Home | অর্থনীতি | ব্যবসায়ীদের জন্য নতুন ভ্যাট আইন মাচ বেটার : সালমান

ব্যবসায়ীদের জন্য নতুন ভ্যাট আইন মাচ বেটার : সালমান

স্টাফ রিপোর্টার :  বড় ব্যবসায়ীদের জন্য নতুন ভ্যাট আইন আগের ভ্যাট আইনের চেয়ে বেশি ভালো হবে বলে মনে করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বেসরকারি খাত উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা ও শিল্পপতি সালমান এফ রহমান।

সোমবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে বৃহৎ করদাতা ইউনিট আয়োজিত ‘রাজস্ব সংলাপ’ এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। সালমান এফ রহমান বলেন, পুরাতন আইন থেকে নতুন আইনে যেতে প্রথম ৩ থেকে ৪ মাস কিছুটা সমস্যা হবে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান থেকে শুরু করে ফিল্ড অফিসার পর্যন্ত সবাইকে পরিবর্তিত আইন কার্যকর প্রক্রিয়া সহজ করার উদ্যোগ নিতে হবে।

তিনি বলেন, নতুন ভ্যাট আইন নিয়ে অনেক ভুল বোঝাবুঝি আছে। ব্যবসায়ী সমাজে এটা নিয়ে ভয় আছে। ২০১৫ সালে আমরা প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেছিলাম নতুন ভ্যাট আইন কার্যকরে দেরি করতে। তখন প্রধানমন্ত্রী আমাদের দুই বছর সময় দিয়ে ভ্যাট আইন কার্যকর করতে ২০১৭ সাল নির্ধারণ করেন।

ভ্যাট আইন ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা ব্যবসায়ী সমাজ এটা মেনে নিয়েছি এবং এটাকে স্বাগত জানাচ্ছি। আমরা ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট ১৯৯২ সাল থেকে দিয়ে আসছি। এটা নতুন রেট না। নতুন হচ্ছে পুরাতন আইনে মাল্টিপুল রেট ছিল। সেই মাল্টিপুল রেট কমিয়ে একটি রেটে আনার চেষ্টা হচ্ছে।

‘নতুন যে ভ্যাট আইন আসছে তা বড় ব্যবসায়ীদের জন্য তুলনামূলকভাবে পুরাতন যে আইন আছে তার থেকে মাচ বেটার’। তিনি বলেন, যেহেতু একটি নতুন আইন আসছে, এটা স্বাভাবিক ট্রানজিশনে (একটি পদ্ধতি থেকে অন্য পদ্ধতিতে পরিবর্তন হওয়া) কিছু না কিছু সমস্যা হবে। আমরা চাচ্ছি এই ট্রানজিশন যাতে স্মুথ এবং সুন্দরভাবে হয় সেদিকে আপনাদের (এনবিআর) লক্ষ্য রাখতে হবে।
‘আমাদের ভয় ১ জুলাইয়ের পর ২ জুলাই ফিল্ড অফিসাররা নতুন আইন আমাদের মুখের ওপর দেখাবে এবং আমাদের বলবে আইন হয়ে গেছে এখন আপনাদের টাকা দিতে হবে’।

এ সময় ট্রানজিশন কিভাবে হতে পারে সে বিষয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান এবং ফিল্ড অফিসাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘ঠিক আছে ১ জুলাই থেকে নতুন আইন কার্যকর হচ্ছে, ৩-৪ মাস লাগবে স্মুথ হতে। এই ৩-৪ মাস সব থেকে বেশি সমস্যা হবে। এখন থেকেই আপনারা (এনবিআর) যদি একটা সিস্টেম করতে পারেন, যে ট্রানজিশন সময়টা হবে স্মুথলি। তাহলে দেখবেন ৩-৪ মাসের মধ্যে ব্যবসায়ীরা মানিয়ে নেবেন।’

যারা ট্যাক্স দেয় তাদের ওপর সব নজরদারি করা হয় উল্লেখ করে এনবিআরের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, যারা ট্যাক্স দেয় না তাদের আপনারা ট্যাক্স নেটের (করের আওতায়) ভেতরে ঢোকান। প্রধানমন্ত্রীকে ব্যবসাবান্ধব উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতায় আসার পর গত ৮ বছরে অর্থনীতি ও ব্যবসায়ী সমাজের যে পরিবর্তন হয়েছে তা কেউ অস্বীকার করতে পারবে? এই রুমের ভেতরে যারা আছে তাদের ব্যবসা অনেকগুণ বেড়ে গেছে। এটার কারণ প্রধানমন্ত্রী ব্যবসাবান্ধব।

তিনি আরও বলেন, নিবন্ধিত ব্যবসায়ী ৮ লাখ। এরমধ্যে মাত্র ৩৫ হাজার রিটার্ন দেন। এটা ঠিক না। নতুন ভ্যাট আইনে দেশীয় শিল্পকে উৎসাহিত করা হবে অর্থমন্ত্রী এমন কথা দিয়েছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, অর্থমন্ত্রী বলেছেন, দেশীয় শিল্পকে উৎসাহিত করতে হবে। নতুন ভ্যাট আইনে এমন কিছু করা হবে না যাতে দেশীয় শিল্প ক্ষতিগ্রস্ত হয়। পাশাপাশি রফতানির জন্য আগামী বাজেটে আরও সুবিধা ও ইনসেনটিভ দেয়া হবে।

এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে রাজস্ব সংলাপে এনবিআরের বৃহৎ করদাতা ইউনিটে প্রায় ৮২ শতাংশ রাজস্ব প্রদান করা প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে চন্দ্রিকা কুমারাতুঙ্গার সৌজন্য সাক্ষাৎ

স্টাফ রিপোর্টার :  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন সফররত শ্রীলঙ্কার সাবেক ...

শুরুতেই রনকিকে ফেরালেন মোস্তাফিজ

স্পোর্টস ডেস্ক:  বল হাতে দারুণ ছন্দেই আছেন মোস্তাফিজুর রহমান। ত্রিদেশীয় সিরিজের শেষ ...