ব্রেকিং নিউজ
Home | রাজনীতি | বিএনপি নেতাকর্মীকে ইলিয়াস পত্নি তলব বিশ্বনাথে বিএনপি ও সহযোগি সংগঠন দু-ভাগে বিভক্তি

বিএনপি নেতাকর্মীকে ইলিয়াস পত্নি তলব বিশ্বনাথে বিএনপি ও সহযোগি সংগঠন দু-ভাগে বিভক্তি

মোহাম্মদ আলী শিপন ,বিশ্বনাথ : দীর্ঘ দিন পরে হলেও নিখোঁজ বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলীর নির্বাচনী আসনেও দলের নেতাকর্মীদের মাঝে বিভক্তি দেখা দিয়েছে। এর আগে সিলেট জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও পৌর বিএনপিতে বিভেদ-বিভক্তি দেখা দিলেও ঐক্য ছিল ইলিয়াস আলীর নির্বাচনী এলাকা বিশ্বনাথে। কিন্তু ইলিয়াস আলী নিখোঁজ হওয়ার পর তাঁর সন্ধান দাবির ইস্যু নিয়ে বিশ্বনাথে বিএনপিতে প্রকাশ্যে বিভক্তি দেখা দেয়। ইতি মধ্যে তাদের বিরুদ্ধে নিস্পত্তি হলেও ফের উপজেলা বিএনপি দু-ভাগে বিভক্তি হয়ে পড়ে। ফলে তাদের এই বিরুদ্ধে নিস্পত্তির কোন উদ্যোগ নেই। যে কোন সময় উভয় গ্র“পের মধ্যে সংঘর্ষের আশংকা করছেন উপজেলাবাসি। ইলিয়াসের মুক্তির আন্দোলনের ইস্যু নিয়ে দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে দলটি। এ ছাড়া ইলিয়াস আলীর মুক্তির আন্দোলনকে কেন্দ্র করে স্থানীয় বিএনপি নেতারা একে অপরের বিরুদ্ধে বিষোদগারও করছেন, তুলছেন নানা অভিযোগও। গত সোমবার ইলিয়াস আলীর সন্ধান দাবিতে রশিদপুর পয়েন্টে ইলিয়াস মুক্তি সাইবার আন্দোলন নামের একটি সংগঠন রাজপথে অবস্থান কর্মসূচি ঘোষনা করে। এতে বিএনপির দুটি গ্র“প পৃথকভাবে একই স্থানে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে। তবে আবদুল হাই গ্র“পে সিলেট জেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক এড.শামছুজ্জামান জামান বক্তব্য রাখেন। অপর গ্র“পে সিলেট জেলা বিএনপির কোন নেতাকে দেখা যায়নি।
এদিকে, সোমবার রাতেই ইলিয়াস পত্নি তাহসিনা রুশদি লুনা উপজেলা বিএনপির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ বেশ কিছু নেতাকর্মী তলব করে বলে জানাযায়। আজ মঙ্গলবার উপজেলা বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিনের নেতৃত্বে বিএনপির কিছু নেতাকর্মী তাহসিনা রুশদি লুনার সাথে ঢাকা দেখা করেন। তবে কি কারণে তাদের তবল করা হল এবিষয়ে বিএনপি নেতৃবৃন্দ জানাননি।
জানাগেছে,ইলিয়াস আলী নিখোঁজের দুই সপ্তাহ পর বিশ্বনাথে বিএনপি দুটি গ্র“পের বিভক্ত হয় পড়ে। উপজেলা বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন চেয়ারম্যান,সাধারণ সম্পাদক গৌছ খান গ্র“প ও যুগ্ম-সম্পাদক লিলু মিয়া চেয়ারম্যান, আবদুল হাই গ্র“প। উপজেলা সদরের বিএনপির দুটি কার্যালয় রয়েছে। একটি সভাপতি গ্র“পের অপরটি যুগ্ম-সম্পাদক আবদুল হাই গ্র“পের। বিএনপির দুটি প্র“পের ফলে যুবদল,ছাত্রদল, সেচ্ছসেবকদলও দুটি গ্র“পে বিভক্ত রয়েছে। উপজেলা বিএনপি দুটি গ্র“পে প্রকাশ্যে অবস্থান নেয়। ইতিমধ্যে উভয় গ্র“পের মধ্যে সিলেট আদালত পাড়ায় বিভিন্ন মামলার হাজিরা দিতে গিয়ে সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে।
ইলিয়াস আলীর সন্ধানে আন্দোলন করার লক্ষ্যে সর্বপ্রথম গত  বছরের ১০ সেপ্টেম্বর গঠন করা হয় “বিশ্বনাথ ইলিয়াস মুক্তি যুব সংগ্রাম পরিষদ”। উপজেলা যুবদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মুমিন মামুনকে আহবায়ক ও উপজেলা যুবদলের বর্তমান যুগ্ম আহবায়ক শামীমুর রহমান রাসেলকে সদস্য সচিব করে ১০১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। অন্যদিকে একই গত বছরের ১ অক্টোবর উপজেলা যুবদল নেতা নিজাম উদ্দিন মেম্বারকে আহবায়ক ও সদর ইউনিয়ন যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক আব্বাস আলী সুমনকে সদস্য সচিব করে “বিশ্বনাথ ইলিয়াস মুক্তি যুব সংগ্রাম পরিষদ”র পাল্টা কমিটি গঠন করা হয়েছে।
