ব্রেকিং নিউজ
Home | ব্রেকিং নিউজ | কক্সবাজার আওয়ামী লীগ নেতারা প্রধানমন্ত্রীর ডাক পেলেন

কক্সবাজার আওয়ামী লীগ নেতারা প্রধানমন্ত্রীর ডাক পেলেন

hasinaএম.শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার প্রতিনিধি : পর্যটন নগরি কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতারা গণভবনে ডাক পেয়েছেন। দলীয় নেতারা আগামী ৭ অক্টোবর আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে গণভবনে যাওয়ার কথা রয়েছে। ইতোমধ্যে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম স্বাক্ষরিত একটি চিঠি জেলার সভাপতি ও সম্পাদক বরাবর পৌছানো হয়েছে। জেলা আওয়ামী লীগের গুরুত্বপূর্ণ নেতা, উপজেলা ও প্রথম শ্রেণী পৌরসভার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক গণভবনের এ বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন বলে জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র এক নেতা এই তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন।
দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী বাচাই, দলীয়  কোন্দল নিরসন, সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কর্মকান্ড জনগণের কাছে তুলে ধরা, হেফাজত ও বিএনপির অপপ্রচার এবং সাংগঠনকে শক্তিশালী করাসহ গুরুত্বপূর্ন বিষয় নিয়ে গণভবনের বৈঠকে আলোচনা করা হবে। দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন না হওয়ার কারণে দলীয় কার্যক্রম একেবারে স্থবির হয়ে পড়েছে। তাছাড়া দলের মধ্যে নতুন নেতৃত্ব না আসাতে গতি সঞ্চারও হচ্ছে না। দলীয় কোন্দলের কারণে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কর্মকান্ড ও সফলতা গুলো জনগণের কাছে পৌছানো যাচ্ছে না।
গত ৩ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উখিয়া ও রামু উপজেলায় সফর করায় কিছুটা হলেও গতি ফিরে আসে নেতা-কর্মীদের মাঝে। এরপর জেলার তৃণমুল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করেন সাংগঠনিক টিমের প্রধান আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য ও যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, প্রচার সম্পাদক বন ও পরিবেশ মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এবং সাংগঠনিক সম্পাদক বীর বাহাদুর এমপি। তৃণমুলের প্রতিনিধি সম্মেলনে উঠে আসে ত্যাগী নেতাকর্মীদের দলে মূল্যায়িত না হওয়ার বিষয়টি। কেন্দ্রীয় নেতাদের সামনে ক্ষোভ প্রকাশ করে অনেকে বক্তব্য রাখেন। এ অবস্থায় প্রতিনিধি সম্মেলনে সার্বিক বিষয় বিবেচনা করে দলকে শক্তিশালী ও মজবুত করতে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের দিন ধার্য্য করে কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক টিম। সম্মেলনের ঘোষণায় নেতা-কর্মীদের মাঝে যেমন দেখা দিয়েছে প্রাণচাঞ্চল্য। তেমনি অনেকের মধ্যে দেখা দিয়েছে বিরূপ প্রতিক্রিয়া। কারণ আবার আদৌ জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হবে কিনা তা নিয়ে সংশয়ও রয়েছে অনেকের মাঝে।
এদিকে, নাম প্রকাশ না করার শর্তে আওয়ামী লীগের এক নেতা জানান, এই সরকারের আমলে শিক্ষা, কৃষি ও বিদ্যুত খাতে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। কাঙ্খিত উন্নয়ন হওয়ার পরও সুবিধাভোগী ও দখলবাজ নেতাদের কারণে তা ম্লান হয়ে যাচ্ছে। এছাড়া হেফাজত ও বিএনপির নানা অপপ্রচারে সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড সাধারণ মানুষের কাছে মূল্যায়িত হচ্ছে না। এসব কারণে আগামী ৭অক্টোবর গণভবনের বৈঠকটি খুব বেশি গুরুত্বের সাথে নিয়েছে নেতারা।
বর্তমানে ৩০ সেপ্টেম্বর জেলা সম্মেলন নিয়ে ব্যস্ততম সময় কাটালেও মুলত জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা গণভবনের ওই বৈঠকটির জন্য অধির আগ্রহে অপেক্ষা করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

মদনে জাতীয় সমবায় দিবস পালিত

সুদর্শন আচার্য্য, মদন (নেত্রকোণা)ঃ বঙ্গবন্ধুর দর্শন, সমবায়ে উন্নয়ন এই প্রতিপাদ্যটি সামনে রেখে ...

পর্তুগালে মুক্তি পাচ্ছে বাংলাদেশী সিনেমা “হাওয়া”

পর্তুগাল প্রতিনিধিঃ ১৫ই অক্টোবর হাওয়া পর্তুগালে বানিজ্যিক ভাবে মুক্তি পাচ্ছে বাংলাদেশী সিনেমা ...