রী যাতায়াত করতে পারবেন এবং নিরাপদ ও আরামদায়ক হবে। অধিকতর যাত্রী সেবা দিতে এ ট্রেন চালু করা হচ্ছে। বর্তমানে প্রতিটি স্টেশনে ইতোমধ্যে পূর্বের সময়সূচি বাতিল করে নতুন সময়সূচি দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কুলাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশন মাস্টার মহিদুর রহমান।
রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ সূত্র জানায়, নতুন সময়সূচি অনুযায়ী আখাউড়া থেকে প্রতিদিন সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে ছেড়ে বিকেল ৪ টা ২৫ মিনিটে সিলেট জংশন স্টেশনে পৌঁছবে ট্রেনটি। অন্যদিকে সন্ধা ৬ টায় সিলেট  থেকে পুনরায় আখাউড়ার উদ্দেশ্যে যাত্রা করে ট্রেনটি পৌঁছাবে রাত ১১ টা ৪৫ মিনিটে। আখাউড়া সেকশনের মোগলাবাজার, মাইজগাঁও, কুলাউড়া, লংলা, শমশেরনগর, ভানুগাছ, শ্রীমঙ্গল, সাতগাঁও, শায়েস্তাগঞ্জ, মুকন্দপুর, নোয়াপাড়াসহ সকল গুরুত্বপূর্ণ স্টেশনেই থামবে ট্রেনটি।
এ ব্যাপারে কুলাউড়া, লংলা, ভানুগাছ এলাকার বাসিন্দা এনামুল ইসলাম, বাবুল মিয়া, নূর আহমদ, হাবিবুর রহমানসহ অনেকেই জানান, ট্রেনটি উদ্বোধনের কথা শুনে আমরা বেশ খুশি। কিন্তু নতুন সময়সূচি অনুযায়ী আখাউড়া থেকে ট্রেন ছাড়ার যে সময় নির্ধারণ করা হয়েছে এতে যাত্রীদের তেমন সুবিধা হবে না। তারা  চেয়েছেন পূর্বের সময়সূচি অনুযায়ী সিলেট থেকে ট্রেন চলাচল করলে যাত্রীদের জন্যে ভালো হবে।
রেলওয়ে সূত্র আরও জানায়, গত ১০ জুলাই এ সেকশনে কমিউটার ট্রেন চালুর কথা ছিল। কিন্তু আখাউড়া থেকে না সিলেট থেকে উদ্বোধন হবে-এ নিয়ে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ বিপাকে পড়ে। একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, রেলমন্ত্রী মজিবুল হক চেয়েছিলেন আখাউড়া থেকে উদ্বোধন করবেন আর অর্থমন্ত্রী আবুল আল মুহিত ও সিলেট-ফেঞ্চুগঞ্জ থেকে নির্বাচিত এমপি মাহমুদুস সামাদ চৌধুরী চেয়েছেন সিলেট থেকে উদ্বোধন করা হোক। এ  দ্বন্দ্বের কারণে অনিবার্য কারণ দেখিয়ে ট্রেনটি উদ্বোধন করতে বিলম্ব হয়। অবশেষে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ আগামী ২৫  সেপ্টেম্বর সিলেট থেকে ট্রেন উদ্বোধনের জন্য চূড়ান্ত সিদ্বান্ত নেয়।

