ব্রেকিং নিউজ
Home | ব্রেকিং নিউজ | পীরগঞ্জে আধুনিক স্থাপত্য শিল্পে নির্মিত হচ্ছে আলতাব নগর জামে মসজিদ

পীরগঞ্জে আধুনিক স্থাপত্য শিল্পে নির্মিত হচ্ছে আলতাব নগর জামে মসজিদ

এম.এ রহিম, পীরগঞ্জ (রংপুর) : প্রায় ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে আধুনিক স্থাপত্য নির্মান শৈলীতে নির্মিত হচ্ছে ‘আলতাব নগর জামে মসজিদ’। উপজেলার চতরাহাটের উত্তর পার্শ্বেই ‘আলতাব নগর’ এ দ্বিতল মসজিদটি দুবাই প্রবাসী বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আলতাব হোসেন ব্যক্তিগত উদ্যোগে নির্মান করছেন ।

জানা গেছে, উপজেলা সদরের দক্ষিণে প্রায় ১০ কি.মি দুরে চতরা ইউনিয়নের চতরাহাটের প্রয়াত আলহাজ্ব আব্দুল কুদ্দুস মিয়ার ছেলে আলতাব হোসেন (৪৫)। দীর্ঘদিন ধরে তিনি দুবাইয়ে সপরিবারে বসবাস করে প্লাস্টিক কারখানার ব্যবসা করছেন। প্রবাসে থাকাবস্থায় তিনি তার জন্মস্থান পীরগঞ্জের চতরায় ২০১৬ সালের ২ জানুয়ারী ৫ একর জমি ক্রয় করে ‘আলতাবনগর’ নামকরণ করেন। সেখানেই মসজিদ, এতিমখানা, পারিবারিক ও সর্বসাধারনের জন্য কবরস্থান প্রতিষ্ঠার জন্য পরিকল্পনা নিয়ে অবকাঠামো নির্মান শুরু করেন। বর্তমানে আলতাব নগরেই হচ্ছে দুবাইয়ের ডিজাইনে ৪ তলা উচ্চতা বিশিষ্ট (৩৪ ফুট) দ্বিতল মসজিদ নির্মান কাজ।

সুত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের ৯ জানুয়ারী আলতাব হোসেনের বাবা আলহাজ্ব আব্দুল কুদ্দুস মিয়া আধুনিকমানের আলতাব নগর জামে মসজিদের ভিত্তি স্থাপন করেন। এটি নির্মানে ৩ বছর সময় লাগবে। দৈর্ঘ্যে ১’শ ফুট এবং প্রস্থে ৮০ ফুটের মসজিদটিতে একসাথে ২ হাজার মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারবেন। মসজিদের চার কোনায় ১’শ ফুট উচ্চতা বিশিষ্ট ৪টি মিনার ও একটি সুউচ্চ গম্বুজ থাকবে। সমতল ভুমি থেকে ৭ ফুট উচু প্রথম তলার মেঝে এবং মেঝে থেকে ১৭ ফুট উচ্চতায় প্রথম তলার ছাদ নির্মান করা হয়েছে। প্রায় ১০ মাস পর দ্বিতীয় তলার ছাদও ১৭ ফুট উচ্চতায় ঢালাইয়ের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। মসজিদটি নির্মানে প্রায় ১২ কোটি টাকা ব্যয় হবে বলে সংশ্লিষ্ট আর্কিটেকচার ও ইঞ্জিনিয়াররা জানান।প্রতিদিন গড়ে ৬০ জন করে নির্মান শ্রমিক সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে কাজ করছে।

অপরদিকে আলতাব নগর চত্বরে ১ হাজার ৫’শ টি সুপারি গাছ, আম ৬০টি, নারিকেল ৫০টি সহ বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় ১’শ টি বনজ গাছের চারা লাগিয়ে মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশের সৃষ্টি করা হয়েছে। ইতিপূর্বে আলতাব নগরের প্রবেশদ্বারে দৃষ্টি নন্দন সুউচ্চ গেইট নির্মান করা হয়েছে।

চতরা ইউপির চেয়ারম্যান এনামুল হক শাহীন বলেন, আলতাব নগর জামে মসজিদটি নির্মিত হলে পরিচিতি ও সম্মান বাড়াবে। ইতিমধ্যেই আলতাব নগর কবরস্থানে অনেক মরদেহ দাফন করা হয়েছে।

আলতাব হোসেন বলেন, মহান আল্লাহর সন্তুষ্টির লক্ষ্যে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলো প্রতিষ্ঠা করছি। আল্লাহ যেন প্রতিষ্ঠানগুলো ভালভাবে চলমান রাখেন।

তিনি আরও বলেন, ‘আলতাব নগর’ এর সম্পদসমুহ ট্রাষ্টের মাধ্যমে পরিচালিত হবে। এ সব কাজের পিছনে আমার কোন রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মদনে ক্ষুদ্র নৃ—গোষ্ঠীর মধ্যে ভেড়া ও অন্যান্য উপকরণ বিতরণ

সুদর্শন আচার্য্য, মদন, নেত্রকোণা ঃ সমতল ভূমিতে বসবাসরত অনগ্রসর ক্ষুদ্র নৃ—গোষ্ঠীর মাঝে ...

What Is Cmmi? A Model For Optimizing Development Processes

Содержание Managed Processes Maturity Model Structure Do You Want To Implement The ...