ব্রেকিং নিউজ
Home | ব্রেকিং নিউজ | নির্বাচানের মাঠে আওয়ামীলীগ, আদালতের বারান্দায় বিএনপির নেতাকর্মিরা

নির্বাচানের মাঠে আওয়ামীলীগ, আদালতের বারান্দায় বিএনপির নেতাকর্মিরা

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : চুয়াডাঙ্গার দুটি সংসদীয় আসনে মহাজোটের প্রার্থী সোলাইমান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন ও আলী আজগর টগর ও তাদের নেতাকর্মিরা জমজমাট প্রচার প্রচারণা শুরু অব্যাহত রেখেছে। প্রতিদিন সকাল থেকে মধ্যরাত অবধি চলে বেড়াচ্ছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। উন্নয়নের ফুলঝুঁড়ি ও সরকারের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে তারা ভোটরদের নৌকা মার্কায় ভোট প্রদানে অনুরোধ করছেন। নিজেদের মধ্যে সকল বিভেদ কাটিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন নির্বাচনী মাঠে। তবে ব্যতিক্রম  আছে ঐক্যফ্রন্ট তথা বিএনপির ক্ষেত্রে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফশীল ও পরবর্তী প্রতীক বরাদ্দের পর তাদের র্প্রাথী ও কর্মি সমর্থকরা প্রচার প্রচারণা চালাতে পারছেন না বলে অভিযোগ তাদের। এছাড়া বিভিন্ন মামলার হাজিরা দিতে দিনের বেশির ভাগ সময়ই আদালতের বারান্দায় কাটছে বিএনপির নেতাকর্মিদের।
ঐক্যফ্রন্ট র্প্রাথীদের অভিযোগ, প্রচার প্রচারণা শুরুর ১ম দিন থেকেই সরকারী দলের নেতাকর্মিরা তাদেরকে বাঁধা প্রদান করছে। নির্বাচনী ক্যাম্প ও অফিসগুলোতে ধারাবাহিকভাবে তান্ডব চালাচ্ছে। নির্বাচনের ব্যানার ফেস্টুন টানাতে দেওয়া হচ্ছে না। আর হামলা মামলা তো আছেই। অব্যাহত আছে পুলিশী গ্রেফতারও।
চুয়াডাঙ্গা-১ আসনে ধানের শীষের প্রার্থী শরীফুজ্জামান শরীফের অভিযোগ, চুয়াডাঙ্গা-১ আসনে প্রচার প্রচারণা শুরুর প্রথম দিনেই আমার গাড়ি বহরে হামলা চালানো হয়। ভাংচুর করা হয় দুটি গাড়ি। শুধু তাই নয়, প্রতিদিনই আমার নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হচ্ছে। বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে নেতাকর্মিদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করা হচ্ছে। পুলিশী গ্রেফতার তো আছেই। এসব কারণে আমরা নির্বাচনে প্রচার প্রচারণা চালাতে পারছি না।
প্রায় অভিন্ন অভিযোগ চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের ধানের শীষের প্রার্থী মাহমুদ হাসান খাঁন বাবুর। তার দাবি চুয়াডাঙ্গা-২ আসনে সব রাজনৈতিক দলের সমান সুযোগ নেই। সরকারী দল সকাল থেকে রাত অবধি প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছে। আমরা প্রচারণা চালাতে গেলেই হামলা চালানো হচ্ছে। ভাঙচুর অগ্নিসংযোগ নিত্য দিনের ঘটনা। প্রতিনিয়ত রিটানিং অফিসারের কাছে অভিযোগ জানাচ্ছি। কোন প্রতিকার পাচ্ছিনা। বরং উল্টো ভাবে পুলিশী হয়রানির শিকার হচ্ছে আমার নেতাকর্মিরা।
আওয়ামীলীগের অফিস ও তাদের নেতাকর্মিদের বাড়িতে নিজেরাই বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আমাদের নেতাকর্মিদের নামে দফায় দফায় মামলা দেওয়া হচ্ছে। গ্রামের ছোট্র একটি চায়ের দোকান ভাঙচুরের মত ভৌতিক মামলা দিয়ে ফাঁসানো হচ্ছে আমার নেতাকর্মিদের।
বিএনপির এই প্রার্থীর মতে আওয়ামীলীগের প্রার্থীরা নির্বাচনী মাঠে জমজমাট প্রচারণা চালালেও আমরা তথা ধানের শীষের নেতাকর্মিদের আদালতের বারান্দায় ব্যস্ত রাখা হচ্ছে।
চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের নৌকার প্রার্থী জাতীয় সংসদের হুইপ সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন জানান, আমার নির্বাচনী এলাকার কোথাও কাউকে বাঁধা প্রদান করা হচ্ছে না। বিএনপির এসব অভিযোগ হাস্যকর। তার দাবি নিজেদের মধ্যে অন্তকোন্দলের কারণে তারা মাঠে নামতে পারছেন না। নিজেরাই হামলা ভাঙচুর করে আমাদের গায়ে দোষ চাপাচ্ছেন।
চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের মহাজোটের প্রার্থী আলী আজগর টগর জানান, তার এলাকাতে ধানের শীষের প্রার্থীর লোকজন আওয়ামীলীগের অফিস ও নেতাকর্মিদের বাড়িতে বাড়িতে বোমা হামলা চালাচ্ছে। এরপরও আমরা নিরব আছি, যাতে নির্বাচনের পরিবেশ শান্ত থাকে। তার মতে বিএনপি বিগত দিনের ধারাবাহিকতার মতো একের পর এক মিথ্যাচার করছে।
জেলা রিটানিং অফিসার গোপাল চন্দ্র দাস জানান, কোন ভাবেই নির্বাচনী পরিবেশ বিনিষ্টকারীদের ছাঁড় দেওয়া হবে না। ছোট খাট যে দু, একটি বিছিন্ন ঘটনা ঘটেছে তার জন্য প্রার্থীদের কঠোরভাবে সর্তক করা হয়েছে। এরপরও যারা বা যাদের সমর্থকরা নির্বাচনী আচারণ বিধি মানবেন না তাদের জন্য কঠেন ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। ইতমিধ্যে দুটি সংসদীয় আসনে নির্বাচনী মাঠে নামানো হয়েছে ৬ প্লাটুন বিজিবি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মদনে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য তৈরি ও লাইসেন্স না থাকায় ভ্রাম্যমান আদালতে ৬ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

সুদর্শন আচার্য্য, মদন (নেত্রকোনা) ঃ নেত্রকোনার মদন পৌর সদরের ৬টি দোকানে অভিযান ...

সিলেটের বন্যায় কবলিতদের পাশে “পর্তুগাল বাংলা প্রেসক্লাব”

আনোয়ার এইচ খান ফাহিম ইউরোপীয় ব্যুরো প্রধান, পর্তুগালঃ বাংলাদেশের সিলেটে স্মরণকালের সবচেয়ে ...