Home | জাতীয় | তৃণমূল সাংসদ ইমরানের সঙ্গে জামায়াতে ইসলামির সম্পৃক্ততার তদন্ত করছে বাংলাদেশ সরকার:পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

তৃণমূল সাংসদ ইমরানের সঙ্গে জামায়াতে ইসলামির সম্পৃক্ততার তদন্ত করছে বাংলাদেশ সরকার:পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার : ভারতের পশ্চিমবঙ্গের শাসক দলের সাংসদ আহমেদ হাসান ইমরানের সঙ্গে কট্টর মৌলবাদী জামায়াতে ইসলামির সম্পৃক্ততার তদন্ত করছে বাংলাদেশ সরকার। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।ইমরানের মাধ্যমে অর্থলগ্নি সংস্থা সারদার কোটি কোটি রূপি জামায়াতের হাতে গিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। রবিবার সংসদে বিষয়টি আলোচনার জন্য উত্থাপিত হওয়ার পরেও সময়ের অভাবে স্থগিত রাখা হয়।
স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘বিষয়টি অত্যন্ত সংবেদনশীল ও গুরুত্বপূর্ণ।এত কম সময়ে এমন গুরুতর বিষয় নিয়ে সুষ্ঠু আলোচনা হয় না।’স্পিকার জানান, বিষয়টি নিয়ে আলোচনার জন্য মঙ্গলবার সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।এদিকে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তারা চায় ভারত সরকারও বিষয়টি তদন্ত করে প্রকৃত তথ্য প্রকাশ করুক। যাতে কেউ দোষী প্রমাণিত হলে রাজনৈতিক প্রভাবের জন্য ছাড়া পেয়ে না যায়।
আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবুল হক হানিফ বলেন, ‘জঙ্গি নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ সরকার ভারতকে সব রকম সাহায্য করছে। নয়াদিল্লি বার বার এ জন্য কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে। আজ বাংলাদেশের স্থিতিশীলতা নষ্ট করতে ভারতের একটি প্রভাবশালী শিবির থেকে অর্থ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। আমরা চাই, ভারত সরকার দ্রুত তদন্ত করে দোষীদের শাস্তি দিক। রাজনৈতিক প্রভাবের জন্য কেউ যেন ছাড় না পায়।’
সংসদের অধিবেশন শেষে পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম সাংবাদিকদের জানান, আনন্দবাজারে প্রকাশিত খবর নজরে এসেছে। বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থা সারদা গোষ্ঠীর বিপুল অর্থ জামায়াতে ইসলামির হাতে আসার অভিযোগে তাঁরা উদ্বিগ্ন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে তাঁরা ইতিমধ্যেই বিষয়টির তদন্ত শুরু করেছেন। কী ভাবে, কাদের মাধ্যমে এই অর্থ বাংলাদেশের মৌলবাদীদের হাতে পৌঁছেছে, সে টাকা পরে কোথায় ব্যবহৃত হয়েছে, তা খুঁজে বার করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।
শাহরিয়ার আলম আরও বলেন, ‘দুই দেশের মধ্যে সুন্দর একটি সম্পর্ক রয়েছে। আশা করি দুদেশের কেউই অপর দেশের জঙ্গি ও মৌলবাদী শক্তিকে উৎসাহ দেওয়ার প্রচেষ্টাকে সমর্থন করবে না।’অবশ্য জামায়াতে ইসলামি বিবৃতি দিয়ে বিষয়টি ষড়যন্ত্র বলে দাবি করে। কিন্তু জামায়াতের এক নেতার সাম্প্রতিক বক্তব্য খুবই তাৎপর্যপূর্ণ।অতি সম্প্রতি ওই দলের কেন্দ্রীয় নেতা আতাউর রহমান বাংলাদেশের একটি টেলিভিশন চ্যানেলকে জানিয়েছেন, শেখ হাসিনার সরকার তাঁদের প্রথম সারির নেতাদের যুদ্ধাপরাধের মামলায় জেলে ভরার পরে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে তাঁদের পরিচিতি বেড়েছে। বেড়েছে আন্তর্জাতিক সহযোগিতাও।
ওই জামায়াত নেতা জানিয়েছেন, আগে ভারতে তাঁদের কোনও সহযোগী ছিল না। কিন্তু আন্তর্জাতিক স্তরে প্রভাবশালী কিছু শিবিরের মাধ্যমে গত দুই-তিন বছরে ভারতের কিছু ব্যক্তি ও সংগঠনের সঙ্গে জামায়াতে ইসলামির যোগাযোগ তৈরি হয়েছে।রাজশাহির সাংসদ ফজলে হোসেন বাদশার অভিযোগ, ‘জামায়াতনেতা যে সময়ের কথা বলেছেন, সেই সময়েই সারদার বাড়বাড়ন্ত হয়েছিল। পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাটেও তখনই পরিবর্তন হয়। তৃণমূলের রাজ্যসভা সাংসদ আহমেদ হাসান ইমরান ইসলামি ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের একজন কর্তা হিসেবে পরিচিত। আতাউর রহমানের বক্তব্য থেকেই প্রমাণ হচ্ছে, ইমরানের মাধ্যমেই জামায়াত ভারত থেকে সাহায্য পেয়েছে।’তৃণমূল সাংসদ আহমেদ হোসেন ইমরান অবশ্য দাবি করেন, তাঁকে ষড়যন্ত্র করে দেশদ্রোহী সাজানো হচ্ছে। তিনি জামায়াতের হাতে সারদার টাকা পৌঁছে দেওয়ার সঙ্গে যুক্ত নন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

দুই আসিফের ‘সাদা আর লাল’

বিনোদন ডেস্ক :  আসিফ ইকবাল। এ দেশের একজন বরেণ্য গীতিকবি। আর আসিফ ...

মুক্তি পেল পরিণীতির গাওয়া প্রথম গান

বিনোদন ডেস্ক :  অভিনয়ের পর এবার গান গাইলেন পরিণীতি চোপরা। তার গাওয়া ...