Home | সারা দেশ | ঝালকাঠি আন্তঃজেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচন কাল \ টান টান উত্তেজনা

ঝালকাঠি আন্তঃজেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচন কাল \ টান টান উত্তেজনা

আবুল হাসান মৃধা, ঝালকাঠি : ঝালকাঠি আন্তঃজেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের ২৭ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচন উপলক্ষ্যে দু’গ্রæপের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। ইতিমধ্যেই এই নির্বাচনের ভোটার তালিকায় ভূয়া ভোটার করার দাবি করে শ্রমিক দলের পক্ষ থেকে খুলনা বিভাগীয় শ্রম আদালতে মামলা দায়ের করা হয়। আজ বৃহস্পতিবার নোটিশের সঠিক জবাব না দিলে শ্রম আদালত এক তরফা রায় দিয়ে নির্বাচন স্থগিত করে দিবেন। গত ১৯ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার আদালতের এ সংক্রান্ত নোটিশ ঝালকাঠি শ্রমিক ইউনিয়ন কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করেছেন শ্রম আদালতের নোটিশ জারীকারক মো. বাবুল হাওলাদার। এ মামলার নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত নির্বাচন অনুষ্টিত হতে না পারে সে জন্য অস্থায়ী ও অন্তবর্তীকালিন নিষেধাজ্ঞা চাওয়া হয়েছে। আদালত নোটিশে কেন নিষেধাজ্ঞার আদেশ হবেনা নোটিশ প্রাপ্তির ৭ দিনে মধ্যে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দিয়েছে বিজ্ঞ আদালত। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দিতাকারী শ্রমিক নেতারা বলেন, আমাদের নিয়েই সব সময় রাজনীতি হয়। রাজনীতির চাকাতলে আমরা শেষ হচ্ছি। নির্বাচন নিয়ে একেক পক্ষের একেক রকম রাজনীতির কারণে আমরাই শুধু শুধু হয়রাণীর শিকার হচ্ছি। এ নির্বাচন নিরপেক্ষ হবেনা বলেই বাদীর আবেদনের প্রেক্ষিতে ২০০৬ সনের শ্রম আইনের ২১৬(১) (ছ) ধারায় ৬ বিবাদীদের ৭ দিনের মধ্যে কারন দর্শানোর নোটিশ দেয় আদালত। এর মধ্যে প্রশ্ন উঠেছে সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহŸায়ক আনোয়ার হোসেন আনু কার্যক্রম নিয়ে। জেলা শ্রমিক দলের সভাপতি ও সাবেক শ্রমিক ইউনিয়ন সভাপতি টিপু সুলতান জানান, ‘আনোয়ার হোসেন আনু বরিশাল বিএম কলেজের প্রধান অফিস সহকারীর পদে সরকারী চাকরী করে ঝালকাঠিতে প্রকাশ্য রাজনীতি করছেন। অনৈতিক ও রাষ্ট্রের নিয়ম পরিপন্থি এমন একটি ব্যক্তি ঝালকাঠির বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডে নিজেকে মহান ব্যক্তিত্বের পরিচয় দিয়ে আসছে। ঝালকাঠি জেলা বাস মালিক সমিতি ও শ্রমিক ইউনিয়ন কোন সংগঠনের সাথেই তার কোন সম্পৃক্ততা নেই। তিনি স্থানীয় প্রশাসনেরও কোন কর্তা নয়। একপক্ষকে জিতিয়ে নেয়ার রাজনীতির কারনেই এমন বিতর্কিত লোককে নির্বাচন কমিটির আহŸায়ক করা হয়েছে।’ শ্রমিক নেতা টিপু সুলতান দাবি করেছেন, ‘ভূয়া শ্রমিক ভোটার তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করে নির্বাচনের পায়তারা চলছে। তা হতে দেয়া হবেনা। বৃহস্পতিবার (আজ) খুলনা বিভাগীয় শ্রম আদালতে চুড়ান্ত শুনানীর তারিখ ধার্য্য রয়েছে। যদি নির্বাচন কমিটি সঠিক জবাব দিতে পারে তাহলে নির্বাচন হবে। নয়তো আদালত একতরফা রায় দিয়ে নির্বাচন স্থগিত করে দিবে।’ অপরদিকে শ্রমিকলীগ নেতা ও শ্রমিক ইউনিয়ন সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী বাহাদুর চৌধুরী বলেন, ‘সির্দান্ত সম্পূর্ন আদালতের বিষয়। আদালত যদি মনে করে নির্ধারিত শুনাণীর তারিখে যথোপযুক্ত জবাব দেয়া হয়েছে তাহলে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আর যদি মনে করে জবাব যথোপযুক্ত হয়নি তাহলে নির্বাচন  স্থগিত করে দিবে। ’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রাণীনগরে বিদ্যুতের যত্র-তত্র লাইনে বাড়ছে দূর্ঘটনা

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর রাণীনগরে পল্লী বিদ্যুতের ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা যত্র-তত্র লাইনে ...

কুড়িগ্রামে ভ্রাম্যমান আদালতে দুই ইটভাটার মালিককে জরিমানা

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামে বিএসটিআই এর সিএম লাইসেন্স গ্রহন না করে ইট উৎপাদন ...