Home | বিবিধ | আইন অপরাধ | বিয়ের প্রলোভনে গৃহবধু ধর্ষন : জনতা কতৃক প্রেমিকা আটক অবশেষে থানায়

বিয়ের প্রলোভনে গৃহবধু ধর্ষন : জনতা কতৃক প্রেমিকা আটক অবশেষে থানায়

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল, গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে রবিবার রাতে এক সন্তানের জননী  গৃহবধু (২২)কে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষন কালে বখাটে যুবক মিঠু মিয়া (২৫)কে হাতে নাতে ধরে ফেলে এলাকাবাসী। ইউপি চেয়ারম্যান রাতভর শালিস বৈঠক করে ঘটনা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করায় জনমনে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে।অভিযোগে জানা গেছে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার তালুককানুপুর ইউনিয়নের তাজপুর গ্রামের কালাম প্রধানের ছেলে কাউছারের সাথে পাশ্ববর্তী শিবগঞ্জ উপজেলার ময়দানহাটা ইউনিয়নের দাড়িদহ গ্রামের ওছমান আলীর কন্যা খাদিজা আক্তারের ৫ বছর আগে বিয়ে হয়। তাদের ঘরে একটি ২ বছরের পুত্র সন্তানও রয়েছে। এরপর প্রায় দেড়বছর আগে একই গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে মিঠু মিয়ার (২৫) সাথে খাদিজা আক্তারের মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এই প্রেমের সম্পর্ক থেকে তাদের মধ্যে মাঝে মধ্যে দৈহিক মিলনও ঘটে। এরই জের ধরে গতকাল রাতে কালিতলা জুম্মার ঘর নামক স্থানে এক বন্ধুর বাড়িতে মিঠু ও খাদিজার অনৈতিক কর্মকান্ড স্থানীয় এলাকাবাসী হাতে নাতে ধরে ফেলে। এ সময় মিঠু কৌশলে পালিয়ে গেলেও খাদিজাকে আটকে রেখে চেয়ারম্যান ও এলাকার মাতব্বররা রাতে দফায় দফায় বৈঠক করলেও সুরাহা না হওয়ায় জনমনে তীব্র ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। এ ঘটনায় খাদিজা জানায়, মিঠু তাকে বিয়ে করবে বলে ডেকে নিয়ে এসে ধর্ষন করে। এ ব্যাপারে তালুককানুপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মহোসীন আলী জানান, গতকাল থেকে শালিশেই আছি এবং মেয়ে আমার হেফাজতে আছে। আজ বিকাল ৫টার মধ্যে সুরাহা না হলে মেয়েকে থানায় হস্তান্তর করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে আরও দুই মামলা

স্টাফ রিপোর্টার :   বকেয়া পরিশোধ না করায় ক্ষুদ্রঋণের প্রবক্তা ও বাংলাদেশের একমাত্র ...

‘সংবিধান অনুযায়ী সব করতে দেয়া হলে এত দুর্নীতি হতো না’

স্টাফ রিপোর্টার :  প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহা বলেছেন, সংবিধান এবং ...