Home | আন্তর্জাতিক | প্যানোরামায় প্রচারণার ব্যাপারে মোহম্মদ জুবায়ের ব্যাখ্যা

প্যানোরামায় প্রচারণার ব্যাপারে মোহম্মদ জুবায়ের ব্যাখ্যা

jubairআবদাল হোসাইন লন্ডন প্রতিনিধি: বিবিসি প্যানোরামা সুকৌশলে অপপ্রচার চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের প্রথম নির্বাহী মেয়র লুতফুর রহমানের কমিউনিটি মিডিয়া এডভাইজার মুহাম্মদ জুবায়ের। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, চ্যানেল এস- মেয়রকে নিয়ে তিনি কোনো প্রতিবেদন না করলেও তাঁর চ্যানেল এস এওয়ার্ড নিয়ে করা প্রতিবেদনের একটি অংশ প্যানারোমা এমনভাবে উপস্থান করেছে যেন তিনি মেয়র লুতফুর রহমানকে বাড়তি সুবিধা দেয়ার লক্ষ্যেই ঐ প্রতিবেদন করেছেন। তিনি অভিযোগ করেন, প্যানারোমাকে ঐ সব প্রতিবেদন নিয়ে সুনির্দিষ্ট জবাব দেয়া হরেও তার কোনো জবাব অনুষ্ঠানে তারা প্রচার করেনি। মেয়র লুতফুর রহমানের মিডিয়া এডভাইজার হিশেবে চরতি এপ্রিল মাসেই তাঁর চুক্তিভিত্তিক দায়িত্ব শেষ হচ্ছে। দায়িত্বের শেষ এসে তাঁকে নিয়ে নানা আলোচনা এবং প্রচারণার ব্যাখা দেয়ার পাশাপাশি তিন বছরে তাঁর অভিজ্ঞতার কথা বর্ননা করেছেন জবায়ের।

অতি সম্প্রতি প্রচারিত প্যানোরামায় তাকে নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণার জবাবে মেয়রের এই এডভাইজার বলেন, তারা আমার বেতনের বিষয়টিকে এমনভাবে উপস্থাপন করেছে যেনো ঐ মাপের বেতন পাওয়ার অধিকার নেই আমাদের। তিনি দাবি করেন, যথাযথ নিয়ম মেনেই তাকে মেয়রের এডভাইজার হিশেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছিল এবং গত তিন বছর তিনি তাঁর কর্মচুক্তি অনুযায়ী কমিউনিটি মিডিয়ার সাথে যথাসম্ভব কাজ করেছেন।  জুবায়ের আরো বলেন, লন্ডন মেয়র বরিস জনসনের  এডভাইজার হিশেবে কাজ করছেন টেলিগ্রাফের একজন সাংবাদিক, যিনি একই সাথে সবচেয়ে বেশী সক্রিয় রয়েছেন মেয়র লুতফুর এবং সাবেক মেয়র ক্যান লিভিংস্টনের বিরুদ্ধে লেখালেখিতে। ঐ সাংবাদিক যুক্তি আর নীতি কথা দিয়ে তাঁর মত  মতো একজন কমিউনিটি সাংবাদিকের বিরুদ্ধেও লেখালেখি করে  যাচ্চেছন।
প্যানোরামা চ্যানেল এস এবং মেয়রের এডভাইজার হিশেবে কাজ নিয়ে যে প্রশ্ন তুলেছে তার জবাবে বিবৃতিতে বলা হয়, চ্যানেল এস থেকে সপ্তাহে তিন দিনের কাজ বাদ দিয়েই জুবায়ের মেয়র অফিসের চাকুরি নিয়েছিলেন। স্বার্থের দ্বন্দ্বের (কনপ্লিক্ট অব ইন্টারেস্ট) কথা মাথায় রেখে তিনি এডভাইজারের কাজ নেয়ার পর থেকে কাউন্সিল সংশ্লিষ্ট কোনো প্রতিবেদন করা থেকে বিরত থাকেন। তিনি বলেন, বিবিসি প্যানোরামা ব্রিটিশ কারী এওয়ার্ড এবং চ্যানেল এস এওয়ার্ডের নিউজে মেয়রকে বাড়তি সুবিধা দেয়া হয়েছে বলে প্রশ্ন তুলে। তিনি অনুষ্ঠান দুটি কাউন্সিল বা মেয়র অফিস আয়োজিত কিংবা কাউন্সিল বা মেয়রের ব্যাপারেও ছিলো না বলে প্যানোরামাকে সুনির্দিষ্ট জবাব দেন। মেয়র নিজেও প্যানোরামার সাংবাদিকের কাছে একই কথা বলেন এবং এ বিষয়ে লন্ডন মেয়র এবং সাবেক ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রীদের অফিসে নিযুক্ত মিডিয়া এডভাইজারদের কথা স্মরণ করিয়ে দেন। কিন্তু প্যানোরামা এসব জবাব সুকৌশলে এড়িয়ে যায়।
প্যানোরামায় চ্যানেল এস এওয়ার্ড নিয়ে জুবায়েরর করা প্রতিবেদন থেকে শুধু মেয়রের অংশ দেখিয়ে প্রচার করেছে যে তিনি মেয়রকে নিয়েই নিউজ করেছে। অথচ এ বিষয়ে তাঁর দেয়া ব্যাখ্যা প্রচার করা হলে প্যানোরামার দাবি টিকত না। বিভিন্ন মিডিয়া হাউজে গ্রান্টস প্রদান নিয়ে প্যানোরামা ও অন্য মিডিয়ায় প্রচারণার জবাবে লুতফুর রহমানের এই মিডিয়া এডভাইজার বলেন, মেয়র প্রশাসন শুধু চ্যানেল এসকে নয়, কমিউনিটি মিডিয়ায় আরো যারা বড় ইভেন্টের আয়োজক তাদেরকে আবেদনের ভিত্তিতে এবং অনুষ্ঠানের গুরুত্ব বিবেচনায় ইভেন্ট গ্রান্টস দিয়েছে। এছাড়া ২০১৩ সালে একটি ক্যাম্পেইন উপলক্ষে কমিউনিটির বিভিন্ন পত্রিকা ও  টিভিগুলোতে বিজ্ঞাপন দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, টাওয়ার হ্যামলেটস কমিউনিটির কল্যাণ ও সমাজের উন্নয়নে এসব মিডিয়ার অবদান তুলনায় কাউন্সিলের দেয়া গ্রান্টস এবং বিজ্ঞাপন অতি সামান্য।
চ্যানেল এস এর চীফ রিপোর্টার ও লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের ট্রেজারার  মুহাম্মদ জুবায়ের বলেন, ব্রিটেনের ১৫ জন নির্বাচিত মেয়রের মধ্যে একমাত্র এশিয়ান মেয়র লুতফুর রহমানের এডভাইজার হিশেবে কাজ করতে পারাটা তার জন্য যতোনা গৌরবের ছিলো তার চেয়ে বেশী ছিলো শিক্ষণীয়। তাঁর এই নিয়োগ চুক্তি ভিত্তিক নির্ধারিত সময়ের জন্য হলেও তিনি কাউন্সিলে কোনো স্থায়ী চাকুরী নেয়ার চেষ্টা করেননি।
বিবিসি ও আল জাজিরার সাবেক সিনিয়র সাংবাদিক মার্ক সেডনও প্রায় সমান সময়ে মেয়রের মিডিয়া এভাইজার দায়িত্ব পালন করেছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, তাঁর মতো উচ্চ মাপের সাংবাদিককে কাছ থেকে জানার বিষয়টিও ছিলো আলাদা আনন্দের। সাংবাদিক জুবায়ের তাঁর বিবৃতিতে বলেন, শুরু থেকেই মূলধারার পত্রিকার দুজন সাংবাদিক বিশেষভাবে তার বিরুদ্ধে লেখালেখি চালিয়ে আসছেন। তাঁর ঐসব সাংবাদিকদের তাঁকে নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণার জবাবে জুবায়ের বলেন, তাঁর মতো একজন অখ্যাত সাধারণ  বাংলাদেশী সাংবাদিক নির্বাহী মেয়রের এডভাইজার হওয়াটা অনেকের মনকষ্টের কারণ হয়েছে। বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত মেয়র লুতফুর রহমানের পাশে থেকে ১ দশমিক ২ বিলিয়ন পাউন্ডের বাজেট পরিকল্পনার বিষয়টিও ঐসব সমালোচকদের মনে ঘৃণার জন্ম দিয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।
প্যানোরামা প্রকাশের পর সহকর্মীসহ কমিউনিটির মানুষের সহমর্মীতা এবং সমর্থন তাঁকে অনুপ্রানিত করেছে। তাঁকে নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমের অপপ্রচার সাংবাদিকতার পাশাপাশি কমিউনিটির কল্যাণে কাজ করতে আরো বেশি সাহসী ও সততার সাথে যুক্ত হতে শক্তি জুগিয়েছে বলে মন্তব্য করেন মোহাম্মদ জুবায়ের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ভারতে মাওবাদীদের হামলায় ২৬ পুলিশ নিহত

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক :  ভারতে ছত্তিশগড়ে একটি পুলিশ বহরে মাওবাদী গেরিলাদের হামলায় অন্তত ...

ফ্রান্সে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পুলিশ-বিক্ষোভকারী ব্যাপক সংঘর্ষ

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক :  ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রথম দফার ফলাফল প্রকাশের পর প্যারিসে ...