ব্রেকিং নিউজ
Home | বিবিধ | পরিবেশ | কক্সবাজারের খরুলিয়ায় সড়ক বিভাগের জমি দখল করে মার্কেট নির্মাণের অভিযোগ

কক্সবাজারের খরুলিয়ায় সড়ক বিভাগের জমি দখল করে মার্কেট নির্মাণের অভিযোগ

কক্সবাজার প্রতিনিধি : এবার কক্সবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগে মুল্যবান জমি দখল করে পাকা মার্কেট নির্মাণ অব্যাহত রেখেছে খরুলিয়ার বহুল সমালোচিত ভুমিদস্যু শফিকুল ইসলাম প্রকাশ শফিকুর রহমানের বিরুদ্ধে। অভিযোগ রয়েছে, শফিক বাহিনী ফের বেপরোয়া হয়ে পড়ায় সদরের খরুলিয়ার মানুষ আতংক গ্রস্ত হয়ে পড়েছে।

নিরীহ মানুষের উপর একের পর এক হামলা, সশস্ত্র অবস্থায় জমি দখলসহ অসহায়দের বিভিন্ন কৌশলে হয়রানীর অভিযোগ উঠেছে খরুলিয়ার শফিক ও তার বাহিনীর বিরুদ্ধে। এই শফিকের হাত থেকে এতিমপরিবার ছাড়াও জনপ্রতিনিধিরা পর্যন্ত রেখায় পাচ্ছে না। ব্যক্তিমালিকানাধীন জমির পাশাপাশি সড়ক বিভাগের জমিও দখল করে মার্কেট নির্মাণ অব্যাহত রেখেছে। অবশ্য কক্সবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগ বলছে, তদন্ত করে সরকারী জমি উদ্ধারের পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এলাকাবাসী ও বিভিন্ন সুত্রে জানা গেছে,শফিকুল ইসলাম, জসিম, রহিম ও আবছারসহ আরো ১৫/২০ জন ব্যক্তি বাহিনী গঠন করে স্থানীয় নিরীহ মানুষজনের হামলা, দখলবাজি সহ বিভিন্ন অপরাধ সংগঠিত করে আসছে।

অভিযোগে আরও প্রকাশ, কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়ক লাগোয়া খরুলিয়া গরু বাজার এলাকায় সড়ক ও জনপথ বিভাগের কয়েক কোটি টাকার জমি দখল করে সেখানে বিশাল আকারের পাকা মার্কেট নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। এরআগেও একই স্থানে সড়ক বিভাগের জমি দখল করে মার্কেট নির্মাণপুর্বক ভাড়া দিয়ে লাখ লাখ টাকায় আয় করছে।

এব্যাপারে শফিকুল ইসলাম প্রকাশ শফিকুর রহামানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে, তিনি সড়ক বিভাগের জমি দখলের বিষয় স্বীকার করে বলেন, আমি একাই সড়ক বিভাগের জায়গা দখল করিনি, অনেকেই দখল করে রেখেছে। তিনি আরও বলেন, সড়কের জমির পাশে আমার জমিও আছে।

এবিষয়ে কক্সবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মিন্টু চাকমা বলেন, সড়ক বিভাগের জমি দখল করার অধিকার কারও নেই। এগুলো সরকারী সম্পত্তি।
তিনি বলেন, খরুলিয়ায় সড়ক বিভাগের জমির উপর স্থাপনা নির্মাণের বিষয়টি তদন্ত করে সরকারী জমি উদ্ধারের পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

সচেতন মহলের মতে, মহাসড়কের দু’পাশে সড়ক বিভাগের মালিকানাধীন কোটি কোটি টাকার সম্পদ বেহাত হয়ে গেছে। সড়ক বিভাগের জমি দখল করে পাকা দালানসহ বিভিন্ন স্থাপনা গড়ে তুলে দখলবাজরা প্রতিমাসে লাখ লাখ টাকা আয় করে যাচ্ছে। অথচ মুল্যবান এসব জমি উদ্ধারে সড়ক বিভাগের কোন উদ্যোগ চোখে পড়ছে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

তৃতীয়বারের মত শৈলকুপা পৌর মেয়র নির্বাচিত হলেন আ.লীগের কাজী আশরাফুল আজম

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : তৃতীয়বারের মত ঝিনাইদহের শৈলকুপা পৌর মেয়র নির্বাচিত হলেন আওয়ামী লীগের ...

শৈলকুপা পৌর নির্বাচন : উত্তেজনা, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া মধ্য দিয়ে শেষ হল ভোট

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : ঝিনাইদহের শৈলকুপা পৌর নির্বাচনে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মাঝে উত্তেজনা, ধাওয়া ...