Home | ব্রেকিং নিউজ | কুড়িগ্রামে গোপন প্রক্রিয়ায় মাদ্রাসার সুপার নিয়োগ পাঁয়তারার অভিযোগ

কুড়িগ্রামে গোপন প্রক্রিয়ায় মাদ্রাসার সুপার নিয়োগ পাঁয়তারার অভিযোগ

অনিরুদ্ধ রেজা, কুড়িগ্রাম : কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার ঘোগাদহ ওসমানিয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপারের শূন্য পদে অতি গোপনীয়তার সাথে নিয়োগ প্রদান প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখার মতো গুরুত্বর অভিযোগ ফাঁস হয়ে পড়ায় সংশ্লিষ্ট এলাকায় তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। চলমান গোপন নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল চেয়ে ঘোগাদহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শাহ্ আলম মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের মহাপরিচালক বরাবর লিখিত আবেদন জানিয়েছেন।

তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, ১৯৮০ সালে প্রতিষ্ঠিত মাদ্রাসাটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মোঃ ইউনুছ আলী মাদ্রাসাটিকে নিজের পারিবারিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করেন। ইতোপূর্বে সকল নিয়োগকৃত শিক্ষক ও কর্মচারীর কাছ থেকে তিনি মোটা অংকের উৎকোচ নিয়েছিলেন। সর্বশেষ ২০০২ সালে তিনি সুপার পদ থেকে অব্যাহতি দিয়ে পাশ্ববর্তী ভিতরবন্দ ডিগ্রী কলেজে প্রভাষক পদে চাকুরী নেন। এদিকে- মাদ্রাসাটির কর্তৃত্ব ধরে রাখার জন্য তিনি সুপার পদে অব্যাহতি প্রদানের পর ওই মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির সভাপতি পদে আসিন হন।

অভিযোগে জানা যায়- ২০০২ সালে মাদ্রাসাটির সুপার পদ শূন্য হবার প্রায় এক যুগ পর ২০১৮ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর দৈনিক আমাদের সময় এবং দৈনিক চারিদিকে প্রতিদিন পত্রিকায় সুপার নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন। এদিন দু’টি পত্রিকা কুড়িগ্রামে বিলি করা হয়নি মর্মে অভিযোগ রয়েছে। এরপর শুরু হয় গোপন প্রক্রিয়ায় নিয়োগ কার্যক্রম। মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি ইউনুছ আলী তার মনোনিত ৫ ব্যক্তির কাছ থেকে আবেদন গ্রহন করলেও এলাকার অনেক যোগ্য ও মেধাবী ব্যক্তি সুপার পদে আবেদন করতে পারেননি।

অভিযোগে আরো জানা যায়, সুপার পদে আবেদনকারী ৫ জন ব্যক্তিই জামায়াতে ইসলামী এবং বিএনপির রাজনীতির সাথে সরাসরি সম্পৃক্ত রয়েছেন। আবেদনকারী ৫জনের মধ্যে রাজারহাট জাওহারিয়া দাখিল মাদ্রাসার জামায়াতপন্থী সহকারী সুপার মোঃ আনোয়ারুল হকের কাছ থেকে মোটা অংকের উৎকোচ নিয়ে তাকেই সুপার পদে নিয়োগ দেয়ার জন্য পাঁয়তারা করা হচ্ছে। নিয়োগ পরীক্ষায় বাকি ৪জন আবেদনকারী ওই জামায়তপন্থী প্রার্থী মোঃ আনোয়ারুল হককে সহায়তা করার কথা রয়েছে। প্রথম পর্যায় নিয়োগ পরীক্ষার দিন নির্ধারণ করা হয় চলতি বছরে ১লা মার্চ। পরবর্তীতি এই নিয়োগ পরীক্ষার তারিখ পিছিয়ে করা হয় ৮মার্চ। এই গোপন নিয়োগ প্রক্রিয়ার সাথে ডিজির প্রতিনিধি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের উপ-পরিচালক (প্রশাসন) মোঃ সাইফুল ইসলাম জড়িত থাকারও অভিযোগ উঠেছে।

এমতাবস্থায় সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসী ঘোগাদহ ওসমানিয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার পদে চলমান গোপন নিয়োগ কার্যক্রম বাতিল পূর্বক নতুন করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে স্বচ্ছ প্রকিয়ায় নিয়োগ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য জোরালো দাবী জানিয়েছে।

এব্যাপারে মাদ্রাসাটি ভারপ্রাপ্ত সুপার আব্দুস ছালামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন- সুপার পদে দরখাস্ত আহ্বান করেছেন মাদ্সা কমিটির সভাপতি। এ সম্পর্কিত কাগজপত্র আমার কাছে নাই। অতএব এব্যাপারে আমি কিছুই বলতে পাবো না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

নাগেশ্বরীর ৩ ইউনিয়নের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থরা অর্থ সহায়তা পাবে ১কোটি ৩০লাখ টাকা

অনিরুদ্ধ রেজা, কুড়িগ্রাম : বাংলাদেশের উত্তারাঞ্চলে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ জনগোষ্টির জরুরী সহায়তা প্রকল্পের ...

বাংলাদেশি সিনেমা থেকে কতো পারিশ্রমিক নিচ্ছেন সানি লিওন?

বিনোদন ডেস্ক : বাংলাদেশের সিনেমায় অভিনয় করবেন বলিউড অভিনেত্রী সানি লিওন। এরই মধ্যে ...