Home | বিবিধ | পরিবেশ | ফকিরহাটে প্রায় বিলুপ্তি গ্রীষ্মের চিরচেনা রূপ রঙে রাঙা কৃষ্ণচূড়া

ফকিরহাটে প্রায় বিলুপ্তি গ্রীষ্মের চিরচেনা রূপ রঙে রাঙা কৃষ্ণচূড়া

সুমন কর্মকার : আকাশে গনগনে সূর্য। প্রখর রোদ। তপ্ত বাতাস। ছায়াশূন্য পথে তৃষ্ণার্ত পথিক আর হঠাৎ করেই ঝড়ো হাওয়ার তোড়ে উন্মত্ত প্রকৃতি। এ যেন গ্রীষ্মের চিরচেনা রূপ। গ্রীষ্ম কেবল আগুনই ঝরায় না, লাল রঙে কৃষ্ণচূড়ার পসরা সাজিয়ে মনও কাড়ে। কৃষ্ণচূড়া এ সময় নিস্প্রাণ প্রকৃতির রুক্ষতা ছাপিয়ে প্রকৃতি নিজেকে মেলে ধরে আপন মহিমায়।
“কৃষ্ণচূড়া ফুল” নামটা মনে আসলেই হৃদয়ের এক কোণে ফুটে উঠে সুখময় স্মৃতি। গ্রীষ্মে ডালে ডালে চোখ ধাঁধানো রঙের ঔজ্জ্বল্য ছড়ায় রক্তলাল কৃষ্ণচূড়া। দীর্ঘ প্রসারিত গাছে ফুলের প্রাচুর্যে লাল হয়ে ওঠে আকাশ-বাতাস। এ যেন লাল রঙের এক মায়া। যে কারো চোখে এনে দেয় শিল্পের দ্যোতনা। গাছে গাছে কৃষ্ণচূড়া সময়ের শিহরণ, প্রকৃতি যখন প্রখর রৌদ্রে পুড়ছে কৃষ্ণচূড়া ফুল তখন জানান দেয় তার সৌন্দর্য্যের বার্তা। প্রখর রৌদ্রে পায় প্রাণ। প্রকৃতির নীল আকাশের ক্যানভাসে গাঢ় লাল রঙ জ্বলতে থাকে। রূপ-রঙ ও গন্ধে গ্রীষ্ম আয়োজন আমাদের জন্য ভালোবাসার এক অপার প্রাপ্তি। প্রকৃতির রক্ষতা ও জীবনের যান্ত্রিকতা ভুলিয়ে যা আমাদের দেয় অপরিমেয় স্বস্তির অনাবিল প্রশান্তি।
জানা যায়, কৃষ্ণচূড়া ঈধবংধষঢ়রহরবধব গোত্রের উবষড়হরী ৎবমরধ প্রজাতির আকর্ষণীয় ফুলবিশিষ্ট গাছের নাম। এ গাছের মধ্য থেকে লম্বা গড়নের মাথা ছড়ানো। ফুল ফোটে এপ্রিল থেকে জুন-জুলাই মাস পর্যন্ত। কমলা অথবা লাল রঙের আকর্ষণীয় ফুলের ডালের গুচ্ছবদ্ধ। আগস্ট ও অক্টোবরের মাঝামাঝি ফল ধরে। শুঁটি ৩০-৬১ সেমি লম্বা হয়। চমৎকার পাতা ও সুন্দর ফুলের জন্য সারাদেশে জনপ্রিয় কৃষ্ণচূড়া। বাগান ও রাস্তার পাশেই সাধারণত দেখা যায় কৃষ্ণচূড়া গাছ।
তবে এখন গ্রামবাংলার প্রকৃতিতে কোথাও কৃষ্ণচুড়া, কোথাও সোনালু, আবার কোথাও কদম ফুলের মেলা। কদম ফুল চোখে পড়লেও বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলাতে এখন খুববেশি শোভা পাচ্ছে না কৃষ্ণচূড়ার মেলা। এ গাছ শুধু সৌন্দর্য্য নয় অনেক ঔষধী গুণেও সমৃদ্ধ।
সরেজমিনে সদর উপজেলার আট্টাকি গ্রামে একটি কৃষ্ণচূড়া গাছ দেখা যায়, ফুলের মনমাতানো সৌরভ আর বাহারি অভ্যর্থনা এলাকার মানুষের দৃষ্টি কাড়ছে। স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, কৃষ্ণচূড়া গাছ অতীতে যেসব গাছ লাগানো হয়েছে তা এখন বড় হয়ে ফুল, ফল ধরছে। তবে এখন প্রায় বিলুপ্তির পথে এসব গাছ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রাজারহাটে তিস্তার পানি বৃদ্ধি, চরাঞ্চলে ৩ হাজার মানুষ পানি বন্দি

আলতাফ হোসোড়ন সরকার, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) : উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে ...

সাতক্ষীরা বাইপাস সড়কের পাশে তালের বীজ বপন কর্মসূচির উদ্বোধন

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : সাতক্ষীরা বাইপাস সড়কের দুইপাশ দিয়ে তালের বীজ বপন কর্মসূচির ...