Home | ফটো সংবাদ | খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানিয়ে ঢাকা জেলা প্রশাসককে স্মারকলিপি দিল বিএনপি

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানিয়ে ঢাকা জেলা প্রশাসককে স্মারকলিপি দিল বিএনপি

স্টাফ রিপোর্টার : দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সাজা পেয়ে কারাগারে অবস্থান করা বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানিয়ে ঢাকা জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে দলটি।

রবিবার বেলা ১১টার দিকে পুরান ঢাকায় অবস্থিত জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে স্মারকলিপি জমা দেন ঢাকা জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা। ঢাকা জেলা প্রশাসক মো. সালাহ উদ্দিন স্মারকলিপি গ্রহণ করেন।

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার জিয়াউর রহমান, ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি ডা. দেওয়ান সালাউদ্দিন বাবু, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আবু আশফাক, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও কেরাণীগঞ্জ থানা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট নিপুন রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করিম পল, রাশেদুল হাসান রাশেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউজ্জামান বদি, ঢাকা জেলা সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আব্দুর রহমান বাবুল, ঢাকা জেলা ছাত্রদলের সভাপতি হাজী মাসুম, ঢাকা জেলা যুবদলের আহ্বায়ক ভিপি নাজিম, যুগ্ম আহ্বায়ক ওয়ালিদ খান, মহিলাদলের আহ্বায়ক সাবিনা ইয়াসমিন প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

স্মারকলিপি জমা দেয়ার পর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনের সড়কে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ করেন বিএনপি নেতাকর্মীরা।

কেন্দ্রঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে এ স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এ সময় বিপুল সংখ্যক বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে একইসময়ে ঢাকা মহানগর বিএনপির উত্তর ও দক্ষিণের পক্ষ থেকেও জেলা প্রশাসককে স্মারকলিপি দেয়া হয়।

মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশারের নেতৃত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, মীর নেওয়াজ আলী, উত্তরের শামীম পারভেজসহ নেতাকর্মীরা। তারাও স্মারকলিপি প্রদান শেষে ওই এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করে।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সাজা দেয় ঢাকার বকশিবাজারে সরকারি আলিয়া মাদ্রাসার মাছে স্থাপিত বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামানের আদালত। এছাড়া রায়ে তারেক রহমানসহ মামলার অন্য পাঁচ আসামির ১০ বছরের কারাদণ্ড এবং দুই কোটি ১০ লাখ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়। রায় ঘোষণার পর খালেদা জিয়াকে কারাগারে পাঠানো হয়।

খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর বিএনপি বেশ কয়েক দিন কর্মসূচি পালন করেন। রায়ের পরদিন ৯ ফেব্রুয়ারি ঢাকাসহ সারাদেশে বিক্ষোভ কর্মসূচি করে দলটি। এছাড়া ১০ ফেব্রুয়ারি থানা, উপজেলা, জেলা মহানগরে প্রতিবাদ সমাবেশ, ১২ ফেব্রুয়ারি মানববন্ধন, ১৩ ফেব্রুয়ারি অবস্থান কর্মসূচি ও ১৪ ফেব্রুয়ারি অনশন কর্মসূচি পালন করে দলটি। বিএনপির তৃতীয় দফা কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ সারাদেশে জেলা প্রশাসকদের কাছে স্মারকলিপি দিচ্ছে দলটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মার্কিন কংগ্রেসে রোহিঙ্গা নিধনকে গণহত্যা আখ্যা

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক : রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর চালানো নৃশংসতাকে গণহত্যা আখ্যা দিয়েছেন মার্কিন ...

সিংহের গর্জন এবার সত্যি সত্যি

বগুড়া প্রতিনিধি : বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসন থেকে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ ...