ব্রেকিং নিউজ
Home | আন্তর্জাতিক | খুলনায় আবারো বেড়েছে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম

খুলনায় আবারো বেড়েছে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম

এম শিমুল খান, খুলনা প্রতিনিধি,৮ মার্চ, বিডিটুডে ২৪ডটকম : গত কয়েক দিন ধরে টানা রাজনৈতিক অস্থিতিশীল পরিবেশে পরিবহণ বন্ধ থাকায় খুলনায় নিত্য প্রয়োজনীয় সব পণ্যের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। দোকানিরা এই সংকটের অজুহাত দেখিয়ে সব কিছুর দাম ইচ্ছে মতো বাড়াচ্ছেন। সাধারণ ক্রেতারা বাজারে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছে। বিশেষ করে মাছ ও সবজির দাম বেশ চড়া। সেই সঙ্গে চাল, ডাল, ভোজ্য তেলের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। খুলনা মহানগরীর বড় বাজার, নিউ মার্কেট, কাঁচাবাজার, শেখপাড়া বাজার ও নতুন বাজার সরোজমিনে ঘুরে দেখা যায়, বিভিন্ন জাতের মাছের দাম কেজি প্রতি ৭০ থেকে ১২০ টাকা বেড়েছে। হরতালের কারণে মাছের পর্যাপ্ত পরিমাণ সরবরাহ না থাকা, পরিবহণ খরচ ও আনুষঙ্গিক ব্যয় বাড়তি দেখিয়ে দাম বাড়ানো হচ্ছে। এ সব বাজারের বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বড় ইলিশ প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৬০০ থেকে সাড়ে ৯০০ টাকা ও জাটকা বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে ৩৫০ টাকা দরে। মেদ মাছ বিক্রি হচ্ছে ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকা, মোচন মাছ বিক্রি হচ্ছে ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকা, কাতলা মাছ বিক্রি হচ্ছে ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকা, গলদা চিংড়ী মাছ বিক্রি হচ্ছে ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা, শোল মাছ বিক্রি হচ্ছে ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকা, শিং মাছ বিক্রি হচ্ছে ৫০০ থেকে ৬৫০ টাকা, তেলাপিয়া মাছ দেশী বিক্রি হচ্ছে ১৭৫ থেকে ২২০ টাকা, তেলাপিয়া মাছ হাইব্রিড বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা, সাদা চিংড়ি মাছ বিক্রি হচ্ছে ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা ও রুই মাছ বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা দরে। আগের সপ্তাহের তুলনায় এই দাম ৭০ থেকে ১২০ টাকা বাড়তি এ অভিযোগ সাধারণ ক্রেতাদের। এ জন্য তারা মাছ কিনতে হিমশিম খাচ্ছে। ওই সব বাজারের চাল বিক্রেতারা জানালেন, মোটা ও চিকন চালের দাম কেজিতে দেড় টাকা থেকে দুই টাকা দরে বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশেষ করে মোটা চাল কেজিতে দুই টাকা বৃদ্ধি পেয়ে ২৮ থেকে ৩০ টাকা এবং চিকন চাল কেজিতে তিন টাকা বৃদ্ধি পেয়ে ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া মুদি দোকানো খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এক সপ্তাহের ব্যবধানে দেশী পেঁয়াজ ২৪ টাকার পরিবর্তে ৩২ টাকা, আলু ১৪ টাকার পরিবর্তে ১৬ টাকা, টমেটো ১৬ টাকার পরিবর্তে ২০ টাকা, বেগুন ২৩ টাকার পরিবর্তে ২৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া মসুর ডাল ১২৮ টাকা, মুগডাল ১২৮ টাকা, ডিম ৩৫ টাকা হালি বিক্রি হচ্ছে। সয়াবিন (লুজ) তেল বিক্রি হচ্ছে ১৩০ টাকা, বোতলজাত বিক্রি হচ্ছে (৫ লিটার) ৬৬৫ টাকা। বয়লার মুরগী ১ বিক্রি হচ্ছে ১৩০টাকা থেকে ১৪০ টাকা, দেশী মুরগি বিক্রি হচ্ছে ৩০০ টাকা এবং কক মরগী বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকা থেকে ১৯০ টাকা। এছাড়া গরুর মাংস ২৫০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। মাছের অগ্নিমূল্যের কারণে অনেকেই এখন মাংস কেনার দিকে ঝুঁকছেন।

x

Check Also

নারী হিসেবে নিজের পায়ে দাঁড়াতে হজরত মুহম্মদ (স.)-ই আমার অনুপ্রেরণা

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক: নারী হিসেবে নিজের পায়ে দাঁড়াতে হজরত মুহম্মদ (স.)-ই আমার অনুপ্রেরণা ...

শান্তিচুক্তি মেনে চলার কোনো আগ্রহ নেই তালেবানের

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক: আফগানিস্তানে প্রায় ১৯ বছর যুদ্ধের পর সম্প্রতি তালেবান ও যুক্তরাষ্ট্রের ...