ব্রেকিং নিউজ
Home | জাতীয় | প্রধানমন্ত্রীর আগ্রহে (আইইউটি) মেয়েদের লেখাপড়ার সুযোগ দেয়া হয়েছে :পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর আগ্রহে (আইইউটি) মেয়েদের লেখাপড়ার সুযোগ দেয়া হয়েছে :পররাষ্ট্রমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার : পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর আগ্রহে গত ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষ থেকে ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজিতে (আইইউটি) মেয়েদের লেখাপড়ার সুযোগ দেয়া হয়েছে। পাশাপশি মেয়েদের থাকার ব্যবস্থা করার জন্য সরকার টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। আপাতত বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাদের অস্থায়ীভাবে থাকার ব্যবস্থা করেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়টি চমৎকার পরিবেশে শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আমি আশা করি, এ বিশ্ববিদ্যালয়টি শুধু মুসলিম বিশ্ব নয়, আন্তর্জাতিক পর্যায়ে স্বীকৃতি বয়ে নিয়ে আসবে।

তিনি বুধবার সকালে গাজীপুরের বোর্ডবাজারে ওআইসির অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি (আইইউটি)-এর ৩১তম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

সমাবর্তন অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন- আইইউটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুনাজ আহমেদ নুর।অনুষ্ঠানে ওআইসির মহাসচিব ও আইইউটির আচার্য ড. ইউসুফ বিন আহমেদ আল-ওথাইমিনের বাণী পাঠ করেন আইইউটির টেকনিক্যাল অ্যান্ড ভোকেশনাল অ্যাডুকেশন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক চি কুম ক্লেমেন।

এছাড়াও বক্তব্য দেন- আইইউটির গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মাদ সাঈদ আলালাম আলজাহ্রানী এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক এনায়েত উল্লাহ পাটোয়ারী।

সমাবর্তন অনুষ্ঠানে মন্ত্রী আরো বলেন, দক্ষতা, জ্ঞান ও প্রযুক্তির মাধ্যমেই সক্ষমতা অর্জন করা সম্ভব। এ লক্ষ্যেই আইইউটি তার অবদান রেখে যাচ্ছে এবং শিক্ষার্থীদের মধ্যে তা বিতরণে কাজ করছে। অতীতে অনেক মুসলিম জ্ঞানী ও বিজ্ঞানী বিভিন্ন ক্ষেত্রে অনেক অবদান রেখে গেছেন এবং গৌরবময় সেই ইসলামী উম্মাহ আমরা বহন করে চলছি। এ আলোকেই তরুণ শিক্ষার্থীরা কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে পরিবর্তনশীল জ্ঞান-বিজ্ঞান অনুশীলন করে গৌরবময় মুসলিম উম্মাহকে আগামীতে আরো এগিয়ে নিতে সক্ষম হবে।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে পৌঁছলে আইইউটির উপাচার্য, সিন্ডিকেট ও একাডেমিক কাউন্সিলের সদস্যবৃন্দ তাকে  স্বাগত জানান।মন্ত্রী গাউন পরে আনুষ্ঠানিক সমাবর্তন শোভাযাত্রা সহকারে অনুষ্ঠানের মূল মঞ্চে হাজির হন।

কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফলের জন্য নাইজেরিয়ার শিক্ষার্থী ইব্রাহিম আদামুকে ওআইসি পদক এবং বাংলাদেশের ইরতিজা ইনাম কবির, আবির আহসান, ওমর সাদাব চৌধুরী ও সাব্বির আহমেদকে আইইউটি স্বর্ণপদক ও সনদ দেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে মাস্টার্স ও ব্যাচেলর ডিগ্রিপ্রাপ্ত ৩১৬ জনকে সনদ প্রদান করা হয়। এদের মধ্যে সর্বাধিক ডিগ্রিপ্রাপ্তরা হচ্ছেন বাংলাদেশের। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথিকে আইইউটির ক্রেস্ট দেয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

আলোকস্বল্পতার কারণে পরিত্যক্ত সিলেট -খুলনার ম্যাচটি

স্পোর্টস ডেস্ক :   গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি আর লাইভ সম্প্রচারে আলোকস্বল্পতার কারণে ...

ভিসা ছাড়াই যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের অনুমতি পাচ্ছেন ইসরাইলের নাগরিকরা

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : ভিসা ছাড়াই যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের অনুমতি পাচ্ছেন ইসরাইলের নাগরিকরা। সোমবার ...