Home | টিপস | বিষন্নতা দূরের উপায়গুলো জেনে নিন

বিষন্নতা দূরের উপায়গুলো জেনে নিন

মানুষের সাথে যেমন মন জড়িত তেমন মনের সাথে মন খারাপ থাকাটাও জড়িত।p কাজ পছন্দ অনুযায়ী না হলে মন খারাপ হয় কিংবা কাউকে মনে করেও অনেকেরই মন খারাপ হয়ে যায়। এই ধরনের অনেকগুলো কারণই রয়েছে মন খারাপের পেছনে যা আমাদের সকলেরই জানা। যদি এই ধরনের কিছু হয় তবে আমরা তা নিয়ে খানিকক্ষণ চিন্তা ভাবনা করে মন আবার ভালো করে ফেলি কিংবা আমাদের আসে পাশের মানুষজন বুঝতে পারলে আমাদের খুশি করার চেষ্টা করতে থাকেন তারা।

কিন্তু মন খারাপের এমন কিছু কারণ রয়েছে যা অনেকে গোপন রাখেন। কারণ এইসকল গোপনীয় মন খারাপের কারণগুলো সকলের কাছে উপস্থাপন করা হয়ে ওঠে না।

এতে করে যারা মন খারাপ করে আছেন তারা আরও কষ্টে পড়েন। চলুন তবে দেখে নেয়া যাক এমনই কিছু মন খারাপের কারণ ও তার থেকে মুক্তি পাবার কিছু সহজ উপায়।
প্রত্যাখ্যিত হওয়া

অনেকেই আছেন জীবনে অনেক ধরনের প্রত্যাখ্যানের শিকার হয়েছেন। এই ঘটনাটি অনেক বেশি কষ্টের ও মন খারাপের। কিন্তু সব চাইতে দুঃখজনক হলো প্রত্যাখিত হলে কেউ তা কারো কাছে বলতে পারেন না বা বলেন না। এতে করে মন খারাপ ও কষ্টের মাত্রা আরও বেশি বেড়ে যায়। প্রত্যাখ্যানের ব্যাপারটি মানুষের অনুভূতিতে আঘাত লাগার মতো ঘটনা। তাই এ কারণে কষ্টের মাত্রাও বেশি হয়।

এই কষ্ট থেকে মুক্তি পাওয়া বেশ সহজ একটি কাজ। এর থেকে মুক্তি পেতে শুধুমাত্র দরকার আত্মবিশ্বাসী হওয়া। আত্মবিশ্বাস ও মনের জোর এই কষ্ট থেকে আপনাকে মুক্তি দিতে পারে। কোনো কাজে প্রত্যাখ্যান পেলে নতুন করে আবার কাজটি করার জন্য নিজেকে আত্মবিশ্বাসী করে গড়ে নিন। আর যদি কারো কাছ থেকে প্রত্যাখ্যান পেয়ে থাকেন তবে নিজেকে কষ্ট দেয়ার কোনো কারণ নেই, নিজের অবস্থানের কথা চিন্তা করুন এবং ভাবুন এর থেকে ভালো কিছু আপনার জন্য অপেক্ষা করছে। দেখবেন কষ্টটা কমে আসবে।
প্রশংসা না পাওয়া

যারা একটু লাজুক স্বভাবের এবং আত্মবিশ্বাস যাদের কম, একটু প্রশংসা পেলে তারা খুব খুশি হয়ে ওঠেন। অনেকেই প্রশংসার দাবীদার হওয়া সত্ত্বেও তা পান না। এবং এই ধরনের ঘটনার শিকার অনেকেই। কেউ তাঁর প্রশংসা করে না বিধায় এক সময় মানুষটি নিজেই নিজেকে অযোগ্য ভাবতে থাকেন ও নিজেকে গুটিয়ে রাখেন।

এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া প্রধান উপায় হচ্ছে নিজেকে ভালোবাসা। নিজেকে ভালোবাসতে শিখুন দেখবেন জীবনটা অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে। আপনি যদি নিজেকে পছন্দ করা বা ভালোবাসা শুরু করেন তবে আপনার কেউ প্রশংসা করলো কি করলো না, তা আপনার জন্য কোনো ঘটনাই থাকবে না। আপনি আপনার মতো করে খুশী থাকতে পারবেন।
অপরাধবোধ হওয়া

মন খারাপ কিংবা বিষণ্ণতা অনুভব করার আরেকটি কারণ হচ্ছে মনে মনে অপরাধবোধ হওয়া। ধরুন আপনি না জেনে কিংবা জেনেই কোনো অপরাধ করে ফেলেছেন যার জন্য আপনি বেশ অনুতপ্ত, এই কষ্ট বেশ যন্ত্রণাদায়ক। কারণ অপরাধ ছোট বা বড় যাই হোক না কেন অপরাধবোধটা সহজে কারো কাছে বলা যায় না। এতে করে আরও বেশি কষ্ট বাড়ে।

এই কষ্ট থেকে মুক্তি পেতে চাইলে নিজেকে এই অশান্তি থেকে মুক্তি দিন। কাছের কোনো মানুষের কাছে কথাটি স্বীকার করে ফেলুন। যদি নিতান্তই এই কাজটি না পারেন তবে ভাবুন আপনার কাজটি আপনার এই অনুতপ্তের কষ্টের কারনে পরিবর্তন করা সম্ভব হবে না। আপনি যতই অনুশোচনায় ভোগেন না কেন তা আর কখনোই ফেরত আসবে না। তাই মন থেকে এই অনুশোচনা দূর করে এগিয়ে চলুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মধু খাঁটি কিনা বুঝবেন কীভাবে?

স্টাফ রিপোর্টার :  মধুর রয়েছে অনেক পুষ্টিগুণ। চিনির বিকল্প হিসেবে খাওয়া হয় ...

কর্মক্ষেত্রে এই ভুলগুলো করছেন না তো?

স্টাফ রিপোর্টার :  দিনের একটা বড় অংশ আমাদের কর্মক্ষেত্রে কাটাতে হয়। প্রায় ...