যুব সংগ্রাম পরিষদের (মুমিন-রাসেল) কমিটি গঠনের পর গত বছরের ২৪ সেপ্টেম্বর বিশ্বনাথে সাংবাদিক সম্মেলন করে “মাসব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করেন” পরিষদের নেতৃবৃন্দ। কর্মসূচির অংশ হিসেবে গত বছরের ২৫ সেপ্টেম্বর উপজেলা সদরের বাসিয়া ব্রীজে প্রথম মানববন্ধন পালন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপির সহ সভাপতি সারোয়ার হোসাইন চেরাগ ও প্রধান বক্তা ছিলেন যুগ্ম-সম্পাদক সম্পাদক আব্দুল হাই। কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন না উপজেলা বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিনসহ তার অনুসারীরা।
পরদিন ২৬ সেপ্টেম্বর বুধবার একই স্থানে “উপজেলা শ্রমিকদল-যুবদল-সেচ্ছাসেবকদল-ছাত্রদল”র ব্যানারে ইলিয়াস আলীর সন্ধানের দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। সেখানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন। কিন্তু এ মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন না উপজেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক সম্পাদক আব্দুল হাই’সহ তার অনুসারীরা। গত ৩ সেপ্টেবর ইলিয়াস আলীর সন্ধান ও আটক ৯০ নেতাকর্মীর মুক্তির দাবিতে উপজেলা বিএনপি অর্ধদিবস হরতাল পালন করে। কিন্তু ওই হরতালে সভাপতি গ্র“প মাঠে থাকলেও আবদুল হাই গ্র“প ছিল মাঠ ছাড়া। ইলিয়াস আলীর সন্ধান দাবিতে পৃথকভাবে উভয় গ্র“প আন্দোলন চালিয়ে আসছে।
স¤প্রতি আটক বিএনপির ৯০ নেতাকর্মীর কারামুক্ত উপলক্ষে উপজেলা বিএনপি ও সহযোগি সংগঠনের উদ্যোগে উপজেলা সদরের মিছিল-সভা অনুষ্টিত হয়। কিন্তু ওই মিছিল-সভায় আবদুল হাই অনুসারীরা উপস্থিত ছিলেন না। সর্বোপরি, বিভিন্ন কারণে ইলিয়াস বিহীন বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে থাকা অন্তর্দ্বন্ধগুলো প্রকাশ্যে রুপ নেওয়ার কারণে দু’গ্র“পের নেতাকর্মীদের মধ্যে আবারও হামলা-পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে। এ পরিস্থিতি এড়াতে নিরবে দলের সাধারণ নেতাকর্মীরা দলের উচ্চ পর্যায়ের হস্তক্ষেপও কামনা করছেন। সর্ব শেষ সোমবার ইলিয়াস আলীর সন্ধান দাবিতে রশিদপুর পয়েন্টে ইলিয়াস মুক্তি সাইবার আন্দোলন নামের একটি সংগঠন রাজপথে অবস্থান কর্মসূচি ঘোষনা করে। এ কর্মসূচি বিএনপির দুটি গ্র“প প্রায় ৩০ গজের ব্যবধানে পালন করে। এসময় উভয় গ্র“পের নেতাকর্মীর মধ্যে বাগবিতন্ডা হতে দেখা যায়।
এব্যাপারে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক আব্দুল হাই বলেন, এবিষয়ে কোন মন্তুব্য করতে অপারগতা প্রকাশ করেন।
উপজেলা বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন দলে কোন গ্র“পিং নেই দাবি করে বলেন, বিএনপি বিশাল একটি দল। এখানে দলীয় নেতাকর্মীর মধ্যে মত প্রার্থক্য থাকতে পারে। গতকাল ইলিয়াস পতœী তাহসিনা রুশদি লুনার সাথে সাক্ষাতের বিষয়টি তিনি স্বীকার করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সালন্দর ইউনিয়নে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলার সালন্দর ইউনিয়নে বুধবার ১০ নভেম্বর বিকাল ৩টায় সালন্দর ...

আমলাতন্ত্র এখন ‘আমলা লীগ’ হয়ে গেছে: ঠাকুরগাওয়ে মির্জা ফখরুল 

আমলাতন্ত্র  এখন আমলা লীগ হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ...