ব্রেকিং নিউজ
Home | বিবিধ | আইন অপরাধ | কালিয়াকৈরে যুবদল নেতার বিরুদ্ধে সাংবাদিক স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগ

কালিয়াকৈরে যুবদল নেতার বিরুদ্ধে সাংবাদিক স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগ

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি : গাজীপুরের কালিয়াকৈরে এক যুবদল নেতার বিরুদ্ধে তার সাংবাদিক স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় শনিবার রাতে যুবদলের নেতাসহ চারজনের নাম উল্লেখ করে কালিয়াকৈর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
নির্যাতনের শিকার হলেন, কালিয়াকৈর উপজেলার ফুলবাড়িয়া উত্তরপাড়া এলাকার মৃত মোশারফ হোসেনের মেয়ে উম্মে মুসলিমা মুক্তা (৩৩)। তিনি একটি অনলাইন পল্লীটিভির কালিয়াকৈর প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।
ভুক্তভোগীর পরিবার ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত তিন বছর আগে গাজীপুর জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি শেখ সাব্বির আহম্মেদ কছিমের সঙ্গে পারিবারিকভাবে মুক্তার বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই মুক্তার উপর যৌতুকের দাবিতে অমানবিক নির্যাতন চালিয়ে আসছে তার পাষন্ড স্বামী সাব্বির। টাকা দিতে অস্বীকার করায় তার শরীরে সিগারেটের স্যাকাও দেওয়া হয়েছে। এ কারণে মুক্তার মা বাধ্য হয়ে জমি-জামাসহ বিভিন্ন মূল্যবান সম্পদ বিক্রি করে পর্যায়ক্রমে মেয়ের জামাতাকে ২০ লাখ টাকা দেয়। মুক্তাকে নির্যাতনের বিষয়ে এলাকায় একাধীক শালিস বসলেও কোনো সমাধান হয়নি। সর্বশেষ মুক্তার কাছে আরও ৫ লাখ টাকা দাবি করে স্বামী যুবদল নেতা সাব্বির। ওই টাকা দিতে অস্বীকার করলে ক্ষিপ্ত হন ওই যুবদলের নেতা ও তার পরিবারের লোকজন। এর জের ধরে গত ২০ আগস্ট রাত সাড়ে ১০টার দিকে স্ত্রী মুক্তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালায়। এ সময় তার স্বামী সাব্বির, ভাসুর শেখ কমুর উদ্দিন, দেবর শেখ কামরুজ্জামান, ও ননদ মোমেনা সাংবাদিক মুক্তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে বেধম মারধর করে। তার ডাক-চিৎকারের আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে মুক্তাকে উদ্ধার করে। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করেন। বর্তমানে মুক্তা ওই হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। এ ঘটনার পরের দিন উম্মে মুসলিমা মুক্তা বাদী হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। ওই অভিযোগ আমলে নিয়ে গত শনিবার রাতে মামলা রেকর্ড করা হয়। ওই যুবদলের নেতা শেখ সাব্বির আহম্মেদ কছিম উপজেলার মোথাপাড়া এলাকার শেখ আব্দুল হাকিমের ছেলে।
নির্যাতনের শিকার উম্মে মুসলিমা মুক্তা জানান, যৌতুকের দাবিতে সাব্বির আমাকে বিভিন্ন সময় মারধর করতো। পর্যায়ক্রমে তাকে ২০ লাখ টাকা দিলেও তিনি শান্ত হননি। এখন আবার আরো ৫ লাখ টাকা দাবি করছে। ওই টাকা দিতে অস্বীকার করলে তিনি ও তার দুই ভাই এবং এক বোন মিলে হত্যার উদ্দেশ্যে আমার উপর হামলা করে। এ ঘটনায় থানায় মামলা করলে তিনি আমার নামে নানা অপ-প্রচার চালাচ্ছেন।
অভিযুক্ত গাজীপুর জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি শেখ সাব্বির আহম্মেদ কছিম জানান, আমার অবাধ্য স্ত্রী বেপরোয়া চলাফেরা করে। আমাকে না জানিয়ে তার ইচ্ছে মত যখন তখন বিভিন্ন স্থানে চলে যায়। সবসময় মোবাইল ফোনে ব্যস্ত থাকে। সে দীর্ঘদিন ধরে আমাকে বিভিন্নভাবে হয়রানি করে আসছে। আমি তার কাছে কোন যৌতুক দাবি করি নাই এবং কোনো টাকা-পয়সা গ্রহন করি নাই। সে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়েছে।
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম জানান, সাব্বিরের বিরুদ্ধে তার স্ত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগ রয়েছে। ইতি পূর্বে একাধিকবার গ্রামিণভাবে মিমাংসার চেষ্টা করা হলেও বিষয়টি মিমাংসা হয়নি।
কালিয়াকৈর থানাধীন ফুলবাড়িয়া ক্যাম্পের ইনর্চাজ উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো: আব্দুস সালাম মোবাইল ফোনে জানান, এ ঘটনায় উম্মে মুসলিমা মুক্তা বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ডিবির সহকারী কমিশনারের ড্রয়ার ভেঙে ইয়াবা চুরি, কারাগারে কনস্টেবল

স্টাফ রির্পোটার : মিন্টু রোডস্থ ডিবি পশ্চিমের অফিস কক্ষ থেকে মামলার আলামত পাঁচ ...

নারায়ণগঞ্জে ইমামকে গলা কেটে হত্যা

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে মল্লিকপাড়া গ্রামের নারায়ণদিয়া বায়তুল জালাল মসজিদের ইমামকে ...