Home | ফটো সংবাদ | ঐকমত্যের ভিত্তিতে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন সম্ভব : ড. কামাল

ঐকমত্যের ভিত্তিতে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন সম্ভব : ড. কামাল

dr. kamal hossainস্টাফ রিপোর্টার : গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, সাংবিধানিক উপায়ে ঐকমত্যের ভিত্তিতে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করা সম্ভব। শনিবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি একথা বলেন।

 

ড. কামাল বলেন, অতীতে ঐকমত্যের ভিত্তিতে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। জনগণ সেটা মেনে নিয়েছে। এখনও তা সম্ভব। ঐকমত্য প্রতিষ্ঠিত না হওয়ায় ১৯৮৬, ১৯৯৬ ও ২০০৬ সালের নির্বাচন জনগণ গ্রহণ করেনি। তাই জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্য পদ্ধতিতেই নির্বাচন করতে হবে।

 

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ও সুজন সভাপতি এম হাফিজউদ্দিন খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজমুদার।

 

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাবেক নির্বাচন কমিশনার বিগ্রেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন, সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব আলী ইমাম মজুমদার, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদ, বিচারপতি কাজী এবাদুল হক, সাংবাদিক মুনির হায়দার, গোলাম মুর্তজা প্রমুখ।

 

ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, যেহেতু সরকার সংবিধান সংশোধন না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তাই সংবিধানিক কাঠামোর মধ্যেই সংলাপের মাধ্যমে সমাধান বের করতে হবে। এছাড়াও সুপ্রিম কোর্টের রায়ে নির্বাচনকালীন সরকারের নির্বাচিত হবার ব্যাপারে বাধ্যধবাধকতা রয়েছে। তাই নির্বাচিত ব্যক্তিদের নিয়েই নির্বাচনকালীন সরকার গঠিত হতে হবে।

 

তিনি দ্বিতীয় বিকল্প হিসেবে সরকারি ও বিরোধী দলের সংসদ সদস্যদের মধ্য থেকে পাঁচজন করে দশজন এবং নির্দলীয় ব্যক্তিদের মধ্য থেকে আরও পাঁচজনকে নিয়ে মোট ১৫ সদস্য বিশিষ্ট উপদেষ্টা পরিষদ গঠন করার পরামর্শ দেন। এক্ষেত্রেও নির্দলীয় ব্যক্তিদের নির্বাচিত করে আনতে হবে।

 

বিগ্রেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন বলেন, একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে আমাদের ভোটারদের মতামতকে প্রাধান্য দিতে হবে। তিনি ‘না’ ভোটের বিধান পুন:প্রবর্তন, রি-কল সিস্টেম চালু এবং স্থানীয় নেতাকর্মীদের মতামতের ভিত্তিতে গঠিত প্যানেলের মাধ্যমে মনোনয়ন দেয়ার পরামর্শ দেন।

 

তিনি সর্বোপরি নির্বাচন কমিশনকে শক্তিশালী করার পদক্ষেপ গ্রহণের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। তিনি বলেন, ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় সব দলই বিরোধী দলের ওপর নির্যাতন চালায়। তাই কেউই বিরোধী দলে যেতে চায় না। যে কারণে আজকের সংকট তৈরি হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

ম্যালেরিয়ার টিকা পাচ্ছে প্রথম ৩ দেশ

স্টাফ রিপোর্টার :  প্রথমবারের মতো ঘানা, কেনিয়া ও মালাউইয়ে ম্যালেরিয়ার টিকা দেওয়ার ...

পাকিস্তানের চ্যাম্পিয়নস ট্রফির দলে আজহার-উমর

স্পোর্টস ডেস্ক: অধিনায়কের দায়িত্ব ছাড়ার পর ওয়ানডে দলে জায়গা হারিয়েছিলেন আজহার আলী। ...