Home | জাতীয় | নকশা ছাড়া বাড়ি বানানোর অভিযোগে এ কে আজাদের গুলশানের বাড়ি ভাঙছে রাজউক

নকশা ছাড়া বাড়ি বানানোর অভিযোগে এ কে আজাদের গুলশানের বাড়ি ভাঙছে রাজউক

স্টাফ রিপোর্টার : অনুমোদিত নকশা ছাড়া বাড়ি বানানোর অভিযোগে হা-মিম গ্রুপের মালিক এ কে আজাদের গুলশানের বাড়ি ভাঙতে শুরু করেছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)।

মঙ্গলবার সকাল নয়টা থেকে রাজউকের পরিচালক অলিউর রহমানের নেতৃত্বে গুলশানের ৮৬ নম্বর সড়কের ১ নম্বর বাড়িতে এই অভিযান চালানো হয়। বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত চলা অভিযানে বাড়ির সামনের দেয়াল, গাড়ি বারান্দা ও একটি ব্যালকনির কিছু অংশ ভেঙে ফেলা হয়। তবে পুরো বাড়িটিই ভাঙা হবে বলে জানিয়েছেন অলিউর রহমান।

সকাল থেকেই স্কেভেটরসহ বিভিন্ন যন্ত্র দিয়ে বাড়িটির প্রবেশমুখ থেকে ভাঙা শুরু করে। অভিযানের আগে সকালে বাড়ির বিদ্যুৎ ও গ্যাসসহ বিভিন্ন সেবা সার্ভিসের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। তবে বাড়িতে আসবাবপত্রসহ যাবতীয় মালামাল রয়েছে। সেগুলো বের করা হয়নি।

অনুমোদিত নকশা ছাড়া বাড়ি বানানোর অভিযোগে হা-মিম গ্রুপের মালিক এ কে আজাদের গুলশানের বাড়ি ভাঙতে শুরু করেছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)।

মঙ্গলবার সকাল নয়টা থেকে রাজউকের পরিচালক অলিউর রহমানের নেতৃত্বে গুলশানের ৮৬ নম্বর সড়কের ১ নম্বর বাড়িতে এই অভিযান চালানো হয়। বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত চলা অভিযানে বাড়ির সামনের দেয়াল, গাড়ি বারান্দা ও একটি ব্যালকনির কিছু অংশ ভেঙে ফেলা হয়। তবে পুরো বাড়িটিই ভাঙা হবে বলে জানিয়েছেন অলিউর রহমান।

সকাল থেকেই স্কেভেটরসহ বিভিন্ন যন্ত্র দিয়ে বাড়িটির প্রবেশমুখ থেকে ভাঙা শুরু করে। অভিযানের আগে সকালে বাড়ির বিদ্যুৎ ও গ্যাসসহ বিভিন্ন সেবা সার্ভিসের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। তবে বাড়িতে আসবাবপত্রসহ যাবতীয় মালামাল রয়েছে। সেগুলো বের করা হয়নি।

রাজউক কর্মকর্তা অলিউর রহমান জানান, পুরো বাড়িটা বানানো হয়েছে রাজউকের নকশা ছাড়া। অভিযানকারী দলকে আজাদের পরিবারের পক্ষ থেকে একটি কাঠামোগত নকশা দেখানো হলেও সেটি রাজউকের অনুমোদিত নয়।

বাড়িটি ১৯৬৪ সালে নির্মিত। একসময় এখানে স্কুল ছিল। বাড়িটি দুই বিঘা জমির ওপর নির্মিত। এ কে আজাদ ১০/১২ বছর আগে বাড়িটি কেনেন বলে জানা গেছে। কিন্তু এ কে আজাদ বাড়িটি কেনার পর নিজের নামে রেকর্ড করতে পারেননি।

রাজউক কর্মকর্তা জানান, এই বাড়িটির বিষয়ে এ কে আজাদকে নোটিশ দিলেও তিনি জবাব দেননি। অভিযান চলাকালে এ কে আজাদ এসে রাজউক কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন। তবে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেননি।

রাজধানীতে বাড়ি করতে হলে রাজউক থেকে নকশা অনুমোদন করিয়ে নিতে হয়। কিন্তু বহু বাড়ির মালিকই এটি করেন না বলে তথ্য আছে। আর এদের মধ্যে প্রভাবশালীরাও রয়েছেন। মাঝেমধ্যে রাজউক অভিযান চালিয়ে কিছু বাড়ি বা বাড়ির অংশবিশেষ ভেঙেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

বঙ্গোপসাগরে ট্রলারডুবি, ১৭ জেলে নিখোঁজ

বিডিটুডে ডেস্ক : বঙ্গোপসাগরের সুন্দরবন সংলগ্ন নারিকেলবাড়িয়া এলাকায় ঝড়ের মুখে পড়ে এফবি তরিকুল-১ নামে ...

পুঁজিবাজারে দর বৃদ্ধির শীর্ষে কেডিএস এক্সেসরিজ

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) তালিকাভুক্ত কোম্পানি কেডিএস এক্সেসরিজ লিমিটেড গত ...