মৌলভীবাজারে উচ্ছেদ আতংকে এক ভূমিহীন কৃষক
জালাল আহমদ, মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি, ২৩ সেপ্টেম্বর :
উচ্ছেদ আতংকে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন মৌলভীবাজারের এক ভূমিহীন কৃষক। একই এলাকার শামীম, রুবেল ও শাহআলম একাধিকবার প্রকাশ্যে আল্টিমেটামসহ হুমকি দিয়ে তাকে বলেছে, ভালোয় ভালোয় ভূমিটুকু ছেড়ে চলে যাও, নইলে সন্ত্রাসী দিয়ে উচ্ছেদ করা হবে। ফলে উচ্ছেদ আতংকে দিশেহারা ওই ভূমিহীন কৃষক। সূত্র জানায়, ১১নং মোস্তফাপুর ইউনিয়নস্থ বাউরঘড়িয়া (চাঁনগাঁও) গ্রামের ভূমিহীন কৃষক সমুজ মিয়া তার পিতার জীবদ্দশা থেকে তাদের ভোগদখলে থাকা সম্পাসী (দক্ষিণ) মৌজার ১১১ নং জেএলস্থিত ১নং খতিয়ানের অন্তর্ভুক্ত ৯৪৮ নং এসএ এবং ৬৯৮ নং আরএস দাগের ১২.৬০ শতক ভূমি স্থায়ী বন্দোবস্তপ্রাপ্তির জন্য ২০১২ সালের ২২ ফেব্র“য়ারি মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করেন (নং-১৩৭৩০)। বন্দোবস্তের আবেদন করার পর ওই মূল্যবান ভূমির ওপর লোলুপ দৃষ্টি পড়ে একই এলাকার শামীম, রুবেল ও শাহআলমের। যেভাবেই হোক ওই মূল্যবান ভূমি নিজ আয়ত্ত্বে নেওয়ার জন্য শুরু করে নানা তৎপরতা। তারা সমুজ মিয়াকে নানা হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছে।
এদিকে বন্দোবস্তের আবেদনের কোনো সুরাহা হচ্ছেনা দীর্ঘদিনেও। অপরদিকে শামীম, রুবেল ও শাহআলমের হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন অব্যাহত থাকায় উচ্ছেদ আতংকে দিশেহারা ওই ভূমিহীন কৃষক গত ১৬ সেপ্টেম্বর আবারও জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করেন (নং-৫৮১২০১৩০৯১৬.১৮৫)। এ ব্যাপারে শামীম, রুবেল ও শাহআলমের বক্তব্য জানতে এলাকায় গিয়েও তাদের সাথে সাক্ষাত করা সম্ভব হয়নি। ই
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শেখ রুমেল আহমদ জানান, বিষয়টি নিয়ে ইউপি অফিসে সালিশ হয়েছে। সমুজ মিয়া একজন ভূমিহীন লোক এটা সত্য। আমি তাকে এ সংক্রান্ত সনদপত্রও দিয়েছি এবং সম্ভব সকল প্রকার সহযোগিতারও আশ্বাস দিয়েছি। যেহেতু অপর একটি পক্ষ উক্ত ভূমির মালিকানা দাবি করছে, সেহেতু এলাকার শান্তি-শৃক্সক্ষলা বজায় থাকার স্বার্থে আমি উভয়পক্ষকে বলে দিয়েছি, বন্দোবস্ত সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত উক্ত ভূমি যেভাবে যে অবস্থায় আছে সেভাবেই থাকবে। এ নিয়ে কেউ এলাকার শান্তি-শৃক্সক্ষলায় বিঘœ সৃষ্টি করতে পারবেন না। সমুজ মিয়াকে আল্টিমেটামসহ হুমকি দেওয়ার বিষয়টি আমাকে কেউ জানায়নি।

বড়লেখায় ছড়ায় বিষ দিয়ে মাছ নিধন
জালাল আহমদ, মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি, ২৩ সেপ্টেম্বর :
মৌলভীবাজারের বড়লেখায় বিভিন্ন ছড়ায় বিষ দিয়ে মাছ নিধন করছে এক শ্রেণীর ব্যক্তি। আর এ কাজে জড়িত রয়েছে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রভাবশালী ব্যক্তিবর্গ। এলাকাবাসীসহ একাধিক সূত্র জানায়, উপজেলার বিভিন্ন ছড়ায় প্রতিমাসে ৫-৭ বার বিষ দিয়ে মাছ নিধন করা হচ্ছে। বড়লেখা সদর ইউনিয়ন ও কাঁঠালতলী ইউনিয়নের আংশিক অংশের ভেতর দিয়ে প্রবাহিত নিকড়িছড়ায় বিষ দিয়ে মাছ নিধন করে আসছে এলাকার একটি চক্র। উজান থেকে নেমে আসা এ ছড়ায় ডিমাই এলাকার মানুকাটা নামক স্থানে বিষ দিয়ে গত ১৩ সেপ্টেম্বর রাতের কোনো এক সময় কুতুবনগর গ্রামের আজিজুল ইসলাম, ইরাজ আলী, রিয়াজ উদ্দিনসহ কিছু ব্যক্তি বিষ দিয়ে মাছ নিধন করে। এ চক্র গত এক মাসে এ ছড়ায় অন্তত ৫-৬ বার বিষ দিয়েছে বলে এলাকাবাসী সূত্র নিশ্চিত করেছে। কেউ যাতে দেখে না ফেলে এজন্য রাতে বিষ প্রয়োগ করা হয়।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, থায়োডিন নামক এ বিষ ভারতের তৈরি। উপজেলার বিভিন্ন বাজারে পাওয়া এ বিষ বিভিন্ন সীমান্তবর্তী এলাকা দিয়ে প্রবেশ করে। ২০০ ও ১০০ গ্রামের কৌটা কিনতে পাওয়া যায় বাজারে। দাম ৩০০-৪০০ টাকা। এ বিষ পানিতে ফেলার পর মাছ পানিতে ভেসে উঠতে থাকে। মাছের চলাচল ক্ষমতা হ্রাস পায়। মাছ ধরতে ছড়ায় খাটি বা বাঁধ বসিয়ে দেয়া হয়। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন এ মাছ খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর। কিন্তু কোনো ধরণের বাধা ছাড়াই এলাকার লোকজন বিষযুক্ত এ মাছ নিরাপদ মনে করে রান্না করে খাচ্ছেন। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ আমিনুর রহমান ও উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আজিবুর রহমান জানান, বিষয়টি আমাদের জানা নেই। খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জুড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আইসিটিতে জেলার শ্রেষ্ঠ
জালাল আহমদ, মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি, ২৩ সেপ্টেম্বর :
ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন নিয়ে বতর্মান সরকার যাত্রা শুরু করলেও এখন আর তা স্বপ্ন নয় বাস্তবে পরিণত হয়েছে। ইনফরমেশন কমিউনিকেশন টেকনলজি বা আইসিটিতে বাংলাদেশ এখন অনেক এগিয়ে গেছে। তথ্যপ্রযুক্তির এই উন্নতির ফল ভোগ করতে শুরু করেছে সাধারণ মানুষ। ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে গেছে ইউনিয়ন পর্যায়ে। ঘরে বসে ইন্টারনেট ব্যবহার করে অনলাইনে ন্যাশনাল ওয়েব পোর্টালের মাধ্যমে এখন যে কেউ দেখতে পারছেন, যে কোনো ইউনিয়ন, উপজেলা বা জেলার সরকারি অফিসগুলোর সেবা কার্যক্রম, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের তথ্য, বিভিন্ন প্রজেক্ট সম্পর্কে তথ্য, টেন্ডারের তথ্য, বিভিন্ন সভার কার্যবিবরণী ও সিদ্ধান্ত, বিভিন্ন আবেদনপত্রসহ আরও অনেক তথ্যাদি।
এদিকে উপজেলার তথ্য প্রযুক্তি খাতের উন্নতি সাধনে বিশেষ অবদানের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় হতে গত ১৯ সেপ্টেম্বর মৌলভীবাজার জেলার সাত উপজেলার মধ্যে জুড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার শহিদুল ইসলাম জেলার শ্রেষ্ঠ ইউএনও মনোনীত হন। গত ২১ সেপ্টেম্বর সকালে মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে আইসিটিতে জেলার শ্রেষ্ঠ ইউএনও’র পুরস্কার তুলে দেন জুড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার শহিদুল ইসলামের হাতে।

মৌলভীবাজারে জামায়াতের বিক্ষোভ মিছিল
মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি, ২৩ সেপ্টেম্বর :
জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারী জেনারেল আব্দুল কাদের মোল্লাসহ আটক জামায়াতের শীর্ষ  নেতৃবৃন্দ, ১৮ দলের নেতাকর্মী ও আলেমদের মুক্তির দাবিতে এবং দেশে সরকারের নৈরাজ্য সৃষ্টির ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে মৌলভীবাজার জেলা জামায়াতের উদ্যেগে সোমবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টায় শহরে বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। পশ্চিম বাজার থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে কুসুমবাগ সিটির সামনে গিয়ে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জেলা জামায়াতের আমীর আব্দুল মান্নান, জেলা সেক্রেটারী শাহেদ আলী, পৌর আমীর ইয়ামীর আলী, সদর উপজেলা আমীর আলা উদ্দিন শাহ, শিবিরের শহর সভাপতি হাফিজ তাজুল ইসলাম, জেলা সভাপতি দেলোওয়ার হোসেন, শহর সেক্রেটারী ফখরুল ইসলাম, জেলা সেক্রেটারী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ফকিরহাটের মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নির্বাচন সম্পন্ন

সুমন কর্মকার : বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার মূলঘর অবস্থিত কলকলিয়া জি সি মাধ্যমিক ...

ফকিরহাটের ঐতিহ্যবাহী শীতলা মন্দিরে রথ যাত্রা উৎসব

সুমন কর্মকার : বাগেরহাটের ফকিরহাটের আট্টাকী সার্বজনীন শিতলা মন্দিরের উদ্যোগে ২য় বার ...