Home | আন্তর্জাতিক | প্রণবের সঙ্গে সাক্ষাৎ বাতিল করায় খালেদার কড়া সমালোচনা

প্রণবের সঙ্গে সাক্ষাৎ বাতিল করায় খালেদার কড়া সমালোচনা

স্টাফ রিপোর্টার, ৪ মার্চ ২০১৩, বিডিটুডে ২৪ ডটকম : বাংলাদেশ সফররত ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির সঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পূর্ব নির্ধারিত সাক্ষাৎ বাতিলে কড়া সমালোচনা করেছে পশ্চিমবঙ্গের সবচেয়ে বড় বাংলা দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা। এই সাক্ষাৎ বাতিলের জন্য খালেদা জামায়াতের ডাকা হরতালকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করেছেন বলেও খবরে সমালোচনা করা হয়। এছাড়া নির্বাচনের আগে তার ভারত বিরোধিতার বিষয়টি জনগণের কাছে প্রচারের ব্যাপার রয়েছে বলে উল্লেখ করেছে তারা।

প্রকাশিত প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, ভারতীয় কূটনীতিকরা মনে করছেন খালেদা জিয়ার এই পদক্ষেপ ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক তো বটেই, বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ রাজনীতির ক্ষেত্রেও তা সুদূরপ্রসারী বার্তা দিয়েছে।

রাষ্ট্রপতি হওয়ার পরে প্রথম বিদেশ সফরের গন্তব্য হিসেবে প্রণব নিজেই বেছে নিয়েছেন বাংলাদেশকে। বর্ষীয়াণ এই রাষ্ট্রপতি হেসে বলেছেন, ‘এ দেশকে তো আমার বিদেশ বলেই মনে হয় না। নিজের ভাষায় কথা বলি, ভীষণ চেনা মুখগুলো।’  আর ভারতীয় হাইকমিশনে দুলাইনের মেইল পাঠিয়ে প্রণববাবুর সেই সফরই বয়কট করেছেন খালেদা জিয়া।

খালেদা জিয়ার এ আচরণ যে ভারত সহজভাবে নেয়নি পত্রিকাটির এই রিপোর্টে তা তুলে ধরা হয়েছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, খালেদা জিয়া এক রকম ঝুলোঝুলি করেই গত নভেম্বরে দিল্লি সফরের আমন্ত্রণ আদায় করেছিলেন। দিল্লি গিয়ে তিনি সফরের শেষ দিনে প্রণব মুখার্জির সঙ্গে দেখা করে অনেক প্রতিশ্রুতি দিয়ে এসেছিলেন। তারপর ১৭ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় সালমান খুরশিদের সঙ্গে বৈঠকে জানিয়েছিলেন, প্রণববাবুর সঙ্গে তার অনেক কথা রয়েছে। কিন্তু রোববার প্রণবের সঙ্গে বৈঠক বাতিল করে খালেদা বুঝিয়ে দিয়েছেন, সামনের নির্বাচনে ভারত-বিরোধিতার সুর চড়ানোই হবে তার রণকৌশল।

খালেদার এই পদক্ষেপ নিয়ে ভারতের পররাষ্ট্রসচিব রঞ্জন মাথাই বলেন, ‘খালেদা জিয়া রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে আসবেন না বলে জানিয়েছেন। ব্যাস এর বেশি কিছু বলা আমাদের শোভা পায় না।’

এ বিষয়ে প্রণব মুখার্জির প্রতিক্রিয়াও তুলে ধরা হয়। ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনের এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে আনন্দবাজার জানায়, সকালে রওনা হওয়ার আগেই প্রণব খালেদার সাক্ষাৎ বাতিলের খবরটা পান। এসময় প্রণববাবুর মুখের হাসি কিছুক্ষণের জন্য উধাও হয়ে যায়। তবে তিনি এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করেননি।

একদিকে যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোচ্চ বিচারের দাবিতে শাহবাগে গণজাগরণ মঞ্চের আন্দোলন আর অন্যদিকে চলমান জামায়াত-শিবিরের তাণ্ডব ও হামলা মোকাবেলায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে সরকার। তারপরও রোববার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ কথা বলেছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি। নতুন কোনও কথা বলতে তো তিনি আসেননি, বলার কথাও নয়। তবু তার এই পাশে থাকাটাই হাসিনাকে বল-ভরসা দেবে।  এভাবেই প্রতিবেদনটি শেষ করে আনন্দবাজার।

x

Check Also

পর্তুগাল প্রবাসী মোহাম্মদ হান্নানের লাশ ১৫ দিন ধরে একটি হাসপাতালে

আনোয়ার এইচ খান ফাহিম ইউরোপীয় ব্যুরো প্রধান, পর্তুগাল। পর্তুগালের সানতারাই শহরের একটি ...

পর্তুগালের লিসবনে পর্তুগীজ ভাষা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এর শুভ উদ্বোধন

আনোয়ার এইচ খান ফাহিম বিশেষ প্রতিনিধি, পর্তুগাল। পর্তুগালের রাজধানী লিসবনে ৮ই মে ...