ব্রেকিং নিউজ
Home | প্রযুক্তি বিশ্ব | ডেঙ্গু মোকাবিলায় ‘স্টপ ডেঙ্গু’ অ্যাপ চালু

ডেঙ্গু মোকাবিলায় ‘স্টপ ডেঙ্গু’ অ্যাপ চালু

স্টাফ রির্পোটার : সারাদেশের ডেঙ্গুর প্রজনন ক্ষেত্র জানতে ‘স্টপ ডেঙ্গু মোবাইল অ্যাপ’ চালু করা হয়েছে। ফলে এখন থেকে ডেঙ্গুর প্রজনন ক্ষেত্র এবং ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয় সম্পর্কে জানা যাবে মোবাইল অ্যাপে।

শনিবার রাজধানীর জাতীয় স্কাউটস ভবনে পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ সমঝোতা স্বাক্ষর এবং অ্যাপ উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেন, জানাকীর্ণ ও সংকীর্ণ হলেও আজকে যে অ্যাপটি উন্মোচন করা হচ্ছে তা জন সম্পৃক্ততায় বিশেষ অবদান রাখবে। কেবল ডেঙ্গু মোকাবেলায় নয়, সুস্থ নাগরিক জীবনের প্রয়োজনে আমাদের জনসচেতনতা গড়ে তুলতে হবে।

তিনি বলেন, আমি মনে করি আজকে যে ডেঙ্গুকে প্রধান লক্ষ্য হিসেবে ধরা হয়েছে। তবে এটাই সব নয়। ময়লা-আবর্জনা ব্যবস্থাপনা ও বায়ু ও পানি দূষণ থেকে নাগরিকদের সুরক্ষায় প্রযুক্তি জ্ঞানকে কাজে লাগাতে হবে। এসব বিষয়ে সচেতনতা গড়ে তুলতে সকলে মিলে কাজ করতে হবে। এসময় নাগরিক সচেতনতায় পাঠ্যসূচিতে এডিশ মশার মতো সমসাময়িক চ্যালেঞ্জের মতো বিষয় সন্নিবেশ করার পরামর্শ দেন মন্ত্রী।

পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ বিনির্মাণে ডেঙ্গু প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রথমবারের মতো একজোট হয়েছে সরকারের পাঁচটি মন্ত্রণালয় ও বিভাগ এবং আরো চারটি সংস্থা। দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়া ডেঙ্গু জ্বর থেকে মুক্তির লক্ষ্যে উন্মোচন করা হয় স্টপ ডেঙ্গু মোবাইল অ্যাপ।

চুক্তি স্বাক্ষরের পর স্থানীয় সরকারমন্ত্রী ‘স্টপ ডেঙ্গু’ নামে বিশেষায়িত অ্যাপটির উদ্বোধন করেন। ই-ক্যাব বাংলাদেশের সার্বিক তত্ত্বাবধানে অ্যাপটি তৈরিতে কারগরি সহায়তা প্রদান করে ই-পোস্ট ও বিডি ইয়ুথ।

চুক্তি অনুযায়ী পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে সংক্রমিত রোগ প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ, বিশ্লেষণের মাধ্যমে প্রযুক্তির সহায়তায় নাগরিক পর্যায়ে সচেতনতা সৃষ্টিতে যে যার অবস্থান থেকে দায়িত্ব পালন করবেন। বহুপক্ষীয় সমঝোতা চুক্তিতে স্বাক্ষর করে বাংলাদেশ স্কাউটস, ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইক্যাব), ডিএসসিসি, ডিএনসিসি, স্বাস্থ্য অধিফতরের মহাপরিচালকের কার্যালয়ের সেবা বিভাগ, স্থানীয় সরকার অধিদফতর, আইসিটি বিভাগের অধীনস্থ এটুআই প্রকল্প এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা।

অনুষ্ঠানে অ্যাপটির ব্যবহার ও কার্যকারিতার ওপর আলোকপাত করেন ই-ক্যাব সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মাদ আব্দুল ওয়াহেদ তমাল। তিনি জানান, ‘স্টপ ডেঙ্গু’ অ্যাপ ব্যবহারের মাধ্যমে যে কেউ সারা দেশের যেকোনো স্থানে মশার প্রজনন স্থান স্বয়ংক্রিয়ভাবে শনাক্ত করতে পারবেন। এর মাধ্যমে পুরো দেশের মশার প্রজনন স্থানের ম্যাপিং তৈরি করা হবে।

ফলে সিটি কর্পোরেশন এবং স্থানীয় সরকার খুব সহজেই কোন এলাকায় কত জন লোক নিয়োগ করতে হবে তা মশার জন্ম স্থানের ঘনত্ব দিয়ে নির্ধারণ করতে পারবে। মশা নিয়ন্ত্রণে কি পরিমান ওষুধ কিনতে হবে বা ব্যবহার করতে হবে সে বিষয়টিও জানা যাবে অ্যাপটির মাধ্যমে। একইসঙ্গে পরবর্তী বছরের জন্য পূর্বের থেকে সতর্কতামূলক প্রস্তুতি গ্রহণ করা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

শিক্ষার্থীর হাতে নতুন বই তুলে দিতে ব্যাপক যজ্ঞে ব্যস্ত এনসিটিবি

স্টাফ রির্পোটার : নতুন বছর আসতে আরও দিন ৪০ বাকি। বছরের প্রথম ...

আজ রাতে দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

স্টাফ রির্পোটার : সংযুক্ত আরব  আজ রাতে দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ...