ব্রেকিং নিউজ
Home | ফটো সংবাদ | ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজট

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে তীব্র যানজট

গাজীপুর

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা ত্রিমোড় থেকে চান্দনা চৌরাস্তা পর্যন্ত শুক্রবার সকাল থেকে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। তবে সড়কে হাইওয়ে পুলিশের উপস্থিতি একেবারে কম। যানজট মোকাবিলায় কালিয়াকৈর থানা পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে।

শুক্রবার পবিত্র শবে বরাতসহ টানা তিন দিন ছুটি দিয়েছে পোশাক কারখানাগুলো। তার উপর বেতনের টাকা হাতে পেয়েছে শ্রমিকরা। ফলে বৃহস্পতিবার বিকেল থেকেই শ্রমিকরা নিজ নিজ বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিয়েছেন। তার উপর ফল নিয়ে রাজধানীতে আগত ট্রাকগুলো উত্তরবঙ্গের পথে রওনা হওয়ায় সারারাত ধরে চলে যানজট।

মহাসড়কের গাজীপুরের কড্ডা থেকে কালিয়াকৈর উপজেলার বোর্ডঘর পর্যন্ত ২০কিলোমিটার আর চন্দ্রা থেকে কবিরপুর পর্যন্ত ৮কিলোমিটার যানজট সৃষ্টি হয়। তদুপরি ভোরে বৃষ্টির কারণে রাস্তা কর্দমাক্ত হয়ে পরিস্থিতি নাজুক হয়ে পড়ে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সকাল ৬টার ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ও কালিয়াকৈর নবীনগর সড়কে ট্রাফিক সিগনাল না মানায় এবং নিয়ম বর্হিভুত গাড়ী পার্কিং এ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এতে অসহনীয় দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ যাত্রী ও ব্যবসায়ীরা। যানজটের কারণে এবং অতি গরমে ব্যবসায়ী ও যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। মহাসড়কে তীব্র যানজট সৃষ্টি হলেও সড়কের ওই স্থানে কোনো হাইওয়ে পুলিশের উপস্থিতি নেই।

এছাড়া দুপুর ১২ টার দিকে চন্দ্রা ত্রিমোড় এলাকায় ট্রাক চাপায় এক রিক্সাচালক নিহত হওয়ায় যানজটের প্রকটতা বৃদ্ধি পায়। খবর পেয়ে কালিয়াকৈর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে যানজট নিরসন করার চেষ্টা করে। ট্রাকটি আটক করে মহাসড়ক থেকে নিলে ধীরে ধীরে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

ঢাকাগামী যাত্রীবাহী বাসের যাত্রী আরাফাত, সুজন, শহিদুল, আাছমা বেগম জানান, পুলিশ একপাশ বন্ধ করে অপরপাশ দিয়ে গাড়ি ছেড়ে দিলেও ধীর গতি হওয়ায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। কিন্তু দুপুরে প্রখর রোদ্র তাপ গরমে অতিষ্ঠ হয়ে গেছি।

একটি বাসের চালক ফরহাদ মিয়া জানান, সড়কে চলাচলরত পরিবহনের চালকরা নিয়মনীতি মানছে না। উল্টো সাইড দিয়ে নিয়ম ভেঙ্গে ওভার টেকিং করা ফলে সড়কে যানজট দূর হচ্ছে না।

কোনাবাড়ী হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলমগীর সিদ্দিক জানান, সফিপুর, মৌচাক ও কোনাবাড়ী এলাকায় বিভিন্ন শিল্পকারখানার গাড়ী নিয়মনীতি না মেনে মহাসড়কে তুলে দিয়েছে। মহসড়কে যত্রতত্র যানবাহনে যাত্রী উঠানো করার কারণে যানচলাচল কিছুটা ধীর গতিতে রয়েছে। তবে, ভোরে টাঙ্গাইলের গোড়াইয়ে একটি গাড়ীর এক্সেল ভেঙ্গে না গেলে যানজট এত দীর্ঘ সময়ের হতো না। তবে শিগগিরই যানজট শেষ হয়ে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে নারীদের এগিয়ে আসার আহ্বান কৃষিমন্ত্রীর

জাহিদুল হক মনির,শেরপুর: “বাংলাদেশের নারীরা আজ অনেক সাহসী। যুদ্ধাপরাধী কামারুজ্জামানের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় ...

তিস্তা নিয়ে কোন কথা হয়নি ৫ দিনের সফর শেষে দেশে ফিরলেন এরশাদ

নুরনবী সরকার, লালমনিরহাট প্রতিনিধি:  ৫ দিনের সফর শেষে দেশে ফিরেছেন জাতীয় পার্টির ...