ব্রেকিং নিউজ
Home | সারা দেশ | পোকা দমনে আলোক ফাঁদ

পোকা দমনে আলোক ফাঁদ

pic1(4)মোহাম্মদ আলী শিপন ,বিশ্বনাথ: ফসলের অনেক ক্ষতি করে পোঁকা। এর থেকে পরিত্রাণ পেতে বিভিন্নভাবে লড়াই করেন কৃষক। নামী-দামি কোম্পানীর কিটনাষকের ব্যবহার করেন। তাতেও কোন কাজ হয় না। ইদানিং পোঁকা দমনে কৃষকেরা ‘আলোক ফাঁদ’ পদ্ধতি গ্রহন করছেন। এতে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে কৃষক কূলে। পোকা দমন করে প্রশান্তি পাচ্ছেন কৃষকেরা। পরিশ্রম আর ঘুমহীন রাত পার করে পোকা দমনে ব্যস্থ সময় এখন কাটাচ্ছেন সিলেটের বিশ্বনাথের বেশ কয়েকজন কৃষক। সারা বছর সুখ শান্তিতে থাকার আশায় তারা এ প্রচেষ্ঠা অব্যাহতভাবে চালিয়ে যাচ্ছেন। এতে কমে যাচ্ছে কিটনাষকের ব্যবহার।
উপজেলার আটটি ইউনিয়নের প্রায় ১৬টি জায়গায় ‘আলোক ফাঁদ’ দিয়ে পোকা দমন করা হচ্ছে। কৃষি অফিসের নির্ধারিত কৃষকেরা এ পদ্ধতি পালন করছেন। এছাড়া আরোও কিছু এলাকায় পোকা দমন করা হচ্ছে। এতে লাভবান হচ্ছেন মানুষ। পোকার আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে এ পদ্ধতি এ বছর ব্যাপকভাবে করা হচ্ছে। এর আগে ‘আলোক ফাঁদ’ দিয়ে পোকা দমন খুব কম ছিল। বর্তমানে উপজেলা কৃষি অফিসের দক্ষ ও অভিজ্ঞ কৃষি কর্মকর্তা’র প্র”েষ্টায় কৃষকেরা নিয়মিতভাবে এ বছর পোকা দমন করছেন ‘আলোক ফাঁদ’ দিয়ে।
উপজেলার দেওকলস ইউনিয়নের সাধুরগাঁও গ্রামে গিয়ে দেখা যায় ‘আলোক ফাঁদ’ দিয়ে পোকা দমন করছেন স্থানীয় কৃষক আবদুল আলিম। তিনি সন্ধ্যার পর বিদ্যুতের বাল্ব জ্বালিয়ে রেখেছেন ফসলি জমির পাশে। একটি স্টিলের ষ্ট্যান্ডের মধ্যখানে বাল্ব দিয়েছেন। নিচে রেখেছেন এ্যালমুনিয়ামের একটি (বউল) পানি ভর্তি বউলে সাবান মিশিয়ে রাখা হয়েছে। আর এতে দূর থেকে পোকাগুলো সরাসরি আলোর নিচে আসছে। পানিতে পড়ে কিছু সময়ের ভিতর মারা যায় পোকা গুলো। মাজরা পোকাসহ বিভিন্ন পোকা এতে দমন হচ্ছে। সেখানে গিয়ে পাওয়া যায় উপজেলা কৃষি স¤প্রসারণ কর্মকর্তা বিজন  কুমার, এসএটিপিও আখতার হোসেন ও রুপক কুমার দাশ। তারা কৃষকের পোকা দমন পর্যবেক্ষণ করছেন। তাদের সাথে আলাপকালে বলেন, নিয়মিতভাবে পোকা দম হচ্ছে কিনা সে কাজ তদারকি করছেন। উপজেলার প্রায় আটটি স্থানে তাদের পরামর্শে ‘আলোক ফাঁদ’ দিয়ে পোকা দমন করা হচ্ছে। এ পদ্ধতিতে কোন অপকারী পোকা ছাড়া উপকারী পোকা দমন হচ্ছে না বলে তারা জানিয়েছেন।
আদর্শ কৃষক সাধুরগাঁও গ্রামের আবদুল আলিম বলেন, ‘আলোক ফাঁদ’ দিয়ে পোকা দমন প্রতি বছর করে আসছেন। তিনি কিটনাষক দিয়ে পোকা দমন করেননি। তিনি বলেন, এতে ফলন ভাল হয়। অন্যান্য কৃষকের চেয়ে বেশী ফলন পান বলে তিনি জানান।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. খায়রুল আমিন বলেন, উপজেলা বিভিন্ন জায়গায় কৃষকদের দিয়ে পোকা দমন করা হচ্ছে। ‘আলোক ফাঁদ’ দিয়ে পোকা দমন করা খুব সহজ। এতে খরছ হয়না। ফলন হয় ভাল। তিনি সব কৃষক কে এ পদ্ধতিতে পোকা দমন করতে আহবান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মদনে ৪৪তম বিজ্ঞান মেলা- ২০২২ উদযাপিত

সুদর্শন আচার্য্য, মদন (নেত্রকোণা) ঃ নেত্রকোণার মদনে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে ৪৪তম জাতীয় ...

মদনে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ- ২০২২ উদযাপন

সুদর্শন আচার্য্য, মদন (নেত্রকোণা) ঃ ‘দুর্ঘটনা দুর্যোগ হ্রাস করি, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা ...