ব্রেকিং নিউজ
Home | আন্তর্জাতিক | থ্রিজি নেটওয়ার্কে প্রবেশ করতে যাচ্ছে গ্রামীণফোন, বাংলালিংক, রবি এবং এয়ারটেল

থ্রিজি নেটওয়ার্কে প্রবেশ করতে যাচ্ছে গ্রামীণফোন, বাংলালিংক, রবি এবং এয়ারটেল

3G-Phoneপ্রযুক্তি বিশ্ব : টেলিটকের পর তৃতীয় প্রজন্মের (থ্রিজি) নেটওয়ার্কে প্রবেশ করতে যাচ্ছে দেশের শীর্ষ চার সেলফোন অপারেটর গ্রামীণফোন, বাংলালিংক, রবি এবং এয়ারটেল। আগামী মাস থেকেই ঢাকা এবং চট্টগ্রামে থ্রিজি সেবা চালুর ঘোষণা দিয়েছে গ্রামীণফোন। অন্য অপারেটররাও দ্রুত থ্রিজির জগতে প্রবেশ করতে যাচ্ছে। চলতি বছরের শেষ নাগাদ দেশের বিভাগীয় শহরগুলো থ্রিজির সেবায় চলে আসবে। পর্যায়ক্রমে দেশের প্রান্তিক এলাকাও থ্রিজর আওতায় আসবে। তবে থ্রিজি সেবা নিতে হলে আপনার ব্যবহৃত ডিভাইস স্মার্টফোন কিংবা ট্যাবলেট পিসি হতে হবে থ্রিজি সমর্থিত। এক্ষেত্রে দেশের বাজারে রয়েছে সাশ্রয়ী থেকে শুরু করে উচ্চ দামের ডিভাইস।

সাশ্রয়ী দামে থ্রিজি ফোন :
থ্রিজি সমর্থিত কিনতে হলে বড় অঙ্কের টাকা খরচ করতে হবে এটি একেবারেই ঠিক নয়। ব্র্যান্ড এবং মডেল ভেদে কিনে নিতে পারেন থ্রিজি হ্যান্ডসেটটি। অ্যান্ড্রয়েড চালিত থ্রিজি হ্যান্ডসেট হিসেবে বাজারে এ মুহূর্তে সবচেয়ে কম দামের স্মার্টফোন ওয়ালটনের প্রিমো ডি-২। ৪ হাজার ৯৯০ টাকা দামের সেটটিতে রয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ৪.২.২ জেলিবিন, ১ গিগাহার্জ ডুয়ালকোর প্রসেসর ও ২৫৬ মেগাবাইট র‌্যাম। অ্যান্ড্রয়েড ২.৩.৬ জিঞ্জারবার্ড, ১ গিগাহার্জ প্রসেসর, ২৫৬ মেগাবাইট র‌্যাম এবং ৩.২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সমৃদ্ধ ম্যাক্সিমাস ম্যাক্স-৯০৬ মডেলটি পাওয়া যাবে ৪ হাজার ৯৯৯ টাকায়। অ্যান্ড্রয়েড ২.৩.৫ জিঞ্জারব্রেডের সঙ্গে ১ গিগাহার্জ প্রসেসর এবং ৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ফিচার নিয়ে এর পরই আছে মাইক্রোম্যাক্স এ-৫৪ (৫ হাজার ৩৯৯ টাকা)। ফিচারের দিক থেকে হুবহু ওয়ালটনের প্রিমো ডি-২ এর মতো সিম্ফনি এক্সপ্লোরার ডবিস্নউ-৩২ স্মার্টফোনটির দাম পড়বে ৫ হাজার ৩৫০ টাকা। অন্যদিকে অ্যান্ড্রয়েড ২.৩.৬ জিঞ্জারবার্ড, ১ গিগাহার্জ প্রসেসর, ২৫৬ মেগাবাইট র‌্যাম এবং কয়েকটি ত্রিমাত্রিক ফিচারসহ ওয়ালটন প্রিমো ডি-১-এর দাম ৫ হাজার ৬৯০ টাকা। কম বাজেটের মধ্যে কিনতে পারেন অ্যান্ড্রয়েড ৪.১.২ জেলিবিনের সঙ্গে ডুয়ালকোর প্রসেসর আর ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরারস ম্যাক্সিমাস ম্যাক্স-৯০৫ (৬ হাজার ১৫০ টাকা) এবং ১ গিগাহার্জ প্রসেসর ও অ্যান্ড্রয়েড জেলিবিনের সুবিধা নিয়ে সিম্ফনি এক্সপ্লোরার ডবিস্নউ-৩৫ মিলবে ৬ হাজার ২৯০ টাকায়। অন্যদিকে অ্যান্ড্রয়েড জেলিবিন ৪.২.২ ও ১.২ গিগাহার্জ ডুয়ালকোর প্রসেসরসহ সিম্ফনি এক্সপ্লোরার ডবি্লউ-৬৫, এক্সপ্লোরার ডবিস্নউ-৬৮ এবং ওয়ালটন প্রিমো এফ-২-এর দাম পড়বে ৬ হাজার ২০০ থেকে ৬ হাজার ৯৯০ টাকার মধ্যে। কিছুটা কাছাকাছি দামে অ্যান্ড্রয়েড জেলিবিনসহ ১ গিগাহার্জ প্রসেসরের সমন্বয়ে আছে সিম্ফনি এক্সপ্লোরার ডবিস্নউ-৬০ (৮ হাজার ৩৯০ টাকা) ও ওয়ালটন প্রিমো এফ-১ (৮ হাজার ৯৯০ টাকা)।

বাজেট যখন বেশি :
কম বাজেটের স্মার্টফোনগুলো অনেক সময় থ্রিজির পূর্ণাঙ্গ সুবিধা পাওয়া যায় না। এজন্য কাঙ্ক্ষিত ব্র্যান্ড হতে পারে নকিয়া, স্যামসাং, বস্ন্যাকবেরি কিংবা অ্যাপল। ডুয়ালকোর প্রসেসর ও উইন্ডোজ ৮ অপারেটিং সিস্টেম এবং এনএফসির মতো চমকপ্রদ ফিচার পাওয়া যাবে নকিয়া লুমিয়া ৫২০ মডেলটিতে। দাম ১৩ হাজার ৮০০ টাকা। এছাড়া নকিয়া লুমিয়া ৬২০ (১৬ হাজার ৫০০ টাকা), নকিয়া লুমিয়া ৭২০ (২২ হাজার টাকা)। অন্যদিকে উইন্ডোজ ৮ চালিত ডুয়ালকোর প্রসেসর, গিগাবাইট র‌্যাম আর ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা নিয়ে আছে নকিয়া লুমিয়া ৬২৫ (২৩ হাজার ৫০০ টাকা) এবং নকিয়া লুমিয়া ৯২৫ পাওয়া যাবে ৩৯ হাজার টাকায়। স্মার্টফোন জগতে শীর্ষ ব্র্যান্ড স্যামসাংয়ের সবচেয়ে কম দামে থ্রিজি স্মার্টফোনের মধ্যে আছে অ্যান্ড্রয়েড জিঞ্জারবার্ড এবং ২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সমৃদ্ধ গ্যালাক্সি পকেট। দাম ১০ হাজার ৪৯০ টাকা। ৪.১ জেলিবিন, ৮০০ মেগাহার্জ প্রসেসর আর ২ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরাসহ গ্যালাক্সি পকেট নিও মিলবে ১০ হাজার ৫০০ টাকায়। ৪.১ জেলিবিন ও গিগাহার্জ প্রসেসর নিয়ে আছে স্যামসাং গ্যালাক্সি ইয়াং ডুয়োস (১১ হাজার ৯০০ টাকা)। হুবহু ফিচার তবে কিছুটা শ্লথগতির গ্যালাক্সি মিউজিক ডুয়োসের দাম পড়বে ১৫ হাজার ৯০০ টাকা। ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা, অ্যান্ড্রয়েড ৪.০ ও ১ গিগাহার্জ প্রসেসরের গ্যালাক্সি এস ডুয়োস ১৬ হাজার টাকা। উচ্চ গতি আদায় করার জন্য সবচেয়ে উপযোগী হবে ডুয়ালকোর প্রসেসর, জেলিবিন ৪.১ সমর্থিত গ্যালাক্সি গ্রান্ড ডুয়োস (২৬ হাজার টাকা)। আরেকটু আপগ্রেড অ্যান্ড্রয়েড ৪.২ জেলিবিন ও ডুয়াল কোরের স্মার্টফোনের মধ্যে আছে গ্যালাক্সি এস ৪ মিনি (৩৫ হাজার ৫০০ টাকা) এবং গ্যালাক্সি এস ৪ অ্যাক্টিভ (৫৫ হাজার টাকা)। অন্যদিকে বহুমাত্রিক কাজের জন্য কিনতে পারেন গ্যালাক্সি এস-৪ (৫৫ হাজার টাকা)। এদিকে ক্যামেরা মানের দিক থেকে বরাবরই এগিয়ে সনি। তবে দামের দিক থেকে কিছুটা চড়া বটে। সর্বনিম্ন ১১ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৬৩ হাজার টাকার মধ্যে। গতি আর পারফরম্যান্সে সব সময়ের সেরা অ্যাপলের আইফোন। যার মধ্যে আইফোন ৪-এস ১৬ জিবি (৪৪ হাজার টাকায়), আইফোন ৪-এস ৬৪-জিবি (৫৮ হাজার টাকা), আইফোন-৫ ১৬ জিবি (৫৭ হাজার টাকা), আইফোন-৫ ৩২ জিবি (৬২ হাজার টাকা), আইফোন-৫ ৬৪ জিবিতে পাওয়া যাবে ৭৩ হাজারে।

চাই থ্রিজি ট্যাবলেট :
বড় পর্দায় একটু আয়েশ করে কাজ করার জন্য স্মার্টফোনের বিকল্প ট্যাবলেট। কেননা ডিভাইসগুলো সহজেই বহনযোগ্য। ইন্টারনেট চালনা আর কাজের গতির দিক থেকেও এগিয়ে ট্যাবলেট কম্পিউটার। ফিচার আর নকশার ভিত্তিতে ট্যাবলেট কেনার জন্য আপনার বাজেট হতে হবে সর্বনিম্ন সাড়ে ৬ হাজার টাকা। তবে কম বাজটের ট্যাবলেট কেনার ক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে এ ধরনের ট্যাবলেট থেকে পারফরম্যান্স আর ব্যাটারি ব্যাকআপ বরাবরই আপনাকে হতাশ করবে। বাজারে সবচেয়ে সাশ্রয়ী দামের ট্যাবলেট ম্যাক্সিস ম্যাক্সপ্রো ৬ হাজার ৫০০ টাকা। ৭ ইঞ্চি পর্দা, অ্যান্ড্রয়েড আইসক্রিম স্যান্ডউইচের পাশাপাশি ১.৫ গিগাহার্জ প্রসেসর এবং আছে ৫১২ মেগাবাইট র‌্যাম। অনেকটা একই রকম ফিচারের ইউ ট্যাব এবং অ্যাক্সেল ট্যাব ওক্স ৭.১-এর দাম পড়বে ৭ হাজার ৯৯৯ এবং ৮ হাজার ২০০ টাকা। আইসক্রিম স্যান্ডউইচের সঙ্গে ডুয়ালকোর প্রসেসর মিলে অনেকটা ভালো পারফরম্যান্স ম্যাক্সিমাস এনিগমা ৭.১ পাওয়া যাবে ৯ হাজার ৯৯৫ টাকায়, সিম্ফনি এক্সপ্লোরার টি-৭ পাওয়া যাবে ১০ হাজার ৮৫০ টাকায়। সিম্ফনি এক্সপ্লোরার টি-৭-আই (১০ হাজার ৯৯০ টাকা) এবং আইনল নভো ৭ লিজেন্ড (১০ হাজার ৯৯৯ টাকা) ট্যাবলেটে।

কাজের গতি এবং দীর্ঘক্ষণ ব্যাটারি ব্যাকআপ পাওয়ার জন্য ভালো বাজেটের ট্যাবলেট কেনাই সবচেয়ে উত্তম। আট ইঞ্চি পর্দা, ডুয়ালকোর প্রসেসর এবং ১ গিগাবাইট র‌্যামের নিশ্চয়তা মিলবে সিম্ফনি টি-৮ (১২ হাজার ৮৫০ টাকা) এবং সিম্ফনি এক্সপ্লোরার টি-৮-আই (১৩ হাজার ৯৯০) ট্যাবলেটে।

অপরিচিত ব্র্যান্ড হলেও ফিচারের দিক থেকে আইনল কিছুটা এগিয়ে। সাত ইঞ্চি পর্দা আর ডুয়ালকোরের সমন্বয় মিলবে আইনল নভো ৭ মার্স পাওয়া যাবে (১৩ হাজার ৫০০ টাকায়)। আসুসের ট্যাবলেট কম্পিউটারের মধ্যে আছে ১.৬ গিগাহার্জ গতির আসুস ফোনপ্যাড (২৩ হাজার ৫০০), ডুয়ালকোর গতির আসুস মেমো প্যাড (১৫ হাজার) এবং বড় মাপের পর্দা, ডুয়ালকোর প্রসেসর আর ল্যাপটপের যাবতীয় ফিচার নিয়ে আসুস ডকিং ট্যাবলেট (৪৫ হাজার)। ডুয়ালকোর মানের ৭ ইঞ্চি ট্যাবলেটের মধ্যে আছে লেনোভো এ-১০০০ আইডিয়া ট্যাব (১৬ হাজার ৫০০), আইডিয়া ট্যাব এ-৩০০০ (২৩ হাজার ৪৯৯), আইডিয়া ট্যাব এ-২১০৭ (২৫ হাজার ৫০০)। ট্যাবলেট সাম্রাজ্যে সবচেয়ে আলোচিত নাম স্যামসাং এবং অ্যাপল।

স্যামসাং ট্যাবলেটের দাম সাড়ে ২৫ হাজার টাকা থেকে শুরু, যার মধ্যে স্যামসাং গ্যালাক্সি ট্যাব-২ (২৫ হাজার ৫০০), স্যামসাং গ্যালাক্সি ট্যাব-৩, ৭ ইঞ্চি (৩২ হাজার), গ্যালাক্সি ট্যাব-৩, ১০ ইঞ্চি (৪৩ হাজার) গ্যালাক্সি নোট ৮ ইঞ্চি (৪০ হাজার ৫০০), গ্যালাক্সি নোট ১০.১ ইঞ্চি (৩২ হাজার ৫০০), গ্যালাক্সি নোট-২ (৪১ হাজার)। অন্যদিকে আইপ্যাড মিনি (৪১ হাজার), আইপ্যাড-৪, ১৬ জিবি (৫৪ হাজার) এবং আইপ্যাডফোর পাওয়া যাবে ৬২ হাজার টাকায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

‘গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশন ইন স্পেন’ নির্বাচনে মুজাক্কির – সেলিম প্যানেল বিজয়ী

জিয়াউল হক জুমন, স্পেন প্রতিনিধিঃ সিলেট বিভাগের চারটি জেলা নিয়ে গঠিত গ্রেটার ...

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সাথে পর্তুগাল আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা

আনোয়ার এইচ খান ফাহিম ইউরোপীয় ব্যুরো প্রধান, পর্তুগালঃ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহরিয়ার ...