ব্রেকিং নিউজ
Home | আন্তর্জাতিক | ‘ভারমুক্ত’ হতে পারলেন না ফখরুল

‘ভারমুক্ত’ হতে পারলেন না ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার, ১৩ মার্চ, বিডিটুডে ২৪ডটকম : চলমান রাজনৈতিক সহিংসতায় কারণে বিএনপির কাউন্সিল স্থগিত হওয়াতে এবারও ‘ভারপ্রাপ্ত’ মুক্ত হতে পারলেন না মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

জাতীয় কাউন্সিলের তারিখ ঘোষণার পর থেকে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে পূর্ণ মহাসচিব করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছিলো।

আসন্ন কাউন্সিলকে সামনে রেখে দলের ভেতর-বাইরে কৌতূহল ছিল মহাসচিব পদকে ঘিরে। মহাসচিব পদে ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর থাকছেন, নাকি নতুন কাউকে এ দায়িত্ব দেয়া হচ্ছে এ নিয়ে ছিল জল্পনা-কল্পনা। তবে অনেকেই ধারণা করছিলেন, এবার ‘ভারমুক্ত’ হতে যাচ্ছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম।

২০১০ সালের ১৬ মার্চ অ্যাডভোকেট খন্দকার দেলোয়ার হোসেনের মৃত্যুর পর মহাসচিবের পদটি শূন্য হয়।

পরবর্তীতে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের দ্বায়িত্ব দেন। ভারপ্রাপ্ত অবস্থায় কেটে গেছে প্রায় তিন বছর। দীর্ঘ এ সময়ে একাধিকবার মির্জা ফখরুল ‘ভারমুক্ত’ হচ্ছেন এমন গুঞ্জন শোনা গেলেও অধ্যবধি তা হতে পারেননি তিনি। এরআগে তিনি কৃষকদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।

দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস আলী নিখোজ হওয়াসহ বিভিন্ন ইস্যুতে কর্মসূচি পালনকালে বিভিন্ন মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে তাকে কয়েকবার কারাগারে যেতে হয়েছে।

৯ মার্চ দলের কাউন্সিল করার চিন্তাভাবনা থাকলেও স্থান নির্ধারণসহ বেশ কয়েকটি কারণে কাউন্সিল পিছিয়ে দেয়া হয়েছে। ১৯ মার্চ বঙ্গবন্ধু আর্ন্তজাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে দলের কাউন্সিলের প্রস্তুতি নেয়া হয়। এ জন্য ১৩টি উপকমিটি গঠন করা হয়। দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়।

এছাড়া অর্ভ্যথনা কমিটির আহবায়ক করা হয় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে, ব্যবস্থাপনা কমিটির আহবায়ক ছিলেন-স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, প্রচারণা কমিটির আহবায়ক-স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড্রাফট কমিটির আহবায়ক-স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, গঠনতন্ত্র সংশোধন কমিটির আহবায়ক-স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম, স্বেচ্ছাসেবক ও শৃঙ্খলা কমিটির আহবায়ক-স্থায়ী কমিটির সদস্য আ স ম হান্নান শাহ, প্রকাশনা কমিটির আহবায়ক-ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান, অর্থ কমিটির আহবায়ক চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আব্দুল আওয়াল মিন্টু, দপ্তর ও যোগাযোগ কমিটির আহবায়ক যুগ্মমহাসচিব রহুল কবীর রিজভী আহমেদ, জরুরী চিকিৎসা সেবা কমিটির আহবায়ক চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, সাংস্কৃতিক কমিটির আহবায়ক গাজী মাযহারুল ইসলাম ও খাদ্য-আপ্যায়ন কমিটির আহবায়ক সাদেক হোসেন খোকাকে দ্বায়িত্ব দেয়া হয়েছিল।

১১ মার্চ সোমবার বিএনপির সমাবেশ পণ্ড হওয়ার পর খালেদা জিয়া দলের নীতি নিধারণী ফোরামের সঙ্গে বৈঠক করে এ সিদ্ধান্ত নেন। পরে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশররফ হোসেন বিএনপির জাতীয় কাউন্সিল স্থগিত করেন। তবে কবে নাগাদ এ কাউন্সিল হবে তা কিছু বলেননি তিনি।

x

Check Also

‘গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশন ইন স্পেন’ নির্বাচনে মুজাক্কির – সেলিম প্যানেল বিজয়ী

জিয়াউল হক জুমন, স্পেন প্রতিনিধিঃ সিলেট বিভাগের চারটি জেলা নিয়ে গঠিত গ্রেটার ...

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সাথে পর্তুগাল আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা

আনোয়ার এইচ খান ফাহিম ইউরোপীয় ব্যুরো প্রধান, পর্তুগালঃ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহরিয়ার ...