ব্রেকিং নিউজ
Home | আন্তর্জাতিক | মোদিকে রুখতে মমতাকে প্রধানমন্ত্রী বানাতে সম্মত কংগ্রেস!

মোদিকে রুখতে মমতাকে প্রধানমন্ত্রী বানাতে সম্মত কংগ্রেস!

mamata banerjeeইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : নরেন্দ্র মোদিকে রুখতে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রধানমন্ত্রী মানতে সম্মত হচ্ছে কংগ্রেস৷ বিকল্প প্রধানমন্ত্রী তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী জে জয়ললিতা৷ শনিবার দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রী তথা কংগ্রেস শীর্ষ নেতাদের নিয়ে গঠিত কোর কমিটির গুরুত্বপূর্ণ সদস্য এ কে অ্যান্টনি এক সংবাদ সম্মেলনে এই ইঙ্গিত দেন৷

অ্যান্টনি কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ নেতা। তার এই ইঙ্গিত কংগ্রেস দলের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে আলোচনার নির্যাস বলেই ধরে নেয়া যায়। অনেকটা ১৯৯৬ সালের মতো রাজনৈতিক পরীক্ষার পুনরাবৃত্তির জন্য কংগ্রেস মানসিকভাবে প্রস্তুতি নিয়ে নিয়েছে। সেই সময় অটলবিহারী বাজপেয়ীকে রুখতে কংগ্রেস বাইরে থেকে এইচ ডি দেবগৌড়ার নেতৃত্বের যুক্তফ্রন্ট সরকারকে সমর্থন করেছিল।

কয়েকদিন আগে নকশালবাড়িতে এক জনসভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কংগ্রেস সহ-সভাপতি রাহুল গান্ধীর সমালোচনার জবাবে বলেছিলেন, “সেই তো ভোটের পর পায়ে পড়তে হবে৷” অ্যাণ্টনির কথায় সেই সুরই প্রতিধ্বনিত হচেছ৷ তবে প্রতিরক্ষামন্ত্রীর ফর্মুলায় ‘বাঘে-গরুতে’ এক ঘাটে পানি খাওয়ার সূত্র রয়েছে৷ সেটাই একমাত্র প্রতিবন্ধকতা তৈরি করতে পারে৷ তার ফর্মুলার অর্থ মমতা-জয়ললিতার সরকারকে বামেদেরও সমর্থন করতে হবে৷

তিরুবনন্তপুরমে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে সিপিএমের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, “অনেক দল রয়েছে, যারা ভোটের পরে কংগ্রেসকে সমর্থন করতে নারাজ৷ এমন মনোভাব নিলে দেশে বিজেপিকে সরকার গড়তে সুবিধা করে দেয়া হবে৷ তারা যেন রণকৌশল পরিবর্তনের জন্য ভাবনা-চিন্তা করেন৷”

তার এই সতর্কবাণীর উদ্দেশ্য প্রকাশ কারাতের সাম্প্রতিক মন্তব্য৷ কারাত বলেছিলেন, তৃতীয় মোর্চা সরকার গড়বে৷

অ্যান্টনির ধারণা জনমত সমীক্ষায় বিজেপি এগিয়ে থাকলেও শেষ পর্যন্ত ত্রিশঙ্কু লোকসভা অনিবার্য। এই অবস্হায় বিজেপিকে ক্ষমতার বাইরে রাখতে ‘ধর্মনিরপেক্ষ’ সরকার গঠনের জন্যই কংগ্রেস তৎপরতা চালাবে বলে জানান তিনি। দিল্লির কংগ্রেস মহলের মতে লোকসভা ভোটের পরে বিজেপি ও এনডিএ শরিক ছাড়া অন্য দলগুলি নিয়ে কেন্দ্রে মোর্চা সরকার গঠন প্রায় নিশ্চিত। তবে কংগ্রেস দলের সম্ভাব্য ফলাফল আশানুরূপ না হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। সে ক্ষেত্রে কংগ্রেসের পক্ষে ধর্মনিরপেক্ষ সরকারের নেতৃত্ব দেওয়া সম্ভব নাও হতে পারে৷ সেই কারণে এখন কংগ্রেস রণনীতি নিয়েছে, যেমন করেই হোক দলকে ১৩০টি আসন জিততেই হবে৷ নাহলে বিজেপির দিকে পাল্লা ভারী হয়ে উঠবে সরকার গঠনের জন্য৷ এখন দিল্লির কংগ্রেস নেতারা মেনেই নিয়েছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অথবা জয়ললিতার নেতৃত্বে সরকার গঠনের তত্পরতা চালাতে হবে৷

অ্যান্টনি দাবি, কেরলে এবারেও কংগ্রেস অপেক্ষাকৃত ভাল ফল করবে৷ ফলে সিপিএমের পক্ষে তৃতীয় মোর্চা গঠন অসম্ভব৷ তাদের ভবিষ্যতে কংগ্রেসের ধর্মনিরপেক্ষ সরকারকে সমর্থন করা ছাড়া কোনও উপায় নেই৷ পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য সম্প্রতি ভোটের পরে কংগ্রেসকে সমর্থনের ইঙ্গিত দিয়েছেন। সিপিআই সরাসরি এই প্রস্তাব খারিজ করে৷ কিন্তু সিপিআই কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সুপারিশেই তেলেঙ্গানায় সিপিআই কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতা করছে। ফলে সিপিআইয়ের রাজ্য নেতৃত্ব যা বলছে, তার সঙ্গে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কোনো তাল-মিল নেই৷

বিজেপির যশবন্ত সিনহা বলেছেন, কংগ্রেসের ‘ধর্মনিরপেক্ষ’ সরকার গড়ার কোনো সম্ভাবনা নেই৷ সংযুক্ত জনতা দলের কে সি ত্যাগী বলেছেন, “কংগ্রেসকে ধর্মনিরপেক্ষ দল বলে মানতে রাজি নই৷ কারণ, সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে নরম মনোভাব দেখায় কংগ্রেস৷”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সুবর্ণচরে মদ দিয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গিয়ে যুবক কারাগারে

নোয়াখালী প্রতিনিধি : নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার পূর্ব চরবাটা ইউনিয়নে পূর্ব বিরোধের জের ধরে ...

মসজিদে অর্থ দেওয়ার নামে কুয়েত সোসাইটির অর্থ আত্মসাত

আবু সাইদ, সাতক্ষীরা : সাতক্ষীরায় মসজিদ নির্মাণ কাজে ব্যাবহারের জন্য নেয়া কুয়েত ...