ব্রেকিং নিউজ
Home | আন্তর্জাতিক | প্রয়োজনে সরকার অচলের ঘোষণা খালেদার

প্রয়োজনে সরকার অচলের ঘোষণা খালেদার

স্টাফ রিপোর্টার, ২৪ মার্চ, বিডিটুডে ২৪ডটকম : লাগাতার আন্দোলনে সরকারকে বিদায় দিতে পুলিশ ও প্রশাসনসহ সর্বস্তরের মানুষকে এক কাতারে আসার আহবান জানিয়েছেন বিরোধী দলীয় নেতা ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

তিনি এও বলেছেন, “সবাই প্রস্তুত থাকুন। প্রয়োজনে সরকারকে অচল করে দেওয়া হবে।”

রোববার দুপুরে বগুড়া শহরের মাটিডালি বিমান মোড়ে আয়োজিত শোকসমাবেশে দেওয়া বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় আগামী ২৬ মার্চ বিএনপি কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করবে বলেও ‍জানান খালেদা জিয়া।

এছ‍াছা জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসেন সাঈদীর বিরুদ্ধে ফাঁসির আদেশ পরবর্তী সহিংসতায় নিহতদের প্রতি পরিবারকে এক লক্ষ টাকা আর্থিক সহায়তা দেন খালেদা জিয়া।

পুলিশের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে রাজপথে নেমে আসার জন্য বগুড়াবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, “সেনাবাহিনীও পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাস্তায় নেমেছিলো। কিন্তু গুলি করেনি।”

তিনি বলেন, “সেনাবাহিনী বিদেশে যায় শান্তিরক্ষার জন্য। কিন্তু এ দেশেই যদি শান্তি না থাকে, তাহলে তারা প্রশ্নের সম্মুখীন হবে। তাই সবাইকে এক কাতারে এসে এ সরকারকে বিদায় জানাতে হবে।”

খালেদা বলেন, “সীমান্তে মানুষ হত্যা হয়। অথচ এর প্রতিবাদ হয় না, বিচার হয় না। এরপরও তিনি (শেখ হাসিনা) কিভাবে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে থাকেন।”

তিনি বলেন, “আমরা অনেক রক্ত দিয়েছি। তবুও সরকারের রক্ত পিপাসা মেটেনি। রাষ্ট্রীয় শোকের দিনেও যশোরের মুজিবনগরে বোমায় বাবা-কন্যাকে এক সঙ্গে হত্যা করা হয়েছে। এসব হত্যাকাণ্ডের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে জবাব দিতে হবে।”

খালেদা বলেন, “বিগত চার বছরে ডেসটিনি, হলমার্ক, শেয়ারবাজার, পদ্মাসেতুসহ নানা অপকর্ম থেকে সরকার নিজেদের বাঁচাতে এবং ক্ষমতায় টিকে থাকতে দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে চায়। কিন্তু জনগণ সে সুযোগ কখনোই দেবে না।”

“মানুষের দৃষ্টি অন্যদিকে ঘুরাতে সরকার নিজেরাই সংখ্যালঘুদের উপর হামলা চালাচ্ছে” অভিযোগ করে তিনি বলেন, “রামুতে বৌদ্ধ বিহার ভাঙচুর ও নিরীহ মানুষের উপর হামলার ঘটনায় মূল হোতাকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিদেশ সফরের সঙ্গী করেছেন।”

খালেদা জিয়া বলেন, “সরকারের পায়ের নিচে মাটি নেই। এজন্য তারা নতুন করে পদ্মাসেতু করার সুর তুলে নাটক সাজিয়েছে।”

সঠিক সিদ্ধান্ত নিলে বিডিআরের ঘটনায় এতো প্রাণ দিতে হত না মন্তব্য করে খালেদা জিয়া বলেন, “পিলখানার ঘটনার প্রথম তদন্তকারী জাহাঙ্গীর রিপোর্ট কেন প্রকাশ করা হচ্ছে না। একদিন এসব প্রকাশ করা হবে এবং বিচার হবে।”

এর আগে মঞ্চে আরো বক্তব্য রাখেন- বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যরিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ড. আবদুল মঈন খান, যুবদল সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, জামায়াতের চট্রগ্রাম মহানগরীর আমির ও  সংসদ সদস্য শামসুল ইসলাম প্রমুখ।

x

Check Also

‘গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশন ইন স্পেন’ নির্বাচনে মুজাক্কির – সেলিম প্যানেল বিজয়ী

জিয়াউল হক জুমন, স্পেন প্রতিনিধিঃ সিলেট বিভাগের চারটি জেলা নিয়ে গঠিত গ্রেটার ...

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সাথে পর্তুগাল আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা

আনোয়ার এইচ খান ফাহিম ইউরোপীয় ব্যুরো প্রধান, পর্তুগালঃ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহরিয়ার ...