ব্রেকিং নিউজ
Home | সারা দেশ | ভোলার মনপুরায় ঘাঁড়ে জেঁকে বসেছে বিদ্যুতের ভূত, ২ দিনের জন্য বিদ্যুৎ বন্ধ, জনজীবন দুর্বিসহ

ভোলার মনপুরায় ঘাঁড়ে জেঁকে বসেছে বিদ্যুতের ভূত, ২ দিনের জন্য বিদ্যুৎ বন্ধ, জনজীবন দুর্বিসহ

electricityএন এম জিকু, ভোলা প্রতিনিধি : মনপুরার ঘাঁড়ে জেঁকে বসেছে বিদ্যুতের ভূত। হঠাৎ করে ২ দিনের জন্য বিদ্যুৎ বন্ধ থাকায় জনজীবন হয়ে পড়েছে দুর্বিসহ। উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে দেখা দিয়েছে কাজের ধীরগতি। উপজেলা সদরে অবস্থিত সবচেয়ে বড় হাজীর হাট বাজার ও বিদ্যুত সংযোগপ্রাপ্ত বাঁধের হাট বাজারসহ রাস্তার মোড়ে মোড়ে থাকা সহ¯্রাধিক ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার পাশাপাশি গুনতে হচ্ছে বড় ধরনের লোকসান। পড়ালেখা করতে পারছেনা উপজেলার স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসাগুলোর সহ¯্রাধিক শিক্ষার্থী। বন্ধ হয়ে আছে ছোট-বড় কল কারখানা। হঠাৎ করে বিদ্যুত বিভাগের বন্ধ ঘোষনায় বাসাবাড়িগুলোতে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে ফ্রিজ-রেফ্রিজারেটরে  থাকা মাছ, মাংশ,ফল-ফলাদী ও তরী- তরকারী। সব মিলিয়ে বিদ্যুৎ বিহীন ভূতুড়ে পরিবেশে লোকসান গুনতে হচ্ছে মনপুরার সর্বস্তরের জন সাধারনকে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গতকাল ১৭ সেপ্টেম্বর মনপুরা বিদ্যুৎ বিভাগ মাইকিং করে জানিয়েছে যে, আগামী ১৭ সেপ্টেম্বর থেকে ১৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ২ দিন বিদ্যুৎ বন্ধ থাকবে। বিদ্যুৎ বিভাগ দুঃখ প্রকাশ করে জানান, মেশিনে বড় ধরনের ত্রুটি থাকার কারনে ঢাকা থেকে প্রকৌশলীগন এসেছেন। তারা এই ২ দিন মেশিন মেরামত করবেন। তাই মনপুরা সকল গ্রাহকের বিদ্যুৎ বন্ধ থাকবে। উল্লেখ্য, ১৯৮৩ সালে মনপুরা উপজেলায় পরিণত হলে ১৯৮৫ সালে পিডিবি ছোট একটি জেনারেটরের মাধ্যমে উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ করে। পরে অন্ধকারাচ্ছন্ন মনপুরাকে আলোকিত করার জন্য ১৯৯২ সালে তৎকালীন চরফ্যাশন-মনপুরা আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নাজিম উদ্দিন আলম উপকূলীয় ঘূর্নীঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচীর আওতায় এখানে ১টি ৪শত কিলোওয়াট এবং পরে ১৯৯৭ সালে আরো ১টি ৪শত কিলোওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন মেশিন স্থাপন  করা হয়। সেই থেকে অদ্যাবদি চলমান মেশিনগুলোর ১টি সম্পূর্নরুপে অকেজো অবস্থায় পড়ে আছে। বাকি ১টি মেশিন ৪ শত কিলোওয়াট থেকে কমতে কমতে মাত্র ১৭০ কিলোওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হয়ে আসছিল। এই বিদ্যুৎ দিয়ে আবাসিক/অনাবাসিক সহ¯্রাধিক গ্রাহকের চাহিদা পূরন করা সম্ভব হচ্ছেনা। যেখানে সন্ধ্যা ৭ টা থেকে রাত ২ টা পর্যন্ত আবাসিক/অনাবাসিক সহ¯্রাধিক গ্রাহকের ৭ ঘন্টা বিদ্যুতের চাহিদা ১ মেগাওয়াট কিন্তু ওয়েস্টজোন পাওয়ার ডিস্ট্রেবেশন কোম্পানীর এই লক্কর ঝক্কর মেশিনের বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষমতা মাত্র ১৭০ কিলোওয়াট। তাই প্রত্যেকদিন পালাক্রমে উপজেলার একটি করে লাইন বন্ধ রেখে অপর লাইনগুলো চালিয়ে রেখে বিদ্যুৎ ঘাটতি পূরন করে আসছিল। আর উপজেলা পরিষদের আওতার বাইরের কোনো লাইন ১দিন অথবা কোনো লাইন ২ দিন বন্ধ রেখেও চালাচ্ছিল। তারপরও গ্রাহকরা চরম ক্ষেভের মাঝে এই ভেবে শান্তনা পেত যে আজ না হোক কাল তো বিদ্যুত পাব। কিন্তু বিদ্যুৎ বিভাগের হঠাৎ মাইকিং করে দুঃখপ্রকাশ গ্রাহকদের হৃদয় করে তুলেছে ভারাক্রান্ত। ঘোষনা শুনে গ্রাহকদের মাথায় যেন আকাশ ভেঙ্গে পড়েছে। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির এই যুগে বিদ্যুৎ বিহীন ভূতুড়ে পরিবেশ ভাবতেই গা ছমছম করে ওঠে। শরতের এই ভ্যাপসা গরমে বিদ্যুৎ বিহীন লাইফ ইম্পসিবলই মনে হয়। নিজেদের স্বাদ-আহ্লাদের কথা না হয় বাদই দিলাম। মনপুরায় বিদ্যুৎ বন্ধ থাকায় উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে দেখা দিয়েছে কাজের ধীরগতি। করতে পারছেনা বিদ্যুৎ সংশ্লিষ্ট কাজকর্ম। উপজেলা সদরে অবস্থিত সবচেয়ে বড় হাজীর হাট বাজার ও বিদ্যুত সংযোগপ্রাপ্ত বাঁধের হাট বাজারসহ রাস্তার মোড়ে মোড়ে থাকা সহ¯্রাধিক ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার পাশাপাশি গুনতে হচ্ছে বড় ধরনের লোকসান। পড়ালেখা করতে পারছেনা উপজেলার স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসাগুলোর সহ¯্রাধিক শিক্ষার্থী। বন্ধ হয়ে আছে ছোট-বড় কল কারখানা। হঠাৎ করে বিদ্যুত বিভাগের বন্ধ ঘোষনায় বাসাবাড়িগুলোতে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে ফ্রিজ-রেফ্রিজারেটরে থাকা মাছ, মাংশ,ফল-ফলাদী ও তরী- তরকারী। এতে করে সরকারী-বেসরকারী চাকরিজীবি, শিল্প প্রতিষ্ঠানের মালিক, আড়তদার, ব্যাবসায়ী, শিক্ষক-শিক্ষিকা, স্কুল-কলেজ পড়–য়া ছাত্র/ছাত্রীদের মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।  কেউ কেউ বলছেন, ২ দিনের জন্য বিদ্যুৎ বন্ধ ঘোষনা করে কয়দিন বন্ধ রাখে জানিনা। তবে ওয়েষ্ট জোন পাওয়ার ডিষ্ট্রিবুষন কোম্পানীর ঘোষনা সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে লক্কর ঝক্করভাবে চলা দুর্বল মেশিনটি রিপেয়ারিং করানোর জন্য ঢাকা থেকে প্রকৌশলী আনা হয়েছে। মেশিনের মেরামত কাজের সুবিধার্থে মনপুরা উপজেলায় ওজোপাডিকোর আওতাধীন সকল গ্রাহকদের বিদ্যুৎ বন্ধ থাকবে।

এ ব্যাপারে উপজেলা আবাসিক প্রকৌশলী আঃ সালাম জানান, আমাদের ২টি ইঞ্জিনের মধ্যে ১টি অকেজো আরেকটি বর্তমানে আশানুরূপ বিদ্যুৎ চাহিদা মেটাতে পারছেনা। তাই ঢাকা থেকে প্রকৌশলী এনে মেশিন মেরামতের কাজ চলছে। ঘোষিত সময়ের মধ্যে বিদ্যুৎ সরবরাহ পুররায় স্বাভাবিক হবে বলে তিনে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মদনে সরকারি নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে অবাধে মাছ শিকার

সুদর্শন আচার্য্য, মদন (নেত্রকোণা) ঃ নেত্রকোণার মদনে তিয়শ্রী ইউনিয়নের তিয়শ্রী বাজারের পাশে ...

মদনে অবৈধভাবে চলছে মাছ শিকারের মহোৎসব

সুদর্শন আচার্য্য, মদন (নেত্রকোণা) : নেত্রকোণা মদন উপজেলার মাঘান ইউনিয়নের নয়াপাড়া ও ...