Home | জাতীয় | জাহালমকে নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করতে যাচ্ছে দুদক

জাহালমকে নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করতে যাচ্ছে দুদক

স্টাফ রির্পোটার : অন্যের অপরাধে তিন বছর কারাভোগ করা জাহালমকে নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আদালতে আবেদন করতে যাচ্ছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। বিচারাধীন বিষয় হওয়ায় এ বিষয়ে আবেদন করা হবে বলে দুদকের আইনজীবী জানিয়েছেন।

সোমবার দুদকের প্রধান কৌঁসুলি খুরশীদ আলম খান জানান, সংশ্লিষ্ট আদালতের অনুমতি নিয়ে আগামীকাল মঙ্গলবার হলফনামা আকারে আবেদন দাখিল করা হবে।

সোনালী ব্যাংকের সাড়ে ১৮ কোটি টাকা ঋণ জালিয়াতির ঘটনায় নিরপরাধ পাটকল শ্রমিক জাহালমকে প্রকৃত আসামি আবু সালেক হিসেবে চিহ্নিত করে ২৬টি মামলা করে দুদক। পরে ২০১৬ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি জাহালমকে গ্রেপ্তার করা হয়।

অন্যের অপরাধে তিন বছর ধরে জেলে থাকা জাহালমকে নিয়ে একটি দৈনিক পত্রিকার প্রতিবেদন সুপ্রিমকোর্টের এক আইনজীবী হাইকোর্টের নজরে আনেন। গত ৩ ফেব্রুয়ারি আদালত জাহালমকে মুক্তির নির্দেশ দেয়। এরপর কাশিমপুর কারাগার থেকে মুক্তি পান জাহালম।

সম্প্রতি গণমাধ্যমে খবর আসে জাহালমের জীবনের এই গল্প নিয়েই চলচ্চিত্র নির্মাণ করবেন মারিয়া তুষার নামের একজন নির্মাতা। এজন্য তিনি চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতিতে নামও নিবন্ধন করেছেন। তবে নিজের জীবনের ঘটনার অবলম্বনে সেই চলচ্চিত্র নির্মাণের খবর জানেন না জাহালম।

খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘সম্প্রতি দুটি সংবাদপত্রের খবরে এসেছে জাহালমের জীবনের গল্প নিয়ে সিনেমা বানাতে যাচ্ছেন কোনো এক পরিচালক।’

‘দুদকের আপত্তি হচ্ছে, জাহালমের ঘটনাটি এখনও বিচারাধীন। ফলে সাবজুডিস কোনো বিষয় নিযে সিনেমা হতে পারে না। তাই পত্রিকায় প্রকাশিত দুটি প্রতিবেদন যুক্ত করে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করতে যাচ্ছি। কাল (মঙ্গলবার) আবেদন করা হবে।’

জাহালমকাণ্ডে দুদকের করা সব মামলার প্রাথমিক তথ্য বিবরণী (এফআইআর), অভিযোগপত্রসহ (সিএস) যাবতীয় নথি চেয়েছে হাইকোর্ট।  আগামী ১০ এপ্রিল তা আদালতে নিয়ে আসতে দুদকের প্রতি নির্দেশ রয়েছে।

টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার ধুবুড়িয়া গ্রামের জাহালম নরসিংদীর একটি পাটকলে শ্রমিকের কাজ করতেন। স্ত্রী-সন্তানকে নিয়ে সেখানেই থাকতেন তিনি। ২০১৬ সালে দুদকের এক মামলার আসামি ‘আবু সালেক’ হিসেবে গ্রেপ্তার করা হয় জাহালমকে।

জাহালমের ভাষ্য, তখন তিনি বারবার বলছিলেন যে তিনি সালেক নন, কিন্তু তাতে কান দেননি দুদক কর্মকর্তারা। পরে ‘আবু সালেক’ হিসেবেই কারাভোগ করেন এ নিরপরাধ যুবক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রূপপুরে রাঁধুনির বেতন ৮০ হাজার, ড্রাইভারের ৯২ হাজার

ডেস্ক রিপোর্ট : বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় প্রকল্প রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র। ২০১৭ সালের নভেম্বরে ...

৫ মণ হরিণের মাংস, মাথা ও চামড়াসহ ট্রলার জব্দ

বরগুনা প্রতিনিধি : বরগুনার পাথরঘাটায় বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী বনফুল আবাসন সংলগ্ন একটি ছোট খাল থেকে ...