ব্রেকিং নিউজ
Home | আই টি | বগুড়া পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে মোবাইল অ্যাপস উন্নয়ন কর্মশালা

বগুড়া পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে মোবাইল অ্যাপস উন্নয়ন কর্মশালা

EATL programস্টাফ রিপোর্টার : শেষ হলো বগুড়া পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে পাঁচ দিন ব্যাপি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল অ্যাপস উন্নয়ন কর্মশালা। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অধীনে “জাতীয় পর্যায়ে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন উন্নয়নে সচেতনতা ও দক্ষতা বৃদ্ধি কর্মসূচির” আওতায় ৬৪ জেলায় মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন উন্নয়ন প্রশিক্ষণের অংশ হিসেবে এ কার্যক্রম ০১ মার্চ ২০১৪ শুরু হয় এবং  ০৫ মার্চ সমাপনী  অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শেষ হয়।  সরকারের  তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি(আইসিটি) মন্ত্রণালয় ও বগুড়া পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট কম্পিউটার  সায়েন্স  বিভাগের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এ কর্মশালায় কারিগরি সহযোগিতা দেয় এথিক্স অ্যাডভান্সড টেকনোলজি লিমিটেড(ইএটিএল)।
বগুড়া পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে অনুষ্ঠিত পাঁচ দিন ব্যাপি  এই প্রশিক্ষণে প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষার মাধ্যমে জেলার বিভিন্ন  শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ৪২ জন প্রশিক্ষনার্থীকে  নির্বাচিত করা হয় এবং প্রশিক্ষণ শেষে ৪২ জনকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি(আইসিটি) মন্ত্রণালয় কর্তৃক সনদপত্র তুলে  দেওয়া হয়।এই কর্মসূচির মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা ৫ দিন ব্যাপি প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কিভাবে জাভা প্রোগ্রামিং ব্যবহার করে  বিভিন্ন ধরণের মোবাইল অ্যাপস তৈরির করা যায় সে সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা লাভ করে যা আমাদের দৈনন্দিন জীবন যাত্রার মান পরিবর্তন ও আর্থ–সামাজিক উন্নয়ন ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে। এই সকল প্রশিক্ষনার্থীরা  একই প্রকল্পের আওতায় অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় পর্যায়ের অ্যাপ্লিকেশন নির্মাণ প্রতিযোগিতায়ও অংশগ্রহণ করতে পারবে।
কর্মশালার শেষ দিকে ব্যবহারিক ক্লাসের মাধ্যমে প্রশিক্ষণার্থীরা বিভিন্ন  ধরনের মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনও তৈরী করেন।সরকারী আযিযুল হক কলেজের মেধাবী শিক্ষার্থী মোঃ কামরুল হাসান তৈরি করা “মোবি সেটেলমেন্ট” অ্যাপটি সেরা  অ্যাপ হিসেবে  নির্বাচিত হয় এবং সিম্ফনীর পক্ষ থেকে পুরস্কার হিসেবে একটি অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোন তুলে দেওয়া হয়।মোবি সেটেলমেন্ট হলো একটি ভূমি পরিমাপ বিষয়ক অ্যাপ। এর মাধ্যমে সহজে  বিভিন্ন আকৃতির ভুমির পরিমাপ ও অন্য এককে রুপান্তর করা যায়।
পাঁচ দিন ব্যাপি কর্মশালার প্রথম ও সমাপনী দিনে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন সরকার, কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান জনাব মোহাম্মদ আলী সহ বিভাগের অন্যান্য শিক্ষকগণ। আরো উপস্থিত ছিলেন জনাব প্রত্যয় হাসান,নেজারত ডেপুটি কালেক্টর, বগুড়া।
পুরো প্রকল্পে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে ইএটিএল ও এমসিসির সাথে আরও কাজ করছে বেসিস,মাইক্রোসফট,গ্রামীণফোন, রবি,নোকিয়া,সিম্ফনি,এসওএল কোয়েস্ট ও গুগল ডেভেলপার গ্রুপ ঢাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

আলোকস্বল্পতার কারণে পরিত্যক্ত সিলেট -খুলনার ম্যাচটি

স্পোর্টস ডেস্ক :   গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি আর লাইভ সম্প্রচারে আলোকস্বল্পতার কারণে ...

ভিসা ছাড়াই যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের অনুমতি পাচ্ছেন ইসরাইলের নাগরিকরা

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : ভিসা ছাড়াই যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের অনুমতি পাচ্ছেন ইসরাইলের নাগরিকরা। সোমবার ...