ব্রেকিং নিউজ
Home | বিবিধ | কৃষি | পীরগঞ্জে কৃষি কর্মকতার বিরুদ্ধে আরও ৫ লাখ ৭৭ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

পীরগঞ্জে কৃষি কর্মকতার বিরুদ্ধে আরও ৫ লাখ ৭৭ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল, গাইবান্ধা প্রতিনিধি : ঃ রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আরও তিনটি প্রকল্পে ৫ লাখ ৭৭ হাজার টাকা আতœসাত করেছেন মর্মে অভিযোগ উঠেছে। প্রাপ্ত অভিযোগে প্রকাশ, আই এ পিপি প্রকল্পের এডাপশন প্রদর্শনীর ৮ গ্রুপে ২৩টি করে মোট ১’শ ৮৪ টি প্রকল্পের প্রতিটিতে ১ হাজার ৮’শ টাকা করে সর্বমোট ৩ লাখ ২১ হাজার ২’শ টাকা বরাদ্দ ছিল। অথচ প্রতিটি প্রকল্পে ৯’শ টাকা ব্যয় করে শুধুমাত্র ৬টি করে টিন প্রদান করা হয়েছে। প্রতিটি প্রকল্পে বাকি ৯’শ টাকা করে মোট ১ লাখ ৬৫ হাজার ৬’শ টাকা সম্পূর্ণ আতœসাত করা হয়েছে।লতিরাজ কচু চাষ প্রদর্শনী প্রকল্পের ৫টি গ্র“পে ২৩ টি করে মোট ১’শ ১৫ টি প্রকল্পের প্রতিটিতে ৩ হাজার টাকা হারে মোট ৩ লাখ ৪৫ হাজার টাকা বরাদ্দ ছিল। এর মধ্যে জয়পুর হাট এলাকা থেকে ট্রাকে করে কচুর মোথা এনে কৃষকদের মাঝে সরবরাহ দেয়া হয়েছে বীজ হিসেবে। যাতে মোট ব্যয় হয়েছে মাত্র ৮ হাজার টাকা। অবিশিষ্ট ৩ লাখ ৩৭ হাজার টাকা ভুয়া ভাউচারের মাধ্যমে পকেটস্থ করা করেছেন উক্ত কর্মকর্তা। এনএ পিটির আওতায় মাইক্রোপ্লান তৈরীর জন্য ১৫টি ইউনিয়নে ৩ হাজার করে মোট ৪৫ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হলে প্রতিটিতে মাত্র ৭’শ করে মোট দশ হাজার ৫’শ টাকা প্রদান করে অবশিষ্ট ৩৪ হাজার ৫’শ টাকা সম্পূর্ণ আতœসাত করে পকেটস্থ করেছেন উক্ত কর্মকর্তা।এদিকে গত ৫ সেপ্টেম্বর মুগ ডাল প্রকল্পে আতœসাতের কেলেংকারির তদন্ত শুরু হয়েছে। কৃষি বিভাগের এফসিপি শওকাত হোসেন এই তদন্ত করছেন। স্মরনযোগ্য যে, গত মওসুমে এনএ পিটি প্রকল্প খরিপ-২ এর আওতায় উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নে ২২ টি মুগডাল প্রকল্পের প্রতিটিতে ৩ হাজার ৮’শ টাকা করে মোট ৮৩ হাজার ৬’শ টাকা বরাদ্দ ছিল। সে স্থলে মাত্র ২টি মুগ ডাল প্রকল্পের প্রদর্শনী প্রকল্প করে অবশিষ্ট ২০টি অনুকুলে বরাদ্দকৃত মোট ৭৬ হাজার টাকা ভুয়া ভাউচারের মাধ্যমে সম্পূর্ণ আতœসাত করা হয়। শওকাত হোসেন সরেজমিন মাঠ পর্যায়ে না গিয়ে রহস্যজনক কারনে কৃষি কর্মকর্তার দপ্তরে বসেই সাজানো তদন্ত করে গেছেন।এ সময় কৃষি কর্মকর্তার সাথে যোগসাজোস করে টুকুরিয়ার মোস্তাফিজার রহমান বড়দরগাহর রবিউল ইসলাম, গুর্জিপাড়ার অলি আহাদ, চৈত্রকোলের আফজাল হোসেন ও চতরা এলাকার মিজানুর রহমান নিজস্ব ৩ জন করে কৃষককে মুগডাল চাষী সাজিয়ে আনেন। তারা মুগডাল এর প্রদর্শনী প্লট আবাদ করেছেন মর্মে তদন্ত চলাকালে শেখানো বুলি আওড়ান। অথচ এরা কোন জমিতেই মুগডাল আবাদ করেননি। মাঠ পর্যায়ে সরেজমিন খোঁজ নেয়া হলেই এ রহস্য উন্মোচিত হবে বলে একাধিক বিশ্বস্থ সুত্র দাবি করেছে।সেক্স ফেরোমন ফাঁদ স্থাপনের জন্য ১০টি প্রকল্পে ৩ হাজার ৮’শ টাকা করে মোট ৩৮ হাজার টাকার মধ্যে মাত্র ৩টি ফাঁদ স্থাপন করে অবশিষ্ট ৭ টি ফাঁদের অনুকুলে বরাদ্দকৃত ২৬ হাজার ৬’শ টাকা সম্পূর্ণ পকেটস্থ করার ঘটনা এবং কৃষক প্রশিনের খাবারের প্যাকেট ২০ টাকা এবং খাতা কলম ১৫ টাকা সহ মোট ৩৫ টাকা ব্যয় করে অবশিষ্ট ১’শ ৬৫ টাকা হারে ১ হাজার ৯’শ ৫০ জন কৃষকের কাছে ৩ লাখ ২১ হাজার ৭’শ ৫০ টাকা আতœসাতের ঘটনা সম্পূর্ণ পাশ কেটে যাওয়া হয়েছে। সব ক’টি প্রকল্পে সর্বমোট তিনি গত ও চলতি অর্থ বছরে সর্বমোট ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।অভিযোগ রয়েছে, দুর্নীতি পরায়ন উক্ত কর্মকর্তা ইতিমধ্যে ঢাকায় একটি এবং বগুড়ার উপ শহরে একটি প্লট ক্রয় সহ গত ২৮ আগষ্ট স্ত্রী নামে পীরগঞ্জ পোষ্ট অফিস থেকে দু’লাখ টাকার সঞ্চয়পত্র ক্রয় করেছেন। সংশ্লিষ্ট বিভাগের উর্ধতন কর্মকর্তাদের সমন্ময়ে গঠিত উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত দল কর্তৃক সরেজমিন তদন্ত হলেই তলের বিড়াল বেরিয়ে আসবে বলেও সুত্র টি দাবি করেছে। বিষয়টিতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও দুর্নীতি দমন বিভাগের আশু হস্তপে দাবি করেছেন এলাকার বঞ্চিত কৃষককুল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মদনে ৪৪তম বিজ্ঞান মেলা- ২০২২ উদযাপিত

সুদর্শন আচার্য্য, মদন (নেত্রকোণা) ঃ নেত্রকোণার মদনে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে ৪৪তম জাতীয় ...

মদনে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সপ্তাহ- ২০২২ উদযাপন

সুদর্শন আচার্য্য, মদন (নেত্রকোণা) ঃ ‘দুর্ঘটনা দুর্যোগ হ্রাস করি, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা ...