ব্রেকিং নিউজ
Home | আন্তর্জাতিক | ভারতীয় সহযোগিতায় ইরানের চাবাহার বন্দর

ভারতীয় সহযোগিতায় ইরানের চাবাহার বন্দর

স্টাফ রিপোর্টার, ২৮ মার্চ, বিডিটুডে ২৪ডটকম : ইরানের চাবাহার বন্দর নির্মাণ ভূ-রাজনৈতিক কারণে ভারতের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে বিশেষ করে চীনের সাহায্যে পাকিস্তানের গদার সমুদ্র বন্দর তৈরির প্রেক্ষিতে৷ আর তাই এই বন্দর নির্মাণে এগিয়ে এসেছে ভারত।

স্থল বেষ্টিত আফগানিস্তানের বেশিরভাগ বহির্বাণিজ্য হয় পাকিস্তান সমুদ্র বন্দর দিয়ে৷ পাকিস্তানের আপত্তির কারণে স্থলপথে আফগানিস্তানের সঙ্গে ভারতীয় পণ্য রপ্তানি বন্ধ৷ কাজেই বিকল্প রুট হিসেবে ইরানের চাবাহার সমুদ্র বন্দর নির্মাণ ভারতের কাছে জরুরি৷ অর্থাৎ ইরানের মধ্য দিয়ে শুধু আফগানিস্তানের সঙ্গে নয়, তুর্কমেনিস্তানসহ সমগ্র মধ্য এশিয়ার সঙ্গে যুক্ত হতে চায় ভারত।
অন্যদিকে, পাকিস্তান তার গদার গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণ ও পরিচালনার ভার তুলে দিয়েছে চীনকে৷ এর স্ট্র্যাটিজিক গুরুত্ব চীন ও পাকিস্তানের কাছে যথেষ্ট৷ উপসাগরীয় অঞ্চল থেকে ৬০ শতাংশ তেল ও গ্যাস আমদানি করবে চীন এই বন্দর দিয়ে কম খরচে৷ দ্বিতীয়ত, মধ্য এশিয়ার দেশগুলির সঙ্গে চীন ও পাকিস্তানের যোগাযোগের পথ সুগম হবে৷
স্ট্র্যাটিজিক ও ভূ-রাজনৈতিক স্বার্থে ভারত এই বাস্তবতা উপেক্ষা করতে পারে না৷ আফগানিস্তানও সেটা অনুধাবন করেছে৷ তাই সই হয় ভারত-ইরান ও আফগানিস্তানের মধ্যে এক ত্রিপাক্ষিক চুক্তি৷ সেই অনুযায়ী ভারত চাবাহার বন্দর উন্নয়নে ৬০০ কোটিরও রুপি বিনিয়োগ করবে৷ কারণ চাবাহার বন্দর ভারত থেকে পাঠানো ভারী মালপত্র হ্যান্ডেল করার উপযুক্ত নয়৷
চুক্তি অনুযায়ী ইরান তৈরি করে দেবে চাবাহার বন্দর থেকে আফগান সীমান্ত পর্যন্ত হাইওয়ে৷ আফগান সীমান্ত থেকে ভেতরের দিকে ২০০ কিলোমিটার সড়ক তৈরি শেষ করেছে ভারত৷ এই কাজে তালিবানদের হাতে মারা গেছে বহু ভারতীয় নির্মাণ কর্মী৷ চুক্তিতে আফগানিস্তানকেও অঙ্গীকার করতে হয়েছে, প্রকল্পের কাজ শেষ হলে ইরানের বন্দর দিয়ে ভারতের সঙ্গে ব্যবসা-বাণিজ্য অব্যাহত রাখবে আফগানিস্তান৷ মার্কিন বা পাকিস্তানের চাপে যেন কাবুল চাবাহার বন্দর ব্যবহার বন্ধ না করে৷ বিশ্বের কাছে বলতে হবে আফগানিস্তানের পুনর্গঠনে এই বন্দর জরুরি৷
চাবাহার বন্দর নির্মাণে সমস্যা দেখা দেয় গত বছর৷ ইরানের পরমাণু ইস্যুতে ইরানের অশোধিত তেল রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷ বহু দেশ ইরান থেকে তেল আমদানি বন্ধ করে দেয়৷ জাতীয় অর্থনৈতিক কারণে বন্ধ করেনি শুধু ভারত ও চীন৷ পরে মার্কিন চাপে ইরানি তেল আমদানির পরিমাণ অবশ্য কমিয়ে দেয় ভারত৷
এই নিষেধাজ্ঞার ফলে ইরান পড়ে আর্থিক সংকটে৷ তাই চাবাহার বন্দর প্রকল্পে ১০ কোটি মার্কিন ডলার বিনিয়োগের অনুমতি দেয় ইরান৷
x

Check Also

‘গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশন ইন স্পেন’ নির্বাচনে মুজাক্কির – সেলিম প্যানেল বিজয়ী

জিয়াউল হক জুমন, স্পেন প্রতিনিধিঃ সিলেট বিভাগের চারটি জেলা নিয়ে গঠিত গ্রেটার ...

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সাথে পর্তুগাল আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা

আনোয়ার এইচ খান ফাহিম ইউরোপীয় ব্যুরো প্রধান, পর্তুগালঃ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহরিয়ার